নন-ক্যাডার নিয়োগে ‘নতুন নিয়ম’ বাতিলের দাবি

21

স্টাফ রিপোর্টার: নন-ক্যাডার নিয়োগের ক্ষেত্রে সরকারি কর্ম কমিশনের (পিএসসি) ‘নতুন নিয়ম’ বাতিলের দাবি জানিয়েছেন রাজশাহীর নন-ক্যাডার চাকরি প্রার্থীরা। বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয়ের (রাবি) প্যারিস রোডে আয়োজিত এক মানববন্ধন কর্মসূচি থেকে এ দাবি জানান তারা। এ সময় তারা বেশ কয়েকটি দাবি তুলে ধরেন।

দাবিগুলো হলো- নন-ক্যাডার পদ বিভাজনের মাধ্যমে পদসংখ্যা নির্ধারণের সিদ্ধান্ত বাতিল, তারিখওয়ারী পদ বিভাজনের সিদ্ধান্ত বাতিল, করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত ৪০তম বিসিএস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ নন-ক্যাডারের অপেক্ষমান তালিকায় থাকা প্রার্থীদের থেকে সর্বোচ্চ সংখ্যক প্রার্থীকে সুপারিশ, পূর্বের প্রক্রিয়া অনুসরণ করে বর্তমান উদ্ভূত সমস্যার সমাধান, বেকারবান্ধব নীতি গ্রহণ ও বাস্তবায়ন, বিগত এক যুগে পিএসসি যে স্বচ্ছ, নির্ভরযোগ্য ও বেকারবান্ধব প্রতিষ্ঠান ছিল সেই ধারা অব্যাহত রাখা।

মানববন্ধনে চাকরি প্রত্যাশীরা বলেন, ৪০তম বিসিএস’র সার্কুলার অনুযায়ী তখন থেকে এ পর্যন্ত যতগুলো পদ এসেছিলো সেগুলো অলরেডি ৩৬, ৩৭ এবং ৩৮তম বিসিএস নন-ক্যাডারদের দেওয়া হয়েছে। যারা হয়তো এখনো বিসিএস দেয় নাই অথবা যারা দিয়েছেন কিন্তু নন-ক্যাডারে যারা এখনো আসেননি তারা এখনো বুঝতে পারছেন না কোন ধোয়াশার মধ্যে আছেন।

তারা আরও বলেন, আগামী ৫ বছর একটা নন-ক্যাডারও নিয়োগ হবার সম্ভাবনা নেই। সেখানে একজন ছেলে বা মেয়ে ন্যূনতম ৪ বছর পরিশ্রম করে যখন জানতে পারে তাকে খালি হাতে তাকে ফিরে আসতে হবে, তখন তার দরিদ্র বা অসহায় পরিবার বুঝতে পারে তা কতটা মর্মমান্তিক এবং কষ্টের।

মানববন্ধনে রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয়, রাজশাহী প্রযুক্তি ও প্রকৌশল বিশ^বিদ্যালয় (রুয়েট), রাজশাহী কলেজসহ রাজশাহীর বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের অর্ধশতাধিক শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, ৪০তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয় ১১ই সেপ্টেম্বর ২০১৮ সালে। চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশ করা হয় চলতি বছরের ৩০ মার্চ। প্রায় ৩ মাস পর পিএসসি ৪০তম বিসিএস নন-ক্যাডার পদের জন্য অনলাইন আবেদনপত্র আহ্বান করে। পিএসসি জুন মাসের ২৬ তারিখ বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ে ৪০তম বিসিএস নন-ক্যাডার হতে সুপারিশ করার লক্ষ্যে শূন্যপদের অধিযাচন/রিক্যুইজিশন চেয়ে পত্র ইস্যু করে। এর প্রেক্ষিতে বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের অধীন বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে ৪০তম বিসিএস ফরমেটে পিএসসিতে নন-ক্যাডার শূন্যপদের অধিযাচন পাঠানো হয়।

SHARE