নগরীতে মাঝারি থেকে ভারি বর্ষণ

22

স্টাফ রিপোর্টার: শরতের শেষে এসেও রাজশাহীতে মঙ্গলবার মাঝারি থেকে ভারি বর্ষণ হয়েছে। বৃষ্টি চলাকালে শহরের বিভিন্ন এলাকায় জলাবদ্ধতা দেখা দেয়। পরে অবশ্য ধীরে ধীরে পানি নেমে যায়। তবে কয়েকটি নিচু এলাকায় পানি জমে আছে। এতে দুর্ভোগে পড়েছেন নগরবাসী।

রাজশাহী আবহাওয়া অফিসের উচ্চ পর্যবেক্ষক এসএম রেজোয়ানুল হক জানান, মঙ্গলবার বিকাল ৩টা ৫৬ মিনিটে বৃষ্টিপাত শুরু হয়। চলে ৫টা ৪২ মিনিট পর্যন্ত। আবহাওয়া অফিস এলাকায় এই সময়ের মধ্যে ৩১ দশমিক ২ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড হয়েছে।

তিনি জানান, ২৪ ঘণ্টায় ১১ থেকে ২২ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হলে তাকে মাঝারি বর্ষণ বলা হয়। আর ২৪ ঘণ্টায় ২২ থেকে ৪৩ মিলিমিটারের মধ্যে বৃষ্টিপাত হলে তাকে মাঝারি থেকে ভারি বর্ষণ ধরা হয়। সে অনুযায়ী মঙ্গলবার রাজশাহীতে মাঝারি থেকে ভারি বর্ষণ হয়েছে।

মুশলধারের এই বৃষ্টিতে রাজশাহী নগরীর হেতেমখাঁ, বর্ণালী মোড়, শহীদ এএইচএম কামারুজ্জামান চত্বর, গণকপাড়া, শালবাগান, কাজিহাটা, সিপাইপাড়া, কাদিরগঞ্জ, উপশহরসহ বিভিন্ন এলাকায় পানি জমে যায়। এতে চলাচলে ব্যাপক ভোগান্তিতে পড়েন মানুষ।

বিশেষ করে নগরীর হেতেমখাঁ-কলাবাগান এলাকাটি সামান্য বৃষ্টিতেই জলমগ্ন হয়ে পড়ে বলে সেখানকার বাসিন্দাদের ভোগান্তি একটু বেশি। সরু ড্রেনগুলো অল্প বৃষ্টিতেই উপচে পড়া এবং দীর্ঘ সময় ধরে ড্রেন পরিষ্কার না করার কারণে এই সমস্যা হয় বলে অভিযোগ স্থানীয়দের।

বিষয়টি নিয়ে জানতে চাইলে রাজশাহী সিটি করপোরেশনের প্রধান প্রকৌশলী নূর ইসলাম তুষার বলেন, ‘আগের ছোট ছোট ড্রেন এখন পানি ধারণ করতে পারছে না। এটা সত্য। ফলে বৃষ্টি হলে একটু সমস্যা হচ্ছেই। সমস্যা সমাধানে এখন বিভিন্ন এলাকায় বড় বড় ড্রেন নির্মাণ কাজ চলমান আছে। আস্তে আস্তে সমস্যার সমাধান হবে।’

SHARE