নগরীতে দীর্ঘ প্রত্যাশার বৃষ্টি, জনজীবনে স্বস্তি

133

স্টাফ রিপোর্টার : ঘরে-বাইরে সর্বত্র আগুনের উত্তাপ ছিলো। কোথাও এতটুকু স্বস্তি ছিলো না, আগুন গরমে হাঁসফাঁস ধরে গিয়েছিলো প্রাণ-প্রকৃতির। গত কয়েকদিন ধরেই তীব্র তাপদাহে জনজীবন প্রায় বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছিলো। বৃষ্টির জন্য পদ্মাপাড়ের মানুষের মধ্যে পড়ে গিয়েছিলো হাহাকার। সেই দীর্ঘ প্রত্যাশায় আশার প্রদীপ হয়ে দেখা দিলো স্বস্তির বৃষ্টি। বৃষ্টির স্থায়িত্ব অল্প সময়ের জন্য হলেও এ বৃষ্টিতে নগরজীবনে নেমে এসেছে সীমাহীন আনন্দ। তবে ঘূর্ণিঝড় ফণীতে যে ঝড়ের দেখা পাওয়া যায়নি তাই দেখা দিলো গতকাল বৃষ্টির সাথে কালবৈশাখী রূপে!
আবহাওয়া অফিস জানায়, গতকাল সোমবার রাজশাহীতে রাত ৮:১৪ মিনিট থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত মোট বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে ১০ দশমিক ৪ মিলিমিটার। এরপর টিপ টিপ করে বৃষ্টিপাত হয়েছে। যা খুবই সামান্য। তবে বৃষ্টির আগে ঝড়ের যে গতিবেগ ছিলো তা ঘূর্ণিঝড় ফণীর সময়েও দেখা যায়নি। যা গতকাল কালবৈশাখী রূপে দেখা দিলো। গতকাল বৃষ্টির আগে ঝড়ের গতিবেগ ছিলো ঘণ্টায় ৪৫ থেকে ৫০ কিলোমিটার। যা তিনমিনিট স্থায়ী ছিলো। এছাড়া তাপমাত্রাও তিন ডিগ্রি কমে এসে দাঁড়িয়েছে ৩৬ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। অথচ গত কয়েকদিন ধরেই তাপমাত্রা ৩৯ ডিগ্রি সেলসিয়াসের কোঠায় উঠানামা করছিলো।
রাজশাহী আবহাওয়া অফিসের জ্যৈষ্ঠ পর্যবেক্ষক শহিদুল ইসলাম জানান, ক্রমান্বয়ে তাপমাত্রা কমে আবহাওয়া সহনীয় পর্যায়ে চলে আসবে। তবে এ সময় বৃষ্টির সাথে সাথে ঝড়ও দেখা দিবে।
এদিকে স্বস্তির বৃষ্টিতে আনন্দ প্রকাশ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে স্ট্যটাটাস দিচ্ছেন নগরবাসী। বিভিন্ন ব্যক্তিকে স্বস্তি ও আনন্দ প্রকাশ করে তাদের অভিব্যক্তি প্রকাশ করছেন।

SHARE