ট্রেন থেকে নামতে গিয়ে যুবকের দুই পা বিচ্ছিন্ন

14

নাটোর প্রতিনিধি : নাটোর রেলস্টেশনে ট্রেন থেকে নামতে গিয়ে ট্রেনে কাটা পড়ে সোহাগ হোসেন (২২) নামে এক যুবকের শরীর থেকে দুই পা বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। আজ শুক্রবার পঞ্চগড়গামী একতা এক্সপ্রেস ট্রেন থেকে নামতে গিয়ে ওই যুবক নিচে পড়ে গেলে এই দুর্ঘটনাটি ঘটে। পরে নাটোর ফায়ার স্টেশন কর্মীরা সোহাগকে উদ্ধার করে নাটোর সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

আহত সোহাগ নাটোর সদর উপজেলার চানপুর গ্রামের ফরিদ হোসেনের ছেলে।

রেলওয়ে পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছে, দুর্ঘটনার শিকার ওই যুবক ঢাকা থেকে পঞ্চগড়গামী আন্তনগর একতা এক্সপ্রেস ট্রেনের যাত্রী ছিলেন। ট্রেনটি বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে নাটোর স্টেশন প্ল্যাটফর্মে ধীর গতিতে ঢোকার মুহূর্তে ওই যুবক ট্রেন থেকে প্ল্যাটফর্মে নামতে গিয়ে পড়ে যান। এ সময় তার দুই পা ট্রেনের নিচে কাটা পড়ে শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। স্থানীয়রা তাঁকে দ্রুত ট্রেনের নিচে থেকে উদ্ধার করে। খবর পেয়ে নাটোর ফায়ার স্টেশন কর্মীরা ঘটনাস্থল থেকে আহত যুবককে নিয়ে নাটোর সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়।

নাটোর রেলওয়ে স্টেশনে কর্মরত রেলওয়ে পুলিশের উপপরিদর্শক আবু তালেব জানান, ট্রেনটি প্ল্যাটফর্মে প্রবেশ করার পর পরই ট্রেনের সামনের দিকে হই চই শুনতে পান। এ সময় তিনি ট্রেনের পেছনের বগির দিকে কর্মরত ছিলেন। তিনি ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখতে পান স্থানীয়রা দেহ থেকে বিচ্ছিন্ন পা সহ আহত যুবককে ট্রেনের নিচ থেকে উদ্ধার করে প্ল্যাটফর্মে তুলে রেখেছেন। পরে ফায়ার স্টেশন কর্মীরা এসে তাঁকে নাটোর সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়।

রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার রেজাউল করিম মোল্লা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ওই যুবক ট্রেন থেকে নামার সময় নিচে পড়ে যান। তিনি খবর পাওয়ার সঙ্গে রেলওয়ে নিরাপত্তাকর্মীসহ নাটোর ফায়ার স্টেশনকে জানান। রেলওয়ে পুলিশ স্থানীয়দের সহায়তায় দুর্ঘটনার শিকার ওই যুবককে ট্রেনের নিচে থেকে উদ্ধার করে। পরে ফায়ার স্টেশন কর্মীরা এসে আহত যুবককে নিয়ে নাটোর সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। এই দুর্ঘটনার জন্য প্রায় ১০ মিনিট দেরিতে ট্রেনটি নাটোর স্টেশন ছেড়ে যায়।

SHARE