পদ্মায় নৌকাডুবিতে নিখোঁজ তিনজনের সন্ধান মেলেনি

20

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহীর পদ্মা নদীতে নৌকাডুবির ৩৪ ঘণ্টা পরও নিখোঁজ তিনজনের খোঁজ মেলেনি। তাঁদের সন্ধানে পদ্মা নদীতে অনুসন্ধান চালিয়ে যাচ্ছে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের ডুবুরি দল। কিন্তু গতকাল সোমবার রাত ৮টা পর্যন্ত নিখোঁজ একজনেরও খোঁজ পাওয়া যায়নি।

এর আগে রোববার ভোর ৬টার দিকে রাজশাহী নগরীর তালাইমারী বিজয়নগর শাহপুর এলাকায় প্রায় ২৫ জন যাত্রী নিয়ে পদ্মা নদীতে একটি নৌকা ডুবে যায়। এতে তিনজন নিখোঁজ হন। তাঁরা হলেন- নগরীর মিজানের মোড় এলাকার সাদেক আলী, একই এলাকার মো. নজু এবং ডাঁসমারী সাতবাড়িয়া এলাকার মো. নবী। তাঁরা সবাই পদ্মার চরে কৃষিকাজ করেন।

রোববার ভোরে কৃষকেরা একটি নৌকায় চড়ে পদ্মা নদীর মাঝচরের জমিতে কাজ করতে যাচ্ছিলেন। ছোট নৌকাতে অতিরিক্ত যাত্রী ও ঢেউয়ের কারণে তখন মাঝনদীতে নৌকাটি ডুবে যায়। এই নৌকাডুবির পরই নিখোঁজদের উদ্ধারে কাজ শুরু করে ফায়ার সার্ভিস। এরমধ্যে আরেকটি নৌকাডুবির ঘটনা ঘটে একই এলাকায়। ওই নৌকায় যাত্রী ছিলেন তিনজন।

ফায়ার সার্ভিস ও বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) সদস্যরা এ নৌকার তিন যাত্রীকেই উদ্ধার করেন। তবে নৌকাটি পদ্মা নদীতে তলিয়ে যায়। ডুবে যাওয়ার পর প্রথম নৌকাটিরও সন্ধান পাওয়া যায়নি। সন্ধান মেলেনি নিখোঁজ তিনজনেরও। তাঁদের অপেক্ষায় নদীপাড়ে বসে অপেক্ষা করছেন পরিবারের সদস্যরা।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের রাজশাহী সদর স্টেশনের স্টেশন অফিসার লতীফুল বারী জানান, নিখোঁজ তিনজন আর বেঁচে নেই বলেই ধরে নেওয়া হচ্ছে। সেভাবেই সন্ধান চলছে। প্রথমদিন চারজন ডুবুরি ঘটনাস্থল ও এর আশপাশে তল্লাশি চালিয়েছেন। দ্বিতীয় দিন ঘটনাস্থল থেকে ভাটিতে রাজশাহীর চারঘাট ও বাঘা পর্যন্ত তল্লাশি চালানো হয়েছে।

তিনি জানান, নৌকা ও স্পিড বোট নিয়ে সন্ধান কাজ চলছে। ডুবুরিরা কখনও পদ্মার তলদেশে কখনও ওপরে উঠে এসে নদীতে নজর রাখছেন। তাও সন্ধান পাওয়া যাচ্ছে না। সন্ধ্যায় অভিযান আপাতত শেষ করা হয়েছে।

SHARE