জনগণের সেবা যেন সত্যিকার মানুষের কাছে পৌঁছায় : পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী

220

স্টাফ রিপোর্টার : পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম বলেছেন, জনগণের সেবা যেন সত্যিকার মানুষের কাছে পৌঁছায়। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জনগণের জন্য যে বরাদ্দ প্রদান করেন তা তাদের মাঝেই তিল তিল করে পৌঁছাতে হবে । এ অর্থ অন্য কারো ভোগ করার ক্ষমতা নেই। প্রতিমন্ত্রী গতকাল শনিবার রাজশাহী শিল্পকলা একাডেমিতে বিভাগীয় কমিশনারের উদ্যোগে আয়োজিত নবনির্বাচিত উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানগণের শপথ বাক্য গ্রহণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতাকালে একথা বলেন। উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানগণের শপথ বাক্য পাঠ করান রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার মো: নূর উর রহমান । জেলাা প্রশাসক এসএম আব্দুল কাদের এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে ওমর ফারুক চৌধুরী এমপি, মো: আয়েন উদ্দিন এমপি ও আবিদা আনজুম মিতা মহিলা এমপি, আওয়ামী লীগের প্রবীণ নেতা নুরুল ইসলাম ঠান্ডু, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান, রাজশাহী রেঞ্জের ডিআইজি একেএম হাফিজ আক্তার বিপিএম (বার), পুলিশ সুপার শহীদুল্পাহ বক্তৃতা করেন। প্রতিমন্ত্রী বলেন, আজ যারা শপথ বাক্য পাঠ করেছেন তাঁদেরকে মাদকমুক্ত, সন্ত্রাসমুক্ত ও দুর্নীতিমুক্ত আদর্শ উপজেলা হিসেবে গড়ে তোলা এবং প্রতিটি গ্রামকে শহরে পরিণত করার প্রত্যয় নিয়ে কাজ করতে হবে। দুর্নীতি করার এখন আর কোন সুযোগ নেই। তিনি বলেন, হাসপাতালে ডাক্তারের উপস্থিতিসহ প্রতিটি দপ্তরে সকল পর্যায়ের কর্মকর্তা ও কর্মচারীকে নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করতে হবে। এব্যাপারে তদারকির জন্য শিগগিরই মনিটরিং কমিটি গঠন করা হবে। প্রতিমন্ত্রী সরকারের দায়িত্বশীল মন্ত্রী হিসেবে রাজশাহীতে সর্বোচ্চ বরাদ্দ প্রদানের আশাবাদ ব্যক্ত করেন। অনুষ্ঠানে শপথ পাঠকারীগণ জনগনের মাঝে সেবার গতিশীলতা বৃদ্ধিসহ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুখী-সমৃদ্ধ এবং ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার যে প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন তা প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে কাজ করার অনুভূতি ব্যক্ত করেন। উল্লেখ্য, পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের প্রথম ধাপে রাজশাহীর ৮ উপজেলায় গত ১০ মার্চ ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে এবার মোট ২৭টি উপজেলায় ভোটগ্রহণ করা হয়। এতে ২৭ জন উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। বিভাগের ৮ জেলার মধ্যে রাজশাহীর গোদাগাড়ী থেকে নির্বাচিত চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম, তানোরে লুৎফর হায়দার রশীদ ময়না, পুঠিয়ায় জিএম হিরা বাচ্চু, বাগমারায় অনিল কুমার সরকার, দুর্গাপুরে নজরুল ইসলাম, চারঘাটে ফকরুল ইসলাম, বাঘায় লায়েব উদ্দিন লাভলু ও মোহনপুরে আবদুস সালাম, জয়পুরহাটে ৫ জন, সিরাজগঞ্জে ৮ জন ও নাটোরে ৬ জন মিলে ২৭ জন চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। রাজশাহীর ৯ উপজেলার মধ্যে- মোহনপুর, তানোর, দুর্গাপুর, গোদাগাড়ী, বাঘা, পুঠিয়া, চারঘাট ও বাগমারায় উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সীমানা জটিলতায় রাজশাহীর পবা উপজেলার ভোটগ্রহণ স্থগিত করেন উচ্চ আদালত। এদিকে, গতকাল শনিবার সকালে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী ‘চারঘাট গণহত্যা’ বিষয়ে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

SHARE