চাকরি জাতীয়করণের দাবিতে গ্রাম পুলিশ সদস্যদের সমাবেশ

16

স্টাফ রিপোর্টার: চাকরি জাতীয়করণের দাবিতে রাজশাহীতে সমাবেশ করেছেন গ্রাম পুলিশের সদস্যরা। রোববার বেলা ১১টা থেকে সাড়ে ১২টা পর্যন্ত রাজশাহীর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে তারা এ সমাবেশ করেন। বাংলাদেশ গ্রাম পুলিশ বাহিনী কর্মচারী ইউনিয়নের রাজশাহী জেলা শাখা এ আয়োজন করে। এতে জেলার ৯ উপজেলা থেকে গ্রাম পুলিশ সদস্যরা অংশ নেন।

সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের জেলা শাখার সভাপতি আতাউর রহমান। পরিচালনায় ছিলেন সাধারণ সম্পাদক কফিল উদ্দিন। বক্তারা বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান গ্রাম পুলিশের সদস্যদের চাকরি জাতীয়করণের আদেশ দিয়েছিলেন। স্থানীয় সরকার বিভাগ থেকে পরিপত্র আকারে এটি জেলায় জেলায় পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু এ অবধি গ্রাম পুলিশ সদস্যদের চাকরি জাতীয়করণ হয়নি। তাই সারাদেশের ইউনিয়ন পরিষদে (ইউপি) দায়িত্বরত গ্রাম পুলিশ বাহিনীর ৪৬ হাজার ৮৭০ জন সদস্য কষ্টে আছেন।

সমাবেশে বলা হয়, গ্রাম পুলিশ বাহিনী সরকারের আদেশ ও নির্দেশ অনুসারে প্রায় ৭০ ধরনের কাজ করে থাকে। কখনও কখনও দায়িত্ব পালন করতে হয় ২৪ ঘণ্টা। গ্রাম পুলিশ বাহিনীর একজন দফাদারের এখন বেতন ৭ হাজার টাকা। আর মহল্লাবাদার পান ৬ হাজার ৫০০ টাকা। এই বেতনের অর্ধেক বহন করে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়। বাকি অর্ধেক দেওয়া হয় ইউনিয়ন পরিষদের নিজস্ব আয় থেকে। সরকারি অংশ নিয়মিত পাওয়া গেলেও অধিকাংশ ইউনিয়ন পরিষদ তার অংশের বাকি অর্ধেক বেতন পরিশোধ করতে ব্যর্থ। বর্তমানে দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির এই বাজারে নামমাত্র বেতনে পরিবার-পরিজন নিয়ে চরম বেকায়দায় আছেন গ্রাম পুলিশ সদস্যরা। তাই তারা তাদের চাকরি জাতীয়করণের দাবি জানান।

সমাবেশে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন- সংগঠনের চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম, পবা উপজেলার সভাপতি আফাজ উদ্দিন, তানোরের সভাপতি সাদেকুল ইসলাম, দুর্গাপুরের সভাপতি নুরুল ইসলাম, বাগমারার সাধারণ সম্পাদক জালাল উদ্দিন, মোহনপুরের সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন প্রমুখ বক্তব্য দেন। পরে তারা চাকরি জাতীয়করণের দাবিতে জেলা প্রশাসকের কাছে প্রধানমন্ত্রী বরাবর একটি স্মারকলিপি দেন।

SHARE