রাজশাহীতে পুলিশ কনস্টেবলের ওপর রেলকর্মীর হামলার অভিযোগ

191

স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহী রেলস্টেশনে ট্রেনের জন্য অপেক্ষার সময় রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর এক সদস্য ও এক টিকিট কালেক্টরের যৌথ হামলায় এক পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। স্বামীকে রক্ষা করতে গিয়ে এ দুই রেলকর্মীর হাতে লাঞ্ছিত হয়েছেন পুলিশ সদস্যের স্ত্রীও। এ নিয়ে পুলিশের সঙ্গে রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনী ও অন্য কর্মীদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। পুলিশ সদর দফতরে কর্মরত পুলিশ কনস্টেবল শামীম আলী এ বিষয়ে রাজশাহী রেলওয়ে জিআরপি থানায় একটি অভিযোগ দিয়েছেন।

রাজশাহী জিআরপি থানা ঘটনাটির তদন্ত শুরু করেছেন। এদিকে ঘটনার পর আত্মগোপন করেছেন রেলওয়ের অভিযুক্ত দুই কর্মী।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, পুলিশ সদর দফতরে কর্মরত পুলিশ কনস্টেবল শামীম আলী (কনস্টেবল নং-৪৩৮৪) স্ত্রীকে নিয়ে তাদের খুলনা যাওয়ার উদ্দেশে রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনের এক নম্বর প্ল্যাটফর্মের মসজিদের কাছাকাছি এলাকায় অবস্থান করছিলেন।

রোববার সকাল ১০টার দিকে রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য শাহীন আলী ও ট্রেন টিকিট কালেক্টর (টিটিসি) মারুফ হোসেন ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ কনস্টেবল শামীম আলীর টিকিট আছে কিনা দেখতে চান।

ওই সময় পুলিশ কনস্টেবল শামীম আলী রাজশাহী থেকে খুলনাগামী রোববার দুপুর সোয়া ২টার কপোতাক্ষ আন্তঃনগর এক্সপ্রেস ট্রেনের অগ্রিম করা টিকিট তাদের দেখান। এর পরও দুই রেলকর্মী পুলিশ কনস্টেবল শামীম আলীসহ তার স্ত্রীকে স্টেশন থেকে বের হয়ে চলে যেতে বলেন। এ নিয়ে আপত্তি করলে দুই রেলকর্মীর সঙ্গে পুলিশ কনস্টেবল শামীমের কথা কাটাকাটি শুরু হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা এ সময় রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য শাহীন ও টিটিসি মারুফ পুলিশ কনস্টেবল শামীম ও তার স্ত্রীর ওপর চড়াও হয়ে তাদের টেনেহিঁচড়ে স্টেশনের টিটিসি অফিসে নিয়ে যায়। তারা শামীমকে বেধড়ক মারপিট শুরু করেন।

এদিকে স্বামীকে হামলাকারীদের হাত থেকে রক্ষা করতে স্ত্রী এগিয়ে গেলে তাকেও শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করা হয়।

এদিকে এ নিয়ে হট্টগোল শুরু হলে রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনমাস্টার জাহিদুল ইসলাম গিয়ে পুলিশ কনস্টেবল শামীম ও তার স্ত্রীকে উদ্ধার করে নিরাপদ স্থানে নিয়ে যান। পরে রাজশাহী জিআরপি থানার ওসি সাঈদ ইকবাল ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ কনস্টেবল শামীম ও তার স্ত্রীকে থানায় নিয়ে যান। কনস্টেবল শামীম আলী অভিযোগে বলেন, তিনি স্ত্রীসহ রোববার দুপুর সোয়া ২টার কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনে খুলনা যাওয়ার জন্য গত ৪ এপ্রিল অগ্রিম টিকিট সংগ্রহ করেন। তিনি স্টেশন প্ল্যাটফর্মে ট্রেনের জন্য অপেক্ষা করছিলেন।

তার ট্রেন নং-৭১৬, টিকিট নং-আরজেএইচ/০২৫৪৩০৬০৬ ও বগি নং-ঞ- এবং আসন নং-১১ থেকে ১৩। তিনি স্ত্রীকে নিয়ে ট্রেনের অপেক্ষা করার সময় দুই রেলকর্মী তার কাছে এসে প্রথমে টিকিট দেখতে চান। তাদের টিকিট দেখানো হলে তারা কোনো কারণ ছাড়াই স্টেশন থেকে বের হয়ে যেতে বলেন। এতে তিনি আপত্তি করলে তাকে টিটিসি অফিসে নিয়ে গিয়ে মারধর করা হয়। তার স্ত্রীকেও লাঞ্ছিত করা হয়।

তিনি রেলপুলিশের সহায়তায় রক্ষা পেয়েছেন। মারধরের সময় দুই রেলকর্মী তার কাছে থাকা ২৬ হাজার ৫০০ টাকাও কেড়ে নিয়ে পালিয়েছে। এদিকে স্টেশন চত্বরে পুলিশকর্মীর আক্রান্ত হওয়ার খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে যান আরএমপির টার্মিনাল ফাঁড়ির ইনচার্জ টিআই নাসির উদ্দিন।

তিনি স্টেশনমাস্টারের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে দুই রেলকর্মীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান।

অন্যদিকে ঘটনা সম্পর্কে জানতে চাইলে রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনমাস্টার জাহিদুল ইসলাম জানান, ঘটনাটি দুঃখজনক। ঘটনার সময় তিনি অফিসে ছিলেন। হট্টগোল শুনে টিটিসি অফিসে ছুটে গিয়ে পুলিশ কনস্টেবল শামীম ও তার স্ত্রীকে উদ্ধার করেন।

এদিকে রাজশাহী জিআরপি থানার ওসি সাঈদ ইকবাল জানান, তিনি আক্রান্ত পুলিশ কনস্টেবল শামীম আলীর অভিযোগ পেয়েছেন। তদন্ত শুরু করেছেন। দ্রুত আইনি পদক্ষেপ নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

এদিকে পুলিশের ওপর হামলাকারী দুই রেলকর্মীকে ঘটনার পর স্টেশন চত্বরে আর দেখা যায়নি। তারা ঘটনার পর পালিয়েছে বলে তাদের সহকর্মীরা জানিয়েছেন। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত পুলিশ কনস্টেবলল শামীম আলী দুপুর সোয়া ২টায় কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনে রাজশাহী থেকে খুলনার উদ্দেশে রওনা দিয়েছেন। কর্মস্থলে ফিরে তিনি লিখিত অভিযোগ দেবেন বলে জানান।

SHARE