দেশ কারাগারে পরিনত হয়েছে : মিনু

186

স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহী-২ (সদর) আসনের বিএনপির প্রার্থী ও দলের চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনু বলেছেন, দেশে এখন কোন প্রকার গণতন্ত্র নাই। এই সরকার একনায়কতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করেছে। নির্বাচন নিয়ে তালবাহানা শুরু করেছে। ধানের শীষের প্রার্থীর প্রচারণায় বাধা দেয়া হচ্ছে। পুলিশ ও প্রশাসনের সদস্য দিয়ে ধানের শীষের প্রার্থীদের গ্রেপ্তার ও হয়রানী করছে। কিন্তু এ অবস্থা চলতে দেয়া যায় না। স্বাধীনভাবে চলাফেরা ও গণতন্ত্র সমুন্নত রাখতে বিএনপি নির্বাচনে অংশ নিয়েছে। এ নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে জনগণের অধিকার ফিরিয়ে আনা হবে।

রোববার সকালে শহীদ মিনারে পুস্পস্তবক অর্পণ শেষে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে এ সব কথা বলেন তিনি। দলের নেতাকর্মীদের নিয়ে রাজশাহী কলেজ শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের শ্রদ্ধা জানান মিনু। পরে সেখান থেকে র‌্যালী বের করে।

মিনু বলেন, দেশে যখন পাকিস্তানী সৈন্যরা হত্যাকান্ড শুরু করে তখন মেজর জিয়া পাকিস্তানী সেনাকে হত্যা করে বাংলাদেশে ফিরে আসেন এবং স্বাধীনতার ঘোষনা দেন। তাঁর ঘোষনার প্রেক্ষিতে দেশের জনগণ একত্রিত হন এবং যার যা আছে তাই নিয়ে পাকিস্তানী হানাদার বাহিনীর উপর ঝাপিয়ে পড়ে। দীর্ঘ নয় মাস যুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করে। কিন্তু দীর্ঘ ৪৭ বছরেও বাংলী জাতি স্বাধীনতার স্বাদ গ্রহন করতে পারেনি। দেশের মানুষ এখন নিরাপদ নয়। এ সরকার দেশটাকে একটি কারাগারে পরিণত করেছে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, মহানগর বিএনপির সভাপতি ও সাবেক মেয়র মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল, সাংগঠনিক সম্পাদক আসলাম সরকার, বোয়ালিয়া থানা বিএনপির সভাপতি সাইদুর রহমান পিন্টু, শাহ্ মখ্দুম থানা বিএনপির সভাপতি মনিরুজ্জামান শরীফ, বোয়ালিয়া থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক রবিউল আলম মিলু, মহানগর যুবদলের সাবেক সভাপতি ও বিএনপি নেতা ওয়ালিউল হক রানা, মহানগর যুবদলের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ সুইট, জেলা যুবদলের সভাপতি মোজাদ্দেদ জামানী সুমন, মহানগর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান রিটন, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি জাকির হোসেন রিমন প্রমূখ।

SHARE