উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় মা-বাবার ওপর হামলার তিন আসামি গ্রেপ্তার

16

স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহী মহানগরীতে কলেজছাত্রীকে উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় তার মা-বাবার ওপর বখাটেদের হামলার ঘটনায় তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। বুধবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে রাজশাহী নগরীর মেহেরচন্ডী পূর্বপাড়া মহল্লায় অভিযান চালিয়ে মামলার এজাহারভুক্ত তিন আসামিকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব-৫ এর রাজশাহীর মোল্লাপাড়া ক্যাম্পের একটি দল।

গ্রেপ্তার তিনজন হলো- মেহেরচন্ডী পূর্বপাড়া ইরফান খান ওরফে মিরাজ (২৩), মো. ফরহাদ (২৭) ও তার ভাই আখের আলী (৩২)। বৃহস্পতিবার দুপুরে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে র‌্যাব এ তথ্য জানিয়েছে। এর আগে বুধবার দুপুরে ভুক্তভোগী ছাত্রীর পরিবারের পক্ষ থেকে সংবাদ সম্মেলন করে অভিযোগ করা হয়, এই হামলার ঘটনায় তারা মামলা করতে পারেননি।

এই পরিবারটির বাড়ি মেহেরচন্ডী মধ্যপাড়ায়। ভুক্তভোগী ছাত্রীর বাবা নীল মাধব শাহ সংবাদ সম্মেলনে জানান, কলেজে যাতায়াতের সময় তার মেয়েকে উত্ত্যক্ত করত এলাকার বখাটেরা। গত ১২ আগস্ট সকালে এর প্রতিবাদ করেন নীল মাধব। পরদিন সন্ধ্যায় বখাটেরা রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় স্টেশনে নীল মাধব শাহ’র পার্লারে গিয়ে হামলা চালায়। এ সময় তাঁকে ছুরিকাঘাত করা হয় এবং হাতুড়ি দিয়ে পেটানো হয়। হাসপাতালে নেওয়া হলে তার মাথায় ১২টি সেলাই পড়ে। এ হামলায় তার স্ত্রী বন্দনা রাণী শাহও আহত হন।

এ নিয়ে নীল মাধব মতিহার থানায় মামলা করতে যান। কিন্তু মতিহার থানা পুলিশ মামলা না নিয়ে জানায়, এলাকাটি পড়েছে রেলওয়ে থানার অধীনে। তাই রেলওয়ে থানায় যান তিনি। কিন্তু সেখানেও মামলা নেওয়া হয়নি। বাধ্য হয়ে তিনি চন্দ্রিমা থানার বাসিন্দা বলে সেই থানায় যান মামলা করতে। কিন্তু সেখানেও তার মামলা নেওয়া হয়নি। অভিযুক্ত বখাটে ছাত্রলীগের নেতা পরিচয় দেয় বলে মামলা নেওয়া হচ্ছে না বলে অভিযোগ করেন তিনি। তবে এই সংবাদ সম্মেলনের পর রাজশাহী রেলওয়ে থানায় আটজনের বিরুদ্ধে মামলা রেকর্ড হয়।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে র‌্যাব জানিয়েছে, নীল মাধব শাহ ও তার মেয়ে রাণী শাহ সংবাদ সম্মেলন করে ঘটনার বিবরণ তুলে ধরলে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। এ নিয়ে পরবর্তীতে রাজশাহী রেলওয়ে থানায় মামলা রেকর্ড হয়। এরই প্রেক্ষিতে অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর মতো র‌্যাবও ছায়াতদন্ত শুরু করে। পরে রাতেই অভিযান চালিয়ে তিন আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের রেলওয়ে থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। পরে থানা পুলিশ আসামিদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছে বলেও জানিয়েছে র‌্যাব।

SHARE