রাজশাহীতে যথাযোগ্য মর্যাদায় জাতীয় শোক দিবস পালন

8

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহীতে নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদাতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালন করা হয়েছে। সোমবার দিনভর নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে বিভিন্ন সংগঠন দিবসটি পালন করে। কর্মসূচিতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের সকল শহীদকে গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করা হয়।
নগর আ.লীগ
সকালে নগরীর কুমারপাড়ায় নগর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধুসহ জাতীয় চার নেতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। পরে একটি শোক র‌্যালী বের করা হয়। র‌্যালী শেষে দলীয় কার্যালয়ে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। দুপুরে খাবার বিতরণ করা হয়। এসব কর্মসূচিতে সভাপতিত্ব করেন নগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী কামাল। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার, জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি শাহীন আকতার রেনী প্রমুখ।
এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন সহ-সভাপতি অধ্যক্ষ শফিকুর রহমান বাদশা, রেজাউল ইসলাম বাবুল, নাঈমুল হুদা রানা, ডা. তবিবুর রহমান শেখ, বদরুজ্জামান খায়ের, যুগ্ম সম্পাদক আসাদুজ্জামান আজাদ, দপ্তর সম্পাদক মাহাবুব-উল-আলম বুলবুল, প্রচার সম্পাদক দিলীফ কুমার ঘোষ, আইন বিষয়ক সম্পাদক মুসাব্বিরুল ইসলাম, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক রবিউল আলম রবি, মহিলা সম্পাদিকা ইয়াসমিন রেজা ফেন্সি, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডা. ফ ম আ জাহিদ, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক আনসারুল হক, শিল্প ও বানিজ্য বিষয়ক সম্পাদক ওমর শরীফ রাজিব, শ্রম সম্পাদক আব্দুস সোহেল, যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক মকিদুজ্জামান জুরাত, উপ-প্রচার সম্পাদক সিদ্দিক আলম প্রমুখ।
জেলা আ.লীগ
সকালে জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে রাজশাহী কলেজ প্রাঙ্গনে বঙ্গবন্ধুর আবক্ষ প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। পরে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আমানুল হাসান দুদু এতে সভাপতিত্ব করেন। পরিচালনা করেন সাধারণ সম্পাদক আব্দুল ওয়াদুদ দারা। এ সময় দলের অন্য নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।
ওয়ার্কার্স পার্টি
সকালে নগরীর সিঅ্যান্ডবি মোড়ে জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ও রাজশাহী সদর আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা। এ সময় জেলা ও নগর ওয়ার্কার্স পার্টির নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে তারা শপথ গ্রহণ করেন।
রাবি
গভীর শোক ও শ্রদ্ধায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম মৃত্যুবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে গতকাল সোমবার সূর্যোদয়ের সাথে সাথে শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম প্রশাসনভবনসহ অন্যান্য ভবনে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত ও কালো পতাকা উত্তোলন করা হয়। এদিন সকাল সাড়ে ৯টায় বিশ^বিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক গোলাম সাব্বির সাত্তার শোক র‌্যালিসহ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। পরে সেখানে তাঁরা বঙ্গবন্ধুর স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।
এরপর বিভিন্ন আবাসিক হল ও বিভাগ, রাবি শিক্ষক সমিতি, ক্যাম্পাসের স্কুলসমূহ, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মূল্যবোধে বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজ, রাবি বঙ্গবন্ধু পরিষদ, রাবি সাংবাদিক সমিতিসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠান এবং পেশাজীবী ও সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে। পরে সকাল ১০টায় বিশ^বিদ্যালয়ের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ সিনেট ভবনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় উপ-উপাচার্য অধ্যাপক সুলতান-উল-ইসলামের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপাচার্য অধ্যাপক গোলাম সাব্বির সাত্তার। রেজিস্ট্র্রার আবদুস সালামের সঞ্চালনায় মূখ্য আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন একুশে পদক প্রাপ্ত সাংবাদিক স্বদেশ রায়।
এছাড়াও দিবসটি উপলক্ষে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় এবং বিশ্ববিদ্যালয় স্কুল ও শেখ রাসেল মডেল স্কুলের শিক্ষার্থীদের জন্য অনলাইনে রচনা প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। কর্মসূচিতে আরও রয়েছে বাদ জোহর বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে কোরআনখানি ও মিলাদ মাহফিল, সন্ধ্যা ৬টায় কেন্দ্রীয় মন্দিরে বিশেষ প্রার্থনা এবং সন্ধ্যায় শহীদ মিনার চত্বরে প্রদীপ প্রজ্বলন। পরে সন্ধ্যা ৭টায় শহীদ সুখরঞ্জন সমাদ্দার ছাত্র-শিক্ষক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে কবিতা পাঠ অনুষ্ঠিত হয়। কর্মসূচিতে অন্যদের মধ্যে কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক অবায়দুর রহমান প্রামানিক, প্রক্টর অধ্যাপক আসাবুল হক, জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক অধ্যাপক প্রদীপ কুমার পাণ্ডে, ছাত্র-উপদেষ্টা তারেক নূর প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
রুয়েট
রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (রুয়েট) এর উদ্যোগে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর ৪৭ তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস যথাযোগ্য মর্যাদায় দিনব্যাপী নানা কর্মসূচির মধ্যে দিয়ে পালিত হয়েছে। সকালে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে প্রশাসনিক ভবন ও হলসমূহে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখা ও শোকের প্রতীক কালো পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে দিনের কর্মসূচি শুরু হয়। এরপর সকাল ১০টায় শোকের প্রতীক কালোব্যাজ ধারণ করা হয়।
সকাল সাড়ে ১০টায় রুয়েট ভাইস-চ্যান্সেলর (অতিরিক্ত দায়িত্ব) অধ্যাপক ড. মো. সাজ্জাদ হোসেন এর নেতৃত্বে রুয়েট প্রশাসনের পক্ষ থেকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর ম্যুরালে পুষ্পার্ঘ অর্পণ ও শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করা হয়। এসময় অন্যান্যদের মধ্যে সদ্য সাবেক ভাইস-চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. মো. রফিকুল ইসলাম সেখ, রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যাপক ড. মো. সেলিম হোসেন, রুয়েট শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মো. ফারুক হোসেন, ছাত্রকল্যান পরিচালক ও সাধারণ সম্পাদক শিক্ষক সমিতি অধ্যাপক ড. মো. রবিউল আওয়াল, রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. আশরাফুল আলম, পুরকৌশল বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. আব্দুল আলীম, যন্ত্রকৌশল বিভাগের অধ্যাপক ড. নীরেনাদ্র নাথ মুস্তফী, কর্মকর্তা সমিতির সভাপতি নাজিমউদ্দীন আহম্মদ ও সাধারণ সম্পাদক দিলীপ কুমার ঘোষ, ছাত্রলীগ রুয়েট শাখার সভাপতি মোহাম্মদ ইসফাক ইয়াসশির ইপু ও সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী মাহফুজুর রহমান তপ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
রুয়েট প্রশাসনের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদনের পরপর পৃথক পৃথকভাবে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করেন- রুয়েট শিক্ষক সমিতি, ছাত্রলীগ রুয়েট শাখা, কর্মকর্তা সমিতি, কর্মচারী সমিতি, বঙ্গবন্ধু কর্মকর্তা পরিষদ, মুজিব আদর্শে বিশ্বাসী ছাত্র-শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারী রুয়েট, মাস্টারোল কর্মচারী সমিতি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল, দেশরত্ন শেখ হাসিনা হল, শহীদ লেফটেন্যান্ট সেলিম হল, জিয়াউর রহমান হল, শহীদ আব্দুল হামিদ হল, শহীদ শহিদুল ইসলাম হল, টিনসেড হল, সাধারণ কর্মচারী রুয়েট। শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন শেষে দিবসটি উপলক্ষে বৃক্ষরোপন করেণ ভাইস-চ্যান্সেলর (অতিরিক্ত দায়িত্ব) অধ্যাপক ড. মো. সাজ্জাদ হোসেন। পরে ১৫ আগস্টের সকল শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে বাদ জোহর রুয়েট কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে বিশেষ মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়।
রাকাব
জাতীয় শোক দিবসে রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংকের (রাকাব) প্রধান কার্যালয়ে সকাল ৯টা ১৫ মিনিটে বঙ্গবন্ধুর ম্যূরালে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আব্দুল মান্নান। এ সময় ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন নির্বাহীগণসহ প্রধান কার্যালয়, বিভাগীয় কার্যালয়, বিভাগীয় নিরীক্ষা কার্যালয়, প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট, এসইসিপি, রাজশাহী ও স্থানীয় মুখ্য কার্যালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ এবং জোনাল ব্যবস্থাপক ও জোনাল নিরীক্ষা কর্মকর্তা, রাজশাহী উপস্থিত ছিলেন।
পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বঙ্গবন্ধু অঙ্গনে রক্ষিত বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য প্রদান করেন ও ব্যাংক চত্বরে একটি ফলজ বৃক্ষ রোপনের মাধ্যমে ‘জাতীয় বৃক্ষরোপণ অভিযান ২০২২’ এর আগস্ট মাস ব্যাপি বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি উদ্বোধন করেন। এর পূর্বে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে যথাযথ মর্যাদায় জাতীয় পতাকা উত্তোলন (অর্ধনমিত) এর মাধ্যমে শোক দিবসের কর্মসূচি শুরু করা হয়। পরে পবিত্র কোরআন খতমের আয়োজন করা হয়। পরবর্তীতে রাকাব পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান রইছউল আলম মন্ডল এর ভার্চুয়ালী অংশগ্রহণে জাতির পিতার জীবনচরিত, আদর্শ, দর্শন ইত্যাদির উপর আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভা শেষে ১৫ আগস্টে বঙ্গবন্ধু ও শাহাদত বরণকারী তাঁর পরিবারের সকল সদস্যের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ দোয়া পরিচালনার মধ্য দিয়ে জাতীয় শোক দিবসের দিনব্যাপি কর্মসূচির সমাপ্তি হয়। উল্লেখ্য ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়সহ মাঠ পর্যায়ের সকল কার্যালয় ও শাখাসমূহের কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ জুম অ্যাপ ও ফেসবুকে সরাসরি স্ট্রিমিং-এর মাধ্যমে সভায় অংশগ্রহণ করেন।
অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেড
যথাযোগ্য মর্যাদায় জাতীয় শোক দিবস পালন করেছে অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেডের রাজশাহী সার্কেলের মহাব্যবস্থাপকের সচিবালয়। সোমবার লক্ষ্মীপুর শাখা থেকে একটি শোক র‌্যালি বের করে সিঅ্যান্ডবি মোড়ে গিয়ে বঙ্গবন্ধুর মুরালে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। এরপর অগ্রণী ব্যাংক ট্রেনিং ইনস্টিটিউটে একটি আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। এ ছাড়া শিশুদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা এবং রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির তত্বাবধানে রক্তদান কর্মসূচির আয়োজন করা হয়।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন রাজশাহী সার্কেলের মহাব্যবস্থাপক শাম্মি উদ্দিন আহমেদ। প্রধান আলোচক ছিলেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের প্রফেসর ড. দুলাল চন্দ্র বিশ্বাস। বিশেষ অতিথি ছিলেন ব্যাংকের রাজশাহী অঞ্চলের অঞ্চল প্রধান ও উপ-মহাব্যবস্থাপক এসএম মোস্তফা-ই-কাদের, সাহেব বাজার কর্পোরেট শাখার প্রধান ও উপ-মহাব্যবস্থাপক আব্দুল মান্নান, সার্কেল সচিবালয়ের সহকারী মহাব্যবস্থাপক লোকমান হাকিম, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় কর্পোরেট শাখার প্রধান বজলুর রশীদ প্রমুখ। সভাপতিত্ব করেন রাজশাহী সার্কেলের উপ-মহাব্যবস্থাপক জবাবলু মুহরী।
মেয়রের পক্ষে খাবার বিতরণ
জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনের পক্ষ থেকে খাবার বিতরণ করা হয়েছে। সোমবার দুপুরে রাজশাহীর সাবেক ছাত্রনেতা অ্যাডভোকেট আবু রায়হান মাসুদ এবং ব্যবসায়ী ও আওয়ামী লীগ নেতা আনোয়ার হোসেনের উদ্যোগে নগরীর হড়গ্রাম ও কোর্ট স্টেশন এলাকায় চারটি স্থানে তিন হাজার মানুষের মাঝে খাবার বিতরণ করা হয়। খাবার বিতরণের আগে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ ১৫ আগস্টের সকল শহীদের আত্মার মাগফিরাত কামনায় দোয়া করা হয়।
রাজশাহী কলেজ রিপোর্টার্স ইউনিটি
১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদাত বার্ষিকী এবং জাতীয় শোক দিবস পালন করেছে রাজশাহী কলেজ রিপোর্টার্স ইউনিটি (আরসিআরইউ)। দিবসটি উপলক্ষে সোমবার সকাল সাড়ে ৮ টায় রাজশাহী কলেজে অবস্থিত বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।
কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন, আরসিআরইউ এর প্রধান পৃষ্ঠপোষক ও রাজশাহী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মোহা. আব্দুল খালেক, প্রাক্তন অধ্যক্ষ ও পৃষ্ঠপোষক মোহা. হবিবুর রহমান, উপাধ্যক্ষ প্রফেসর ওলিউর রহমান, সংগঠনের উপদেষ্টা ও বাংলা বিভাগের প্রভাষক মোস্তাফিজুর রহমান, সাবেক সভাপতি শেখ রহমত উল্লাহসহ সংগঠনের সদস্যবৃন্দ। শেষে আরসিআরইউ এর নিজ কার্যালয়ে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
সভায় আরসিআরইউ’র সভাপতি মাহাবুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ রনি’র সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, আরসিআরইউ’র উপদেষ্টা ও বাংলা বিভাগের প্রভাষক মোস্তাফিজুর রহমান। এসময় সংগঠনটির সহ-সভাপতি মেহেদী হাসান, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল হাকিম, অর্থ সম্পাদক বদরুদ্দোজা, দপ্তর সম্পাদক এস আলী দূর্জয়, প্রশিক্ষণ ও প্রকাশনা সম্পাদক আফসানা মিমি, নির্বাহী সদস্য সুজন আলীসহ সহযোগী সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।
বঙ্গবন্ধু শিক্ষা ও গবেষণা পরিষদ
জাতির পিতার ৪৭তম শাহাদাত বার্ষিকী যথাযোগ্য মর্যাদায় পালনের লক্ষ্যে বঙ্গবন্ধু শিক্ষা ও গবেষণা পরিষদ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখার উদ্যোগে একটি শোক র‌্যালির আয়োজন করা হয়। বঙ্গবন্ধু শিক্ষা ও গবেষণা পরিষদের সভাপতি অধ্যাপক ড. প্রভাষ কুমার কর্মকারের নেতৃত্বে সকাল ৯.৫০ মিনিটে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ সিনেট ভবনের সামনে থেকে শুরু হয়ে শোক র‌্যালিটি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলে গিয়ে শেষ হয়। সেখানে তাঁরা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ এবং বঙ্গবন্ধুর রুহের মাগফিরাত কামনা করে মোনাজাত করেন। সাধারণ সম্পাদক ড. মো. মোকাররম হোসেন মন্ডলের সঞ্চালনায় এ অনুষ্ঠানে সংগঠনের অন্যতম উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. বিধান চন্দ্র দাস প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
জাতীয় আদিবাসী পরিষদ
স্বাধীন বাংলাদেশের মহান স্থপতি এবং জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস ২০২২ উপলক্ষে রাজশাহীর সিঅ্যান্ডবি মোড় বঙ্গবন্ধু’র প্রতিকৃতিতে জাতীয় আদিবাসী পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির শ্রদ্ধাঞ্জলি প্রদান করা হয়। সকালে শ্রদ্ধাঞ্জলি প্রদান শেষে আত্মার শান্তি কামনা করে নীরবতা পালন করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন জাতীয় আদিবাসী পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক গণেশ মার্ডি, কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ও রাজশাহী জেলা কমিটির সভাপতি বিমল চন্দ্র রাজোয়াড়ের, দপ্তর সম্পাদক সূভাষ চন্দ্র হেমব্রম, আদিবাসী ছাত্র পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি নকুল পাহান প্রমুখ।
বিসিক শিল্পনগরী
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এঁর ৪৭ তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে দুপুর ২টায় বিসিক শিল্পনগরী, রাজশাহী জেলা কার্যালয়ের আয়োজনে এবং বিসিক শিল্পনগরী শিল্প মালিক সমিতির সহযোগিতায় দোয়া মাহফিল ও দুস্থদের মাঝে খাবার বিতরনের আয়োজন করা হয়। শোকসভা ও দোয়া মাহফিলের প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বিশিষ্ট সমাজসেবী শাহীন আকতার রেনী।
বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিসিক রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের আঞ্চলিক পরিচালক জাফর বায়েজীদ। এছাড়াও বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিসিক শিল্পনগরীর শিল্প মালিক সমিতির সভাপতি লিয়াকত আলী। দোয়া মাহফিল ও দুস্থদের মাঝে খাবার বিতরণী অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন বিসিক শিল্পনগরী কর্মকর্তা আনোয়ারুল আজিম।
শোক দিবস উপলক্ষে বিসিক শিল্পনগরী রাজশাহীতে শিল্প নগরীর শ্রমিক ও অসহায় দুস্থদের মাঝে ১ হাজার ২০০ জনের মাঝে খাদ্য বিতরন করা হয়। এছাড়াও মাসব্যাপী কর্মসূচির অংশ হিসেবে বিসিক শিল্প নগরী সপুরা রাজশাহী ও বিসিক শিল্প নগরী-২ রাজশাহীতে প্রায় ১ হাজার ১০০ শত গাছের চারা রোপন কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। অনুষ্ঠানে বিসিক আঞ্চলিক কার্যালয়, বিসিক জেলা কার্যালয়, বিসিক শিল্পনগরী কার্যালয় এর কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ বিসিক শিল্প ইউনিট এর বিভিন্ন শিল্প মালিক, কর্মচারী উপস্থিত ছিলেন।

বিএমডিএ
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ৪৭তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস-২০২২ যথাযথ মর্যাদায় পালন করেছে বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিএমডিএ)। গতকাল সোমবার বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের প্রধান কার্যালয় রাজশাহী বরেন্দ্র ভবনে ও সকল জোন ও রিজন অফিসে যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন করা হয় দিবসটি।
এছাড়া এদিন বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ, প্রধান কার্যালয়সহ আওতাধীন স্ব-স্ব দপ্তরে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিতকরণ করা হয়। বিএমডিএ নির্বাহী পরিচালক আবদুল রশিদ এর নেতৃত্বে দিবসের কর্মসূচিতে রাজশাহী নগরীর সিএনবি মোড়ে অবস্থিত বঙ্গবন্ধু চত্বরে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালএ পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। পরে বিএমডিএ সম্মেলন কক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল, বঙ্গবন্ধুর স্মৃতির উপর ভিডিও স্লাইড প্রদর্শন করা হয়।
এ সময় উপস্থিতি ছিলেন- বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিএমডিএ) নির্বাহী পরিচালক আব্দুর রশীদ, অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী শামসুল হোদা, অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী ড. মো আবুল কাসেম, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী শরীফুল হক, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আব্দুল লতিফ প্রমুখ।
রুয়েট কর্মকর্তা সমিতি
রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (রুয়েট) কর্মকর্তা সমিতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ৪৭তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস নানা কর্মসূচির মধ্যে দিয়ে পালন করে। কর্মসূচি সমূহের মধ্যে কর্মকর্তা সমিতির সভাপতি নাজিমউদ্দীন আহম্মদ ও সাধারণ সম্পাদক দিলীপ কুমার ঘোষ রুয়েটের ভাইস-চ্যান্সেলর (অতিরিক্ত দায়িত্ব) অধ্যাপক ড. মো. সাজ্জাদ হোসেন ও রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যাপক ড. মো. সেলিম হোসেনকে সাথে নিয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর ম্যুরালে পুষ্পার্ঘ অর্পণ ও শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করেন। এসময় অন্যান্যদের মধ্যে কর্মকর্তা সমিতির সহ-সভাপতি রোকনুজ্জামান রোকন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
এনবিআইইউ
নর্থ বেঙ্গল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে (এনবিআইইউ) যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হয়েছে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস। দিবসটি উপলক্ষে সোমবার সকালে রাজশাহী নগরীর চৌদ্দপাইস্থ ইউনিভার্সিটির নিজস্ব ক্যম্পাসে কালো পতাকা উত্তোলন ও জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখার মাধ্যমে কর্মসূচি শুরু হয়। সকাল সাড়ে ১০টায় বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়। এরপর আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টিবোর্ডের চেয়ারম্যান বরেণ্য কথাশিল্পী নারীনেত্রী অধ্যাপিকা রাশেদা খালেক। মূখ্য আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন খুলনা বিশ^বিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান, ইউনিভার্সিটির উপাচার্য বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ, গবেষক ও কলামিস্ট প্রফেসর ড. আবদুল খালেকের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ইউনিভার্সিটির চীফ-কোঅর্ডিনেটর প্রফেসর ড. পি.এম. সফিকুল ইসলাম।

SHARE