অবশেষে দুর্ভোগের অবসান হচ্ছে

22

স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহী শহরের ভদ্রা মোড় রেলক্রসিং থেকে পারিজাত লেক হয়ে নওদাপাড়া বাস টার্মিনাল পর্যন্ত সড়কটির নির্মাণ কাজ অবশেষে শেষ হচ্ছে। রাজশাহীতে ঢোকা কিংবা বের হওয়ার জন্য বগুড়া-রংপুর রুটের বাসগুলো এই সড়কটি দিয়ে ব্যবহার করলেও দীর্ঘদিন চলাচলের অনুপযোগী ছিল সড়কটি। এতে ওই এলাকার বাসিন্দাদেরও চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছিল।

সড়কটি দুই লেনের থাকা অবস্থায় কয়েকবছর আগেই ভেঙেচুরে একাকার হয়ে যায়। পরে সড়কটি সংস্কারের সময় অযান্ত্রিক যানবাহন লেনসহ চারলেন করার সিদ্ধান্ত হয়। এখন এই কাজ দ্রুত গতিতেই এগিয়ে চলেছে। এক সময়ের খানাখন্দে ভরা পুরো সড়কটি একটি উন্নতমানের সড়কে পরিণত হচ্ছে। এখন গুরুত্বপূর্ণ এই সড়কটির কার্পেটিং কাজ চলছে।

রাজশাহী সিটি করপোরেশনের (রাসিক) প্রকৌশল বিভাগ জানিয়েছে, রাজশাহী মহানগরীর ভদ্রা মোড় রেলক্রসিং থেকে পারিজাত লেক হয়ে নওদাপাড়া বাস টার্মিনাল পর্যন্ত সড়কটি রাজশাহী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ নির্মাণ করেছিল। তবে দীর্ঘদিন যাবৎ সংস্কার না থাকায় সড়কটি বড় গর্ত আবার খানাখন্দে পরিণত হয়। সড়কের খারাপ অবস্থা দেখে মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনের নির্দেশে সড়কটি নতুনভাবে নির্মাণে উদ্যোগ নেয় রাসিক।

এরপর ২০২১ বছরের ৬ নভেম্বর সড়কটির নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন। রাজশাহী মহানগরীর সমন্বিত নগর অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় ৪ দশমিক ১৭ কিলোমিটার অযান্ত্রিক যানবাহন লেনসহ চার লেন সড়কের নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে ৬৯ কোটি ৭৮ লাখ টাকা। ফোরলেনের সড়ক ছাড়াও দুই লেনের অযান্ত্রিক যানবাহন লেন, সড়ক বিভাজক ও দুইপাশে ড্রেন ও ফুটপাত নির্মাণ করা হচ্ছে।

রাসিকের প্রধান প্রকৌশলী নূর ইসলাম তুষার বলেন, কয়েকদিনের মধ্যেই কার্পেটিং কাজ শেষ হয়ে যাবে। এতে ওই এলাকার মানুষের অনেক দিনের ভোগান্তি শেষ হবে। কার্পেটিং শেষে সড়কটির সৌন্দর্য্য বৃদ্ধিতে ডিভাইডারের ভেতর বৃক্ষরোপণের মাধ্যমে সবুজায়ন করা হবে। সড়কটি নির্মাণে ওই এলাকার আর্থসামাজিক অবস্থারও আমূল পরিবর্তন ঘটবে।

SHARE