যেকোন সময় আন্দোলনের ঘন্টা বেজে উঠবে : মিনু

261

স্টাফ রিপোর্টার : বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনু বলেছেন, ‘‘নির্যাতন ও জেল-জুলুমকে বিএনপি নেতাকর্মীরা আর ভয় পায় না। এখন শুধু নেতাকর্মীরা কেন্দ্রের নির্দেশনার অপেক্ষায় রয়েছে। যেকোন সময় দেশে আন্দোলনের ঘন্টা বেজে উঠবে। তখন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা পালিয়ে বাঁচতে পারবে না।’’

শনিবার রাজশাহীতে ছাত্রদলের বিক্ষোভ সমাবেশে এ সব কথা বলেন মিজানুর রহমান মিনু। ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার মামলায় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ দলের নেতাদের বিরুদ্ধে সাজার প্রতিবাদে এ বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজন করে নগর ও জেলা ছাত্রদল। নগর ছাত্রদরের সভাপতি আসাদুজ্জামামন জনির সভাপতিত্বে নগরীর মালোপাড়া দলীয় কার্যালয়ের সামনে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন মিজানুর রহমান মিনু।

তিনি বলেন, ‘‘দেশে এখন কোন গণতন্ত্র নাই। রক্ত দিয়ে হলেও এদেশের মানুষের ভোট ও অধিকার ফিরিয়ে আনতে প্রয়োজনে বিএনপির নেতাকর্মীরা রক্ত দিতেও দ্বিধাবোধ করবেনা। বাংলাদেশে আর বিনা ভোটে নির্বাচন করতে দেয়া হবে না। কঠোর আন্দোলনের মাধ্যমে বেগম জিয়াকে মুক্ত করে আওয়ামী লীগ সরকারের পতন ও নির্দলীয় সরকারের অধিনে নির্বাচন দিতে এ সরকারকে বাধ্য করা হবে।’’

মিজানুর রহমান মিনু বলেন, ‘‘আওয়ামী লীগ সরকার দেশের কোন উন্নয়ন করেনি। উন্নয়ন করেছে শুধু ঢাকা, চট্টগ্রাম ও গোপালগঞ্জে। এ সরকার রাজশাহীকে উন্নয়নের ছোঁয়া থেকে বঞ্চিত করেছে। কোন উন্নয়ন নাই বলে এই সরকার কোটি কোটি টাকা খরচ করে উন্নয়ন মেলা করে জনগণকে মিথ্যা তথ্য দিচ্ছে।’’

খালেদা জিয়ার মুক্তি ও তারেক রহমানের বিরুদ্ধে সকল মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে মিনু বলেন, ‘‘তারেক রহমান জনগণের নেতা। এই নেতা দেশের উন্নয়নের কথা ভাবেন। শত নির্যাতন সহ্য করেও তারেক রহমান বাংলার মানুষকে ভুলতে পারেনি। তিনি লন্ডনে চিকিৎসারত অবস্থায় থাকলেও সর্বদা দেশে মানুষের খবর রাখেন। অথচ এই বলিষ্ট নেতৃত্বকে মিথ্যা ও বানোয়াটভাবে গ্রেনেড হামলার মামলায় জড়িয়ে সাজা দেয়া হয়েছে। যা দেশবাসী কখনো মেনে নেবে না।’’

ছাত্রদলের বিক্ষোভ সমাবেশে বিশেষ অতিথি ছিলেন বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির রাজশাহী বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শাহিন শওকত খালেদ। অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, জেলা বিএনপির মতিহার থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হক ডিকেন, মহানগর যুবদলের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ সুইট, রাজশাহী জেলা যুবদলের সভাপতি মোজাদ্দেদ জামানী সুমন, মহানগর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান রিটন, জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক শফিকুল আলম সমাপ্ত, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি জাকির হোসেন রিমন, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক ওয়ালিউজ্জামান পরাগ, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি রেজাউল করিম টুটুল, মহানগর ছাত্র দলের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রবি, জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম জনি, মহানগর ছাত্রদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি মুর্ত্তজা ফামিন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আকবর আলী জ্যাকি, জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আরেফিন কনক ও সাংগঠনিক সম্পাদক ফয়সাল সরকার ডিকো প্রমূখ।

SHARE