হিজড়ারা এ বছরই জাতীয় পরিচয়পত্র পাবে : ইসি সচিব

173

স্টাফ রিপোটার : এ বছরই ‘তৃতীয় লিঙ্গ’ হিসেবে হিজড়াদের জাতীয় পরিচয়পত্র দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিবালয়ের সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ। তিনি বলেছেন, হিজড়াদের জন্য আলাদা ভোটার তালিকা করা হবে। এরপরই তাদের তৃতীয় লিঙ্গ হিসেবে জাতীয় পরিচয়পত্র দেয়া হবে। গতকাল মঙ্গলবার সকালে রাজশাহী অঞ্চলের ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ইসি সচিবালয়ের সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ এ কথা বলেন। রাজশাহী কলেজ মিলনায়তনে আঞ্চলিক নির্বাচন অফিস এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। ইসি সচিব বলেন, সবাই জাতীয় পরিচয়পত্রের আওতায় এলে দেশে দুর্নীতি ও অপরাধ কমে আসবে। তিনি বলেন, এখন দেশের ১০০টির মতো প্রতিষ্ঠান থেকে সেবা নিতে জাতীয় পরিচয়পত্র লাগছে। আগামীতে এর আওতা আরও বৃদ্ধি পাবে। জাতীয় পরিচয়পত্রের সঙ্গে শুধু ভোট প্রদানের বিষয়টি জড়িত নয়। নাগরিক নানা সেবা এবং সুযোগ-সুবিধাও জড়িত। তাই জাতীয় পরিচয়পত্র সবার প্রয়োজন। হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, ২০০৮ সালের আগে দেশে ত্রুটিপূর্ণ ভোটার তালিকা ছিল। ২০০৬ সালে দেশে প্রায় এক কোটি ৩০ লাখ ভুয়া ভোটার ছিল। এক রিট পিটিশনের প্রেক্ষিতে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে তালিকা সংশোধন করা হয়। ভোটার তালিকা সংশোধনের পর ২০০৮ সালে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। বিভাগীয় কমিশনার নূর-উর-রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক এসএম আবদুল কাদের, রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শাওগাতুল আলম, রাজশাহী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর হবিবুর রহমান ও আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা ফরিদুল ইসলাম। বক্তব্য শেষে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন ইসি সচিব। অনুষ্ঠানে রাজশাহী আঞ্চালিক নির্বাচন কর্মকর্তা ফরিদুল ইসলাম জানান, আজ থেকে ভোটার তালিকা হালনাগাদকরণ কর্মসূচি শুরু হলো। প্রথম ধাপে রাজশাহী সিটি করপোরেশন (রাসিক) এলাকায় তথ্য সংগ্রহের কাজ শুরু হয়েছে। এটি আগামী ১৩ মে পর্যন্ত চলবে। এরপর উপজেলা পর্যায়ে তথ্য সংগ্রহের কাজ শুরু হবে। তথ্য সংগ্রহের কাজে ১৯৩ জন সুপারভাইজার কাজ করবেন। রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার নূর-উর-রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন- রাজশাহী রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি নিশারুল আরিফ, রাজশাহী মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার সুজায়েতুল ইসলাম, আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা ফরিদুল ইসলাম, জেলা সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম ও রাজশাহী কলেজের অধ্যক্ষ মুহা. হবিবুর রহমান।

SHARE