হারিয়ে গেছে ৯৭ ভাগ পুকুর

27

স্টাফ রিপোর্টার: একদশক আগেও রাজশাহী শহরে পুকুর ছিল এক হাজারেরও বেশি। এখন তা কমে দুইশো’র নিচে নেমেছে। শহরের ৯৭ ভাগ পুকুরই হারিয়ে গেছে। পুকুরের জায়গায় গড়ে উঠছে ভবন। বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতির (বেলা) এক মতবিনিময় সভায় এ তথ্য উঠে এসেছে।

বুধবার সকালে রাজশাহী নগরীর একটি হোটেলের সম্মেলন কক্ষে ‘অস্তিত্ব সংকটে রাজশাহী নগরীর পুকুর/জলাশয়ঃ পুনরুদ্ধার ও সংরক্ষণে করণীয়’ শীর্ষক এই আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন জেলা প্রশাসক আবদুল জলিল।

সভায় বক্তারা বলেন, নগরীতে এখন পুকুরের ভরাটের মহোৎসব চলছে। বোয়ালিয়া ভূমি অফিসের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৪ সালেই শহরে এক হাজারের বেশি পুকুর ছিল। এখন তা কমে দুইশো’র নিচে নেমেছে। এখন শহরে কোথাও আগুন লাগলে নেভানোর জন্যই আশপাশে পানি পাওয়া যাবে না। ভয়াবহ এক সংকটের মুখে পড়তে যাচ্ছে রাজশাহী নগরী।

তারা বলেন, সরকারী পুকুরগুলোও এখন খুঁজে পাওয়া যায় না। পুকুর ভরাট বন্ধে প্রশাসনের সহায়তা এবং সকলের ঐক্যবদ্ধ প্রয়াস থাকতে হবে। পানির আঁধার রাখতে হবে। কারণ, এখন দেশের গড় বৃষ্টিপাতের অর্ধেকও রাজশাহীতে হয় না। আবার ভূ-গর্ভস্থ পানিও নিচে চলে যাচ্ছে। এ অবস্থায় পুকুর-জলাশয় সংরক্ষণের কোন বিকল্প নেই।

সভায় সভাপতিত্ব করেন সচেতন নাগরিক কমিটির (সনাক) রাজশাহীর সভাপতি ড. দীপকেন্দ্র নাথ দাস। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন রাজশাহী সিটি করপোরেশনের সচিব মশিউর রহমান, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশ বিজ্ঞান ইনস্টিটিউটের অধ্যাপক ড. রেদওয়ানুর রহমান, পরিবেশ অধিদপ্তরের রাজশাহীর সহকারী পরিচালক কবির হোসেন প্রমুখ।

SHARE