‘দুর্নীতি প্রতিরোধে সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে’

221

স্টাফ রিপোর্টার : দুর্নীতি বাংলাদেশের একটি প্রধান সমস্যা। তাই দুর্নীতি দমনকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একটি চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছেন। শুধু একা সরকার দুর্নীতিকে রুখতে পারেন না। সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে দুর্নীতিকে প্রতিরোধ করতে হবে। এই সরকার দেশের যে উন্নয়ন করেছেন তা দুর্নীতির কারণে অনেকটা নসাৎ হয়ে যাচ্ছে। কারণ সরকারি কর্মকর্তাদের দুই থেকে তিন শতাংশ মানুষ দুর্নীতির সাথে জড়িত রয়েছে। এই দুর্নীতিবাজদের খোঁজ করার দায়িত্ব সবার। তারা যেন দুর্নীতি করতে না পারে সেই জন্য জনগণ, শিক্ষার্থীসহ সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নিয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে দুর্নীতি প্রতিরোধ করতে হবে।
গতকাল সোমবার সকাল ১০টায় দুর্নীতি দমন কমিশনের রাজশাহী বিভাগীয় কার্যালয়ের আয়োজনে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে বক্তারা এসব কথা বলেন। ‘বন্ধ হলে দুর্নীতি, উন্নয়নে আসবে গতি’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে বাংলাদেশ কর্মচারী কল্যাণ বোর্ড মিলনায়তনে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
জেলা প্রশাসক এসএম আব্দুল কাদেরের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, দুর্নীতি দমন কমিশনের কমিশনার (তদন্ত) এএফএম আমিনুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার রাজশাহী (সার্বিক) আমিনুল ইসলাম, রাজশাহী রেঞ্জের ডিআইজি এম খুরশীদ হোসেন, আরএমপির পুলিশ কমিশনার এ কে এম হাফিজ আক্তার। এ সময় অন্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন, দুদক পরিচালক প্রতিরোধ প্রধান কার্যালয় মনিরুজ্জামান, নাটোর জেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক, সিরাজগঞ্জ সভাপতি রেজাউন কবীর পারভেজ প্রমুখ।
বক্তারা আরো বলেন, আমাদের হটলাইন টেলিফোন নম্বর ১০৬। আমরা প্রতিদিন শত শত অভিযোগ পাচ্ছি। সবাই হটলাইনে তাদের অভিযোগ জানাচ্ছে প্রতিকার চেয়ে। আমরা সেইসব অভিযোগকে লিপিবদ্ধ করে সেসবের বিরুদ্ধে অনুসন্ধান চালিয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার চেষ্টা করছি। এর মাধ্যমে প্রমাণিত হয়, জনগণ আস্থার জায়গা খুঁজে পেয়েছে। সবাই প্রত্যাশা করছে আমাদের পক্ষে দুর্নীতি দূর করা সম্ভব। বর্তমানে জেলা-উপজেলা পর্যায়ের জনগণও আজ দুর্নীতির বিরুদ্ধে সোচ্চার। গ্রাম পর্যায়ে আজ দুনীতি দমন কমিশনের বিষয়ে মানুষ অবগত রয়েছেন।
সারা দেশে স্কুল পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের জানানো হচ্ছে, যেন ছোটবেলা থেকেই নতুন এই প্রজন্ম দুর্নীতির বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়ে উঠে। তাই সমাজের সকল স্তরের মানুষকে দুর্নীতির বিরূদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। দেশের সকল সরকারি বে-সরকারি প্রতিষ্ঠানকে সচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে হবে।
পুরস্কার বিতরণী পর্যায়ে জেলা প্রতিরোধ কমিটির ১১ জন এবং উপজেলা প্রতিরোধ কমিটির সেরা ৯ জনকে ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। জেলা পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ হয়েছে, নাটোর জেলা এবং উপজেলা পর্যায়ে সিরাজগঞ্জ জেলার উল্লাপাড়া প্রথম, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার ভোলাহাট ২য় ও জয়পুরহাট জেলার পাঁচবিবি উপজেলা ৩য় হয়েছে। সকলকে পুরষ্কৃত করা হয়।

SHARE