সস্ত্রীক কারাগারে তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী

27

স্টাফ রিপোর্টার: জাতীয় গৃহায়ণ কর্তৃপক্ষের রাজশাহী অঞ্চলের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী পরিমল কুমার কুরী ও তাঁর স্ত্রী সোমা সাহাকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। অবৈধ সম্পদ অর্জনের কারণে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) আলাদা দুটি মামলায় তাদের কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

সোমবার পরিমল কুমার কুরী ও তাঁর স্ত্রী সোমা সাহা নিজ নিজ মামলায় জামিন চেয়ে রাজশাহী মহানগর দায়রা জজ আদালতে হাজির হয়েছিলেন। দুপুরে শুনানি শেষে জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে তাঁদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন আদালতের বিচারক একেএম ফজলুল হক।

দুদকের রাজশাহীর আইনজীবী শহীদুল হক খোকন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, মামলা দায়েরের পর পরিমল কুমার কুরী ও তাঁর স্ত্রী সোমা সাহা উচ্চ আদালত থেকে ৬ সপ্তাহের অন্তর্বতীকালীন জামিন নেন। এরপর জামিনের শর্তানুযায়ী সোমবার তাঁরা নিম্ন আদালতে হাজির হন। এ সময় জামিনের আবেদন করা হলে তা নাকচ করেন আদালত।

এর আগে গত ৬ জুন দুদকের সমন্বিত রাজশাহী জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক আমির হোসাইন বাদী হয়ে পরিমল কুমার কুরীর বিরুদ্ধে ৫০ লাখ ৪৩ হাজার ৫১৬ টাকার জ্ঞাত-আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের মামলা করেন। পরদিন তাঁর স্ত্রী সোমা সাহার বিরুদ্ধে ১ কোটি ১৯ লাখ টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের আরেকটি মামলা করেন দুদকের ওই কর্মকর্তা।

জানা গেছে, পরিমল কুমার কুরীর বাবার নাম পশুপতি কুরী। ঝিনাইদহ জেলার কালীগঞ্জ উপজেলার বেলাট দৌলতপুর গ্রামে তার বাড়ি। তবে বর্তমানে তিনি পরিবারসহ ঢাকার মিরপুর-২ অফিসার্স কোয়ার্টারে বসবাস করেন।

দুদক সূত্রে জানা গেছে, পরিমল কুমার কুরী জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের খুলনা অঞ্চলের নির্বাহী প্রকৌশলী থাকাকালে ব্যাপক দুর্নীতি করেন। ২০২০ সালের শুরুতে পদোন্নতি পেয়ে গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের রাজশাহী অঞ্চলের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী হন।

অভিযোগ মতে, রাজশাহীর একটি আবাসিক এলাকা উন্নয়নে মাটি ভরাট না করেই কয়েক কোটি টাকার বিল দেন ঠিকাদারকে। কুরীর বিরুদ্ধে বিভাগীয় তদন্তেও দুর্নীতির অভিযোগ প্রমাণিত হয়।

SHARE