ক্যাম্পাসেই হলো গায়ে হলুদ

30

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) মাদার বখশ হলের পুকুরপাড়ে সাজ সাজ রব। একদল তরুণের পরনে হলুদ পাঞ্জাবি। সাদা পর্দায় বানানো হয়েছে ছোট্ট একটি মঞ্চ। তার ওপর সাজানো বাঁশের ডালা, কুলা, চালুন, মাটির ঘড়া ও মটকা। আর মঞ্চটির পেছনে লেখা ‘আকিবের গায়ে হলুদ’।

শুক্রবার বিকালে এভাবেই ক্যাম্পাসে রাবি শিক্ষার্থী আকিবুল ইসলাম ও সাদিয়া আফরোজের গায়ে হলুদ হয়েছে। ব্যতিক্রমী এই গায়ে হলুদের আয়োজন করেন বরের বন্ধুরা। গ্রাম বাংলার সেই চিরায়ত হলুদ বাটা, মেহেদি বাটা, মিষ্টি-মিঠাই, ফলমূল সবকিছুই ছিল সেখানে। ক্যাম্পাস থেকে আকিবের বাড়ি অনেক দূরে হওয়ায় বন্ধুদের অনেকেই গায়ে হলুদের অনুষ্ঠানে অংশ নিতে পারতেন না। তাই ক্যাম্পাসেই এ আয়োজন করা হয়।

বর আকিবুল ইসলাম ও কনে সাদিয়া আফরোজ দুজনেই বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী। আকিবুলের বাড়ি শেরপুর। সাদিয়ার বাড়ি রাজশাহী নগরীর পদ্মা আবাসিকে। পড়াশোনার পাশাপাশি আকিবুল একটি বেসরকারি কোম্পানিতে কর্মরত। গায়ে হলুদের পরদিন শনিবার কনের বাড়িতে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা শেষ হয়। দুই পরিবারের সম্মতিতেই বিয়ে হয়।

ক্যাম্পাসে গায়ে হলুদ নিয়ে আকিবুল ইসলাম আকিব বলেন, ‘বাড়িতে গায়ে হলুদের অনুষ্ঠানে হয়তো এদের কাউকেই পেতাম না। তাই আমার খুব ইচ্ছে ছিল ক্যাম্পাসে এমন একটি আয়োজন হোক। বন্ধু-বান্ধব ও ছোটভাইয়েরা মিলে আমার সেই আশা পূরণ করলো। ক্যাম্পাসের সবাইকে একসঙ্গে পেয়ে আমি খুবই আনন্দিত। কাছের মানুষগুলোর সঙ্গে গায়ে হলুদের আয়োজন, এটা সত্যিই আমার জন্য অনেক বড় পাওয়া। বন্ধুদের এ আয়োজন আমাকে মুগ্ধ করেছে।’

আকিবের বন্ধু আবিদ হাসান বলেন, এ রকম আয়োজন করার কোনো অভিজ্ঞতা আমাদের ছিল না। তবে বন্ধুর বিয়ে বলে কথা! কয়েকজন মিলে আলোচনা করে উদ্যোগ গ্রহণ করি। এই ব্যতিক্রমী অনুষ্ঠানে বন্ধু, বড়ভাই ছোটভাই সবাই মিলে নেচে-গেয়ে অনেক আনন্দ করেছি। স্মৃতিবিজড়িত ক্যাম্পাসে এই অনুষ্ঠান আমাদের আজীবন মনে থাকবে।’

SHARE