প্রধানমন্ত্রীর ১০ বিশেষ উদ্যোগ প্রচারের আহ্বান ডিসির

256

স্টাফ রিপোর্টার : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ১০টি বিশেষ উদ্যোগ বেশি করে প্রচারের আহ্বান জানিয়েছেন রাজশাহীর জেলা প্রশাসক (ডিসি) এস এম আব্দুল কাদের। বিষয়টি নিয়ে গতকাল মঙ্গলবার সকালে রাজশাহী বিভাগীয় শহরের সার্কিট হাউসের সম্মেলন কক্ষে তথ্য অধিদফতর, ঢাকার উদ্যোগে এবং আঞ্চলিক তথ্য অফিস, রাজশাহীর সহযোগিতায় স্থানীয় সাংবাদিক এবং অংশীজনদের সাথে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ আহ্বান জানান। জেলা প্রশাসক বলেন, প্রধানমন্ত্রীর ১০টি উদ্যোগকে মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে হবে। উন্নয়ন বিষয়ে জনগণকে অবহিত করার ক্ষেত্রে গণমাধ্যমের ভূমিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এক্ষেত্রে তিনি স্থানীয় গণমাধ্যমের আন্তরিক সহায়তা কামনা করেন। তিনি বলেন, এ সরকারের শাসনামলে দেশের আমূল পরিবর্তন হয়েছে। ডিজিটালাইজেশনের ফলে গ্রামের মানুষ সঠিকভাবে সেবা পাচ্ছে। শিক্ষা ক্ষেত্রে আশানুরূপ পরিবর্তন হয়েছে। আব্দুল কাদের বলেন, উন্নয়নের ক্ষেত্রে দুর্নীতি একটি বড় বাধা। তবে চাকরিসহ সব ক্ষেত্রে ডিজিটালাইজেশনের মাধ্যমে এ দুর্নীতি কমিয়ে আনা সম্ভব। প্রত্যেক নাগরিকের একটি মাত্র ব্যাংক অ্যাকাউন্ট মোবাইলে ব্যবহারের মাধ্যমে দুর্নীতি কমিয়ে আনা যেতে পারে বলে তিনি মত প্রকাশ করেন। সভায় ‘আমার বাড়ি আমার খামার’ প্রকল্পের আওতায় রাজশাহী জেলায় দেড় হাজারেরও বেশি সমিতি গড়ে উঠেছে। আর এই সমিতিতে মূলধনের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে প্রায় ১০০ কোটি টাকা। এর এক টাকাও ফেরত নেবে না সরকার। সমিতিগুলোর প্রায় ৭৭ হাজার সদস্য এর সুফল ভোগ করবে। প্রধানমন্ত্রীর ১০টি বিশেষ উদ্যোগ বিষয়ে তথ্য অধিদপ্তর আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় এ তথ্য উঠে এসেছে। ‘আমার বাড়ি আমার খামার’ প্রকল্প প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ১০টি বিশেষ উদ্যোগের একটি। সেখানে জানানো হয়, আগের ‘একটি বাড়ি একটি খামার’ প্রকল্পের আওতায় রাজশাহীতে মোট ১ হাজার ৬৩৮টি সমিতি গড়ে উঠেছে। এতে উপকারভোগী সদস্যের সংখ্যা ৭৭ হাজার ২১৭ জন। তাদের এখন মোট মূলধনের পরিমাণ ৯৬ কোটি ৬২ লাখ টাকা। এর মধ্যে শুধু সদস্যদের পুঁজির পরিমাণ ৩৩ কোটি ৮ লাখ টাকা। সরকার সমিতিগুলোতে উৎসাহ বোনাস দিয়েছে ২৬ কোটি ১৫ লাখ টাকা। এছাড়া প্রতিটি সমিতিতে তিন লাখ টাকা করে ঋণ তহবিল দেয়া হয়েছে। এর পরিমাণ ৩৭ কোটি ৩৯ লাখ টাকা। সবমিলিয়ে মূলধনের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৯৬ কোটি ৬২ লাখ টাকা। এই মূলধন থেকে এক টাকাও ফেরত নেবে না সরকার। এই মূলধন থেকে উপকারভোগীরা ৮ শতাংশ সুদে ঋণও নিতে পারবেন। এর মাধ্যমে উপকারভোগীরা বিনিয়োগ করে স্বাবলম্বী হতে পারবেন। সভায় ১০টি উদ্যোগের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সরকারি দফতরের কর্মকর্তারা এসব কর্মকাণ্ডের অগ্রগতি তুলে ধরেন এবং সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন। তথ্য অধিদফতরের উপ-প্রধান তথ্য কর্মকর্তা ওমর ফারুক দেওয়ানের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন- রাজশাহীর পুলিশ সুপার মো. শহিদুল্লাহ ও সিভিল সার্জন ডা. কাজী মিজানুর রহমান। সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ১০টি বিশেষ উদ্যোগ বিষয়ে একটি পাওয়ার পয়েন্ট উপস্থাপনা পেশ করেন আঞ্চলিক তথ্য অফিস, রাজশাহীর উপপ্রধান তথ্য অফিসার মোহাম্মদ আফরাজুর রহমান। সিনিয়র তথ্য অফিসার ফারুক মো: আব্দুল মুনিম স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন । অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন তথ্য অফিসার মো. সামিউল আলম। মতবিনিময় সভায় রাজশাহীর বিভিন্ন দৈনিক পত্রিকার সাম্পাদকসহ প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার ৬০ জন সাংবাদিক অংশগ্রহণ করেন।

SHARE