সবাইকে নিয়ে উন্নত-সমৃদ্ধ নগরী গড়তে চাই : বাদশা

172

স্টাফ রিপোর্টার : আসন্ন নির্বাচনে রাজশাহী-২ (সদর) আসনে ১৪ দল মনোনীত ও মহাজোট সমর্থিত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী ফজলে হোসেন বাদশা বলেছেন, তিনি সব শ্রেণি-পেশার মানুষকে নিয়ে উন্নত-সমৃদ্ধ এক নগরী গড়তে চান। তাই সংসদ সদস্য হিসেবে আরেকবার সুযোগ চান। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মহিষবাথানে এক নির্বাচনি সমাবেশে তিনি একথা বলেন।

স্বনির্ভর মহিলা কো-অপারেটিভ ক্রেডিট ইউনিয়ন লিমিটেড ও মহিষবাথান মহিলা কো-অপারেটিভ ক্রেডিট ইউনিয়ন আদর্শ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে এ সভার আয়োজন করে। সেখানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দিচ্ছিলেন রাজশাহী সদরের টানা দুইবারের সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা।
তিনি বলেন, অনেকেই বলে, নৌকায় ভোট দিলে বস্তি উচ্ছেদ করা হবে। এগুলা মিথ্যাচার। আমরা কখনও বস্তি উচ্ছেদ করিনি। আমাদের সরকার বস্তি উচ্ছেদ করে না। সরকার গরীর মানুষের সরকার। আমিও কোনো বস্তি ভাঙব না। কোনো মানুষকে রাস্তায় ফেলে দিব না। কারণ, এটা পাপ। আমি সেই পাপের দায় নিব না। আমি সবাইকে নিয়ে উন্নত-সমৃদ্ধ রাজশাহী গড়তে চাই।

বাদশা বলেন, আজকে বিএনপি ভোট চাইতে গিয়ে বলছে, তারা নির্বাচিত হতে পারলে তাদের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে জেল থেকে বের করা হবে। তারেক রহমানকে বিদেশ থেকে আনা হবে। তারা জনগণের ভোটের বিনিময়ে তাকে জেল থেকে বের করতে চায়, যিনি এতিমের টাকা চুরির দায়ে জেল খাটছেন। আর একজন দুর্নীতিবাজকে তারা দেশে ফিরিয়ে আনতে চায়। এই সুযোগ তাদের দেয়া যাবে না। তাই নৌকা প্রতীকেই ভোট দিতে হবে।

সমাবেশে বিপুলসংখ্যক নারীরা উপস্থিত ছিলেন। ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, নগরীর নারীরা নৌকায় জাগরণ সৃষ্টি করেছেন। এই সমাবেশ তার প্রমাণ। নারীরা সচেতন হয়েছেন। এটা খুবই ভালো বিষয়। এই সরকার আবার নির্বাচিত হতে পারলে সংসদে নারীদের আসন আরও বৃদ্ধি করবে। নারীরা এমপি হবেন, মন্ত্রী হবেন। তারাও নেতৃত্ব দেবেন।

সমাবেশে বিশেষ অতিথি ছিলেন সাবেক প্রতিমন্ত্রী জিনাতুন নেশা তালুকদার। তিনি বলেন, বিগত ১০ বছরে ফজলে হোসেন বাদশার হাত ধরে রাজশাহীর আকাশ থেকে মাটি পর্যন্ত সব জায়গায় উন্নয়নের ছোঁয়া লেগেছে। তাই এবারও তাকেই নির্বাচিত করতে হবে। বিশেষ অতিথি ছিলেন নগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনের সহধর্মিনী শাহীন আক্তার রেণী। তিনি বলেন, সরকার যে উন্নয়নের ধারা সৃষ্টি করেছে তা ধরে রাখতে নৌকার বিকল্প নেই। আরেক বিশেষ অতিথি সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশার সহধর্মিনী অধ্যাপিকা তসলিমা খাতুন বলেন, বর্তমান সরকার নারীবান্ধব। নারীদের উন্নয়নে নানা প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করছে। তাই নারীদের ভোট যেন অন্য কেউ না পায় সে জন্য সবাইকে সচেতন থাকতে হবে।

সভায় সভাপতিত্ব করেন মহিষবাথান মহিলা কো-অপারেটিভ ক্রেডিট ইউনিয়নের সভাপতি শাহানাজ বেগম। আর স্বাগত বক্তব্য দেন রাজশাহী সিটি করপোরেশনের ৩, ৫ ও ৬ নম্বর ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর আয়েশা খাতুন নাদিরা। সভা পরিচালনা করেন স্বনির্ভর মহিলা কো-অপারেটিভ ক্রেডিট ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মনিকা বানু।

SHARE