‘ফণী’: রাজশাহীর মসজিদে মসজিদে দোয়া

157

স্টাফ রিপোর্টার : প্রলয়ঙ্কারী ঘূর্ণিঝড় ফণীর প্রভা থেকে দেশ ও দেশের মানুষের জানমালের হেফাজতের জন্য মসজিদে মসজিদে দোয়া অনুষ্ঠিত হয়েছে।

জুমার দুই রাকাত নামাজ আদায়ের পর দু’হাত তুলে মহান আল্লাহর কাছে দোয়া করেন ধর্মপ্রাণ মানুষেরা। এ সময় ঘূর্ণিঝড় ফণীর কবল থেকে রাজশাহী ও গোটা উত্তরাঞ্চলসহ দেশের সমুদ্র সৈকত উপকূল, নদীবন্দর ও স্থলভাগ সুরক্ষিত রাখার জন্য আল্লাহর দরবারে ফরিয়াদ জানান ইমাম-মুসল্লিরা।

এদিকে ঘূর্ণিঝড় ফণীর প্রভাবে শুক্রবার জুমার নামাজের পর থেকে আকাশে কালো মেঘ জমেছে। দুপুর পৌনে দুইটা থেকে রাজশাহী মহানগরী ও এর আশপাশের এলাকায় গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি শুরু হয়েছে সঙ্গে বয়ে যাচ্ছে ঝড়ো হাওয়া। এছাড়া সকাল ১০টার পরও এক পশলা বৃষ্টি হয়েছে। ওই সময় ১৫ মিনিটে ০ দশমিক ৬ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করেছে রাজশাহী আবহাওয়া কার্যালয়।

এর আগে বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশবাসীর প্রতি এ আহ্বান জানান। তার এ আহ্বানের কথা জানিয়েছিলেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান।

ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’ ইতোমধ্যে ভারতের উড়িষ্যা উপকূলে আঘাত হেনেছে। সেখানে এটা ২১০ কিলোমিটার বাতাসের গতি নিয়ে আঘাত হানে।

সন্ধ্যায় খুলনা উপকূলে আঘাত হানার পর রাজশাহী ও রংপুর হয়ে বাংলাদেশ অতিক্রম করতে পারে ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’। অতিক্রম করার সময় এর বাতাসের গতি হতে পারে ৮০ থেকে ১০০ কিলোমিটার। তবে এ গতিও আশঙ্কাজনক। এজন্য সবাইকে নিরাপদে থাকতে হবে। ভারতের আবহাওয়া অধিদফতরের পক্ষ থেকে শুরুতে বলা হয়েছিল শুক্রবার বিকেল ৩টার দিকে বঙ্গোপসাগর থেকে স্থলভূমিতে ঢুকবে ঘূর্ণিঝড়। কিন্তু তার আগে শুক্রবার সকালেই উড়িষ্যায় আঘাত হানে ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’। উড়িষ্যা উপকূল হয়ে ‘ফণী’ এখনও তীব্র শক্তিতে সামনে এগোচ্ছে।

SHARE