বাঘায় বাস উল্টে দুই নারীসহ নিহত ৩ : আহত ২০

164

আসলাম আলী বাঘা: রাজশাহীর বাঘা উপজেলায় বাস উল্টে দুই নারীসহ তিনজন নিহত  ও ২০ জন আহত হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল ৬টার দিকে বাঘা-রাজশাহী সড়কের মীরগঞ্জ ভানুকর এলাকায় এ দূর্ঘটনা ঘটে। এতে ঘটনাস্থলে ৩ জন নিহত ও ২০ আহত হয়েছে।

জানা যায়, বাঘা থেকে রাজশাহীগামী রজনীগন্ধা- (নম্বর সিরাজগঞ্জ-ব-০৫) নামের যাত্রীবাহী বাস মীরগঞ্জ ভানুকর এলাকায় ভটভটিকে অভারটেক করার সময় নিয়ন্ত্রন হারিয়ে খাদে পড়ে যায়। এতে ঘটনা স্থলে তিনজন নিহত হন। নিহতরা হলেন,বাঘা উপজেলার ছাতারী গ্রামের সমসের আলীর ছেলে আবু হানিফ (২৩), মনিগ্রাম বান্দাবটতলা এলাকার মুনছার আলীর স্ত্রী মনোয়ারা বেগম (৪৫), হরিরামপুর দাঁড়পাড়া গ্রামের নিয়াত আলীর স্ত্রী বাদলা বেগম (৫২)। নিহতরা সবাই রজনীগন্ধা বাসের যাত্রী ছিলেন। আহতরা হলেন ছাতারী গ্রামের সজল আলী, নারায়নপুর গ্রামের কার্তিক হালদার, চকনারায়নপুরের প্রশান্ত কুমার, চকছাতারীর শরিফুল ইসলাম, জিল্লুর রহমান, হেলালপুর এলাকার লালন উদ্দিন, লালপুর ঘোষপাড়া গ্রামের মোয়াজ্জেম হোসেন । এদের বাঘা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এছাড়া অন্যান্য ১৫ জনকে চারঘাট ও রাজশাহী মেডিকেলে ভর্তি করা হয়েছে। বাসের চালক নুরুল হক বর্তমানে পলাতক রয়েছে। তার বাড়ী বাঘা বাস স্ট্যান্ড এলাকায়।

বাসের যাত্রী সুলতানপুর এলাকার ফিরোজা খাতুন বলেন, ভটভটিকে অভারটেক করার সময় ঘটনাটি ঘটে। তবে অল্পের জন্য আমি বেচে গেলেও আমার হাতে ও মাজায় গুরতর চোট পেয়েছি।

মীরগঞ্জ ভানুকর এলাকার প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বাস একটি ভটভটিকে অভারটেক করতে গিয়ে নিয়ন্ত্রন হারিয়ে এ দূর্ঘটনাটি ঘটে।বাঘা বাস স্ট্যান্ডের বাস মাস্টার আবদুল হক বলেন, বাসটি ৩৫ জন যাত্রী নিয়ে সকাল ৫টা ৪৫ মিটিটে বাঘা বাসস্ট্যান্ড থেকে রাজশাহীর উদ্দেশ্যে রওনা হয়। সকাল ৬টার দিকে মনিগ্রম ইউনিয়নের মীরগঞ্জ মোড়ের ভানুকর এলাকায় ভটভটিকে অভারটেক করার সময় নিয়ন্ত্রন হারিয়ে খাদে পড়ে গেলে তিনজন নিহত হয় ও ২০জন আহত হয়।

বাঘা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মহসীন আলী ঘটনাটি নিশ্চিত করে বলেন, ঘনটাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে পরিবারের কাছে দেয়া হয়েছে। আহতদের চিকিৎসার জন্য বিভিন্ন হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।
বাঘা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহিন রেজা বলেন, দূর্ঘটনার খবর জানার পর ঘটনাস্থলে পরিদর্শন করি এবং জেলা প্রশাসেকের নির্দেশে নিহতদের প্রত্যেক পরিবারকে ২০ হাজার টাকা করে দেয়া হয়েছে।

SHARE