নগরীতে ১৪ দলের জনসভা রুপ নেয় ‘জনসমুদ্রে’

188

স্টাফ রিপোর্টার : গতকাল মঙ্গলবার নগরীতে অনুষ্ঠিত হয় ১৪ দলীয় জোটের ‘জনসভা’। কিন্তু পরিণত হলো ‘জনসমুদ্র’। লোকে লোকারণ্য রাজশাহী মহানগরীর সাহেববাজার, জিরোপয়েন্ট, মনিচত্বর আর গণকপাড়া। রাজশাহী ১৪ দলের এই বিশাল জনসভা থেকে দলের নেতারা অঙ্গীকার করলেন, নিজেদের ঐক্য ধরে রাখার।
তারা বললেন, দেশের উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিকল্প নেই। আর তাই ১৪ দলের ঐক্য ধরে রাখারও কোনো বিকল্প নেই। সবাই মিলে ঐক্যবদ্ধভাবে আগামীর নির্বাচনি বৈতরণী পার হতে হবে। নিশ্চিত করতে হবে নৌকার প্রার্থীদের বিজয়। তাহলেই এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ।
মঙ্গলবার বিকালে সাহেববাজারে এই জনসভার আয়োজন করা হয়। কিন্তু দুপুর থেকেই নেতাকর্মীদের ভিড়ে তিল ধারণের ঠাই হারায় পুরো এলাকা। একে একে বক্তব্য দিতে থাকেন ১৪ দলের কেন্দ্রীয় এবং স্থানীয় নেতারা। সন্ধ্যার আগে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য শুরু করেন ১৪ দলের কেন্দ্রীয় সমন্বয়ক মোহাম্মদ নাসিম।
তিনি বলেন, সামনে নির্বাচন; তাই আবার চক্রান্ত শুরু হয়েছে। বিএনপি ভোট ছাড়ায় ক্ষমতায় যেতে চায়। এ জন্য তারা নির্বাচন বানচালের চক্রান্ত করছে। কিন্তু নির্বাচন হবে, কেউ ঠেকাতে পারবে না। নাসিম বলেন, আমরা বিনা খেলায় গোল দিতে চাই না, মাঠে খেলে গোল দিতে চাই। বিশ্বকাপে মেসি, নেইমার গোল মিস করতে পারে। কিন্তু শেখ হাসিনা গোল মিস করবে না। সংবিধান অনুযায়ী সঠিক সময়েই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে যদি বিএনপি অংশ না নেয়, তাহলে তাদের বাটি চালান দিয়েও খুঁজে পাওয়া যাবে না।
আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, ১০ বছর দল ক্ষমতায় আছে। মন্ত্রী, এমপি, নেতাকর্মীদের ভুল হতে পারে। কিন্তু শেখ হাসিনা কাউকে ক্ষমা করেননি। ভুল করলে শাস্তি হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কোনো ভুল নেই। তাই জনগণ আবার তাকে প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত করবেন। দেশের রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় বসাবেন।
জনসভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক। তিনি বলেন, ১৪ দলের বিরুদ্ধে একটা অপশক্তি কাজ করে। তারা আবার সক্রিয় হওয়ার চেষ্টা করছে। বিভেদ ধরানোর চেষ্টা করছে। এ ব্যাপারে ১৪ দলকে সতর্ক থাকতে হবে।
নানক বলেন, রাজশাহী নৌকার দুর্জয় ঘাঁটিতে পরিণত হয়েছে। তাই রাজশাহীর মানুষ শেখ হাসিনার প্রার্থীকে বিজয়ী করে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখবে। আগামী সংসদ নির্বাচন নিরপেক্ষ এবং সুষ্ঠুভাবেই শেষ করবে নির্বাচন কমিশন। এই নির্বাচন বানচালের চেষ্টা করা হলে ১৪ দল ঐক্যবদ্ধভাবে তা প্রতিহত করবে। এ ব্যাপারে কাউকে কোনো ছাড় দেওয়া হবে না।

SHARE