বাহারি ইফতার আয়োজনে রাজশাহীর হোটেল-রেস্টুরেন্টগুলো

385

স্টাফ রিপোর্টার : পবিত্র মাহে রমজান মাস ঘিরে রাজশাহীর ইফতার আয়োজন চলছে সর্বত্রই। ইফতার আয়োজনের কমতি নেই পুটপাত থেকে অভিজাত হোটেল-রেস্টুরেন্টগুলোতে। ভিন্ন ভিন্ন স্বাদের খাবার নিয়ে বিশেষ প্যাকেজ তৈরি করেছে তারা। পাশাপাশি ইফতার পার্টির জন্য বিভিন্ন হল ভাড়ায়ও প্যাকেজ ঘোষণা করেছে কেউ কেউ। অভিজাত হোটেলের সীমানার মধ্যে কেউ কেউ করেছেন ইফতার মেলা ও ইফতার বাজার। এবার রাজশাহী সিটি করপোরেশন ফুটপাতে ইফতার সামগ্রী নিয়ে সকাল থেকে রাত পর্যন্ত বসতে দেওয়ায় ফুটপাতসহ এসব হোটেল, রেস্তোরাঁ ও ইফতার মেলায় ভিড় করছেন সব শ্রেণীর মানুষ। বুধবার সরেজমিনে শহরের অভিজাত হোটেল ও ফুটপাত ঘুর ঘুরে এমন দৃশ্য দেখা গেছে। মৌসুমি ব্যবসায়ীদের রমজানে ফুটপাতে বসতে পারায় দাম কিছুটা সাধারণ ক্রেতাদের নাগালে থাকলেও অভিযাত হোটেল-রেস্টুরেন্টগুলোতে কিছুটা বেশি দামে দিয়েই ইফতারি কিনতে হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন ত্রেতারা। লক্ষিপুরের বাসিন্দা বাবু এসেছেন ইফতারি কিনতে। তিনি বলেন, হোটেল-রেস্টুরেন্টগুলোতে এবার ইফতার সামগ্রীর দাম কম নেওয়া উচিত। ফুটপাতে বিক্রেতাদর থেকে কিছুটা স্বাস্থসম্মত বলেই তো ক্রেতা বেড়েছে। তাতে তো একটু দাম কমাতে পারতো। কিন্তু তা না করে আরো বেশি দাম নিচ্ছে। রোজার মাসে ইফতার এর স্বাদ গ্রহণ করাতে বিভিন্ন ধরণের ব্যবস্থা নিয়েছেন নিউ ফ্রেন্ডস ফুড। ফ্রাইড রাইস, চিকেন ওয়েজেস, চিকেন ললিপপ, চিকেন পপ কর্ন, স্মোকড স্যান্ডুইচ, ছোলা, খেজুর, শসা। এ প্যাকেজ এর দাম-১৯০ টাকা। হোটেল রেড চিলি এবার ইফতারি করার জন্য ২টি প্যাকেট নিয়ে এসেছে। এ সব প্যাকেজে যা থাকছে বার বি কিউ রাইস, তান্দুরি চিকেন, শামি কাবাব, আলুর চপ, বেগুনী , জিলাপি, ছোলা, খেজুর, ৫০০ মি.লি.পানি ও সালাদ এর দাম ধরা হয়েছে ১৭০ টাকা। এছাড়াও বিফ তেহরি, শামি কাবাব, আলুর চপ, বেগুনী , জিলাপি, ছোলা, খেজুর, ৫০০ মি.লি.পানি ও সালাদ এর দাম ১৫০ টাকা। এখান থেকে আবার ক্রেতা চাইলে হোম ডেলিভারি জন্য অর্ডার করতে পারেন। অনুরূপভাবে অভিজাত হোটেল বিভন্ন রকমারি ইফতারির আয়োজন করা হয়েছে। খুচরা ইফতার সামগ্রী কেনার পাশাপাশি প্যাকেজ ও ইফতার পার্টির ব্যবস্থা রয়েছে এসব হোটেল গুলো। রেস্টুরেন্টেও স্পেশাল ইফতারের আয়োজন করা হয়েছে। এখানের রেডি প্লেটের ইফতারির চাহিদা বেশি। রাজশাহী ফ্লেবার্স এর ম্যনেজার মেসবা জানান, তাদের এবারও ৩ টা মেনু রাখা হয়েছে। তবে দাম আগের মতই রাখা হয়েছে। রাজশাহীতে রেস্টুরেন্ট এর সংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি হয়েছে বলেই তাদের ব্যবস্যা চাহিদা আনুযায়ী হচ্ছে না। এদিকে কমতি নেই ফটপাতেও নানা বর্ণের নানা ধরণের খাবার নিয়ে হাজির হয়েছেন এসব ব্যবসায়ীরাও। শরবত, হালিম, ঘোল, মাঠা ইত্যাদির চাহিদা বেশী বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা।

SHARE