দূর-দূরান্ত থেকে এসেছেন নেতাকর্মীরা

25

স্টাফ রিপোর্টার: বিএনপির রাজশাহী বিভাগীয় সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে আজ শনিবার। এই সমাবেশে যোগ দিতে রাজশাহী এসে পৌঁছেছেন বিভিন্ন জেলার নেতাকর্মীরা। হযরত শাহমখদুম (র.) কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠে তাবুর নিচে শুয়ে-বসে ও শ্লোগান দিয়ে সময় কাটাচ্ছেন তারা। আজ তারা সমাবেশে দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের বক্তব্য শোনার অপেক্ষায় আছেন।

গতকাল শুক্রবার দুপুরে ঈদগাহ মাঠে গিয়ে দেখা গেছে, সামিয়ানা টানিয়ে পুরো মাঠে নেতাকর্মীদের থাকার জন্য তাবু বানানো হয়েছে। সেখানে শুয়ে-বসে-ঘুমিয়ে সময় কাটাচ্ছেন অনেকে। কেউ কেউ অন্য জেলার নেতাকর্মীদের সঙ্গে গল্প করছেন। কেউ দিচ্ছেন শ্লোগান।

ঈদগাহ মাঠে ঢুকতেই ডানপাশে পুকুরপাড়ে সারি সারি পাতিলে রান্না করতে দেখা যায়। একটা পাতিলে গরুর মাংস ধুয়ে রাখা ছিল। যারা রান্না করছিলেন তারা এসেছেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে। চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোল উপজেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক আজিম উদ্দিন জানান, দুটি গরু জবাই করে তারা মাংস এনেছেন। প্রায় পাঁচ হাজার নেতাকর্মীর জন্য তারা বিরিয়ানি রান্না করছেন।

ঈদগাহ মাঠে প্রতিটি তাবুর পাশেই চুলা বানিয়ে এভাবে রান্না হচ্ছে। নেতাকর্মীদের মাঝে দেখা গেছে উৎসবের আমেজ। এই মাঠে বিনোদনেরও ব্যবস্থা করা হয়েছিল। জেলা যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক রবিউল ইসলাম একটি স্টল করে বিএনপি ও জিয়া পরিবার নিয়ে প্রতিযোগিতা কর্নার করেছেন। সেখানে বিভিন্ন স্থান থেকে আসা নেতাকর্মীরা বক্তব্য দিচ্ছিলেন।

ওদিকে বরগুনা থেকে আসা যুবদল কর্মী আক্কাস আলী দলীয় প্রতীক ধানের শীষ ও শীর্ষ নেতাদের ছবি দিয়ে নিজেকে সাজিয়ে রেখেছিলেন। তার সঙ্গে ছবি তুলতে নেতাকর্মীরা হুমড়ি খেয়ে পড়ছিলেন। আক্কাস সবার সাথেই ছবি তুলছিলেন। মাঠের প্রত্যেক তাবুর নিচে মাঝে মাঝেই চলছিল দলগত শ্লোগান। দুপুরে ঈদগাহ মাঠেই জুমার নামাজ আদায় করেন নেতাকর্মীরা।

শনিবার দুপুর ২টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত রাজশাহীর ঐতিহাসিক মাদ্রাসা ময়দানে (হাজী মুহম্মদ মুহসীন সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ) বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে। ৮টি শর্তে দলটিকে এই সমাবেশ করতে দেওয়ার অনুমতি দিয়েছে পুলিশ।

এই সমাবেশের আগেই বৃহস্পতিবার থেকে বাস ধর্মঘট শুরু হয়েছে রাজশাহী বিভাগে। শুক্রবার থেকে শুরু হয়েছে সিএনজি অটোরিকশা এবং থ্রি হুইলার ধর্মঘটও। বাস ধর্মঘটের কারণে আগেভাগেই এসেছেন রাজশাহীর আট জেলার নেতাকর্মীরা। মাদ্রাসা মাঠে আগেই ঢোকার অনুমতি না থাকায় তারা পাশের ঈদগাহ মাঠে অবস্থান করছেন। শনিবার তারা মাদ্রাসা মাঠে ঢুকবেন।

বিএনপির রাজশাহী বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু বলেন, ‘বিএনপির এই সমাবেশ ঠেকাতে সরকার নানা কৌশল করেছে। পরিবহন ধর্মঘট করেছে। এতোকিছুর পরেও মানুষকে আটকানো যায়নি। হাজার হাজার মানুষ এসেছেন। তিন দিন ধরে তারা তিন ঘণ্টার সমাবেশের জন্য অপেক্ষা করছেন। সমাবেশ ইতোমধ্যে সফল হয়ে গেছে।

SHARE