জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় মান্দায় কৃষিতে বায়োচার প্রযুক্তির ব্যবহার বিষয়ক কর্মশালা

175

মান্দা প্রতিনিধি : নওগাঁর মান্দায় ‘জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় কৃষিতে বায়োচার প্রযুক্তির ব্যবহার ও সম্প্রসারণ’ বিষয়ক দিনব্যাপি কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা পরিষদের হলরুমে গতকাল রোববার সকালে ১০টায় এ কর্মশালার উদ্বোধন করেন ইউএনও খন্দকার মুশফিকুর রহমান।
কর্মশালায় বক্তব্য দেন উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা গোলাম ফারুক হোসেন, উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা জাহেদুর রহমান, উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মাহবুবুল আলম, উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা পরিতোষ কুমার মন্ডল, বিআরডিবি কর্মকর্তা আফজাল হোসেন, কুসুম্বা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নওফেল আলী মন্ডল, উপসহকারী কর্মকর্তা হাফিজুর রহমান, সিসিডিবির বায়োচার প্রজেক্টের প্রজেক্ট ম্যানেজার কৃষ্ণ কুমার সিংহ, মনিটরিং এ্যাসোসিয়েট এ্যাডলিনা রিচেল বৈদ্য প্রমুখ। এতে সঞ্চালকের দায়িত্ব পালন করেন সিসিডিবি’র কেন্দ্রীয় অফিসের সমন্বয়কারী সমীরন বিশ্বাস।
কর্মশালা ‘আখা’ ব্যবহারকারী ২০ জন নারী, বায়োচার ব্যবহারকারী ২০ জন কৃষকসহ শিক্ষক ও স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীরা অংশগ্রহণ করেন।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানায়, আন্তর্জাতিক দাতাসংস্থা ICCO Ges Kerk in actie এর আর্থিক সহায়তায় ও সিসিডিবির বাস্তবায়নে মান্দা উপজেলায় ১২৪টি পরিবার আখা কৃষি বান্ধব চুলা ব্যবহার করছে। উপজেলায় প্রায় ২ হাজার গৃহিণীসহ কৃষক-কৃষানীকে ‘আখা’ ও বায়োচার সম্পর্কে সচেতন করা হয়েছে। এ পর্যন্ত ২৫১ জন গৃহিনীকে আখা ব্যবহারের ওপর ও উপজেলা কৃষি অফিসের সহায়তায় ২৬৩ জন কৃষক-কৃষানীকে বসতভিটায় সবজি চাষের ওপর এবং ১৬০ জন কৃষককে বায়োচার ব্যবহার করে জৈব পদ্ধতিতে চাষাবাদের ওপর প্রশিক্ষন প্রদান করা হয়েছে।
সূত্রটি আরো জানায়, বায়োচার হচ্ছে ‘আখা’য় উৎপাদিত এক ধরনের কয়লা। বায়োচার ব্যবহার করলে মাটির জৈব উপাদান বৃদ্ধি পায়, লবনাক্ততা হ্রাস করে, পানি ধারণ ক্ষমতা বাড়ে, সারের কার্যকারিতা বাড়িয়ে দেয়, পুষ্টি উপাদান ধরে রাখে, মাটিতে অবস্থানকারী অনুজীবের সংখ্যা বৃদ্ধি পায়। জলবায়ু পরিবর্তনের প্রেক্ষাপটে বায়োচার একটি উত্তম অনুষঙ্গ।

SHARE