জেল হত্যা দিবসে চারঘাটে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহ্ফিল

25

চারঘাট প্রতিনিধি : আজ ৩ নভেম্বর জেলহত্যা দিবস। ৭৫ এর ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যার পর দ্বিতীয় কলংকজনক অধ্যায় এই দিনটি। ১৫ আগস্টের নির্মম হত্যাকান্ডের পর তিন মাসেরও কম সময়ের মধ্যে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম বীর সেনানী ও চার জাতীয় নেতা সৈয়দ নজরুল ইসলাম, তাজউদ্দিন আহমেদ, এএইচএম কামারুজ্জামান এবং ক্যাপ্টেন মনসুর আলীকে এই দিনে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের অভ্যন্তরে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়। এর আগে ১৫ আগস্টের পর এই চার জাতীয় নেতাকে কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়।

চারঘাট উপজেলা আওয়ামীলীগ ও উপজেলার সকল ইউনিয়নের নেতা কর্মীরা আজ মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম বীর সেনানী ও চার জাতীয় নেতাকে যথাযথ শ্রদ্ধা প্রদর্শনের মাধ্যমে দেশের ইতিহাসের অন্যতম বর্বরোচিত এই কালো অধ্যায়টি স্মরণ করছে। উক্ত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহ্ফিলে সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন বীর মুক্তিযোদ্ধা জনাব মোঃ আনোয়া হোসেন, সভাপতি চারঘাট উপজেলা আওয়ামী লীগ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন চারঘাট উপজেলা চেয়ারম্যার আলহাজ্ব ফকরুল ইসলাম, চারঘাট উপজেলা মেয়র জনাব মোঃ একরামুল হক ও উপজেলার সকল ইউনিয়নের সভাপতি, সাধারণ সম্পদক, চেয়ারম্যান, মেম্বার ও স্থানীয় নেতা কর্মীগণ। আলোচনা সভায় সরদহ ইউনিয়ের চেয়ারম্যান জনাব আলহাজ্ব মোঃ হাসানুজ্জামান (মধু) তার বক্তব্যেতে বলেন বর্তনানে আমরা আর ৭৫ দেখতে চাই না। জামায়াত ও বিএনপি আবারো এই দেশকে ৭৫ করতে চাই। তিনি বলেন আওয়ামীলীগকে লাড়তে আসেন না আওয়ামীলীগ হচ্ছে ভিমুরুলের চাক যদি সেখানে ঢিল মারেন তাহলে ভিমুরুলের কামড় থেকে বাঁচতে পারবেন না। চারঘাট উপজেলার মেয়র জনাব মোঃ একরামুল হক বলেন, ভেবেছিল ৭৫ এ জাতীয় চার নেতাকে হত্যাকরে দেশ থেকে আওয়ামীলীগের নাম মুছেদেবে কিন্তু তারা সফল হতে পারেনি বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ বর্তমানে সু-সংগঠিত এবং শক্ত অবস্থানে রয়েছে। বর্তমানে ওয়ামীলীগকে যারা বাধা গ্রস্থ করবে উপজেলা ওয়ামীলীগ তা শক্ত হাতে প্রতিহিত করবে। তিনি বলেন একাত্তরের হাতিয়ার গর্জে উঠো বারবার, আজ বিকেল ৪.০০ ঘটিকার সময় চারঘাট সরকারী পাইলট স্কুল মাঠের আলোচনা সভায় বক্তব্য এ কথা বলেন। সকল শহীদের আত্মার মাগফিরাত কামনায় দোয়া করে অনুষ্ঠানের সম্পাপ্তি ঘোষনা করেন।

SHARE