মাদক ব্যবসায়ী রুবেল গ্রেফতার না হলে বৃহত্তর আন্দোলনের হুঁশিয়ারি

14

স্টাফ রির্পোটার : শহরের ১৮ নম্বর ওয়ার্ডের কুখ্যাত মাদকব্যবসায়ী ও ওয়ার্কার্স পার্টির কার্যালয়ে অগ্নিসংযোগের প্রধান ইন্ধনদাতা রুবেলকে অবিলম্বে গ্রেফতার না করা হলে রাজশাহীতে বৃহত্তর মাদকবিরোধী আন্দোলন গড়ে তোলার হুশিয়ারি দিয়েছেন রাজশাহীর সচেতন নাগরিক সমাজের নেতৃবৃন্দ।

সোমবার বিকালে নগরীর সাহেব বাজার জিরোপয়েন্টে আয়োজিত এক মানববন্ধন ও সমাবেশ থেকে তারা এই হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন। মাদকমুক্ত রাজশাহী গড়ে তোলার দাবিতে সচেতন নাগরিকের ব্যানারে এই মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়। এতে আওয়ামী লীগ, ওয়ার্কার্স পার্টিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ অংশ নেন।

ঘন্টাব্যাপী চলা এই মানববন্ধন থেকে বক্তারা বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি ঘোষণা করেছেন। পুলিশের আইজিপি তিনিও একাধিকবার রাজশাহীতে এসে মাদকের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছেন। রুবেল একজন মাদকব্যবসায়ী; এটি ওই এলাকার জনগণই চিহ্নিত করেছে। প্রশাসনের কাছে এ বিষয়ে অভিযোগও দেওয়া হয়েছে। তাহলে কেন রুবেলকে গ্রেফতার করা হচ্ছে না? তাহলে কী রাজশাহীতে পুলিশ কমিশনার নাই, থানার কর্মকর্তারা নাই? এতোকিছু থাকার পরেও কেন রুবেলকে গ্রেফতারের দাবিতে আমাদের রাজপথে দাঁড়াতে হবে?

বক্তারা আরো বলেন, এলাকার মানুষের অভিযোগের প্রেক্ষিতে সম্প্রতি রুবেলের মাদক ব্যবসার বিরোধীতা করেন ১৮ নম্বর ওয়ার্ডের ওয়ার্কার্স পার্টির নেতা-কর্মীরা। তারা এলাকার আওয়ামী লীগসহ অন্যান্য প্রগতিশীল রাজনৈতিক দল ও গণমান্য ব্যক্তিদের সাথে পরামর্শ করে রুবেলের বিরুদ্ধে মানববন্ধন করার চিন্তা-ভাবনা করেন। এসব বিষয়ে রুবেল অবগত হলে এলাকায় নিজের অধিপত্য ধরে রাখার জন্য গত ১৪ জুলাই রাতে ১৮ নম্বর ওয়ার্ডের ওয়ার্কার্স পার্টির কার্যালয়ে আগুন ধরিয়ে দিতে তার ক্যাডার বাহিনীকে ইন্ধন দেয়।

মাদক ব্যবসা ও ওয়ার্কার্স পার্টির কার্যালয়ে আগুন দেওয়ার অভিযোগে অবিলম্বে রুবেলকে গ্রেফতার না করা হলে বৃহত্তর মাদকবিরোধী আন্দোলনের হুমকি দিয়ে বক্তারা বলেন, রাজশাহীর ৩০টি ওয়ার্ডে যারাই মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত; তথ্য সংগ্রহ করে তাদের সকলের নাম আমরা প্রকাশ করবো। তাদের সবাইকে আইনের আওতায় আনতে হবে। রুবেল গ্রেফতার না হলে কেউ ভাববেন না এটিই আমাদের শেষ কর্মসূচি। আগামীদিনে এর থেকে বৃহত্তর কর্মসূচি আমরা গ্রহণ করবো। মাদকমুক্ত রাজশাহী গড়তে সেই কর্মসূচি ধারাবাহিকভাবে অব্যাহত থাকবে।

রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক জামাত খানের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, রাজশাহী মহানগর ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি লিয়াকত আলী লিকু, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার, মহানগর ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক দেবাশিষ প্রামানিক দেবু, বিজ্ঞ আইনজীবী এন্তাজুল হক বাবু, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়ন মঞ্চের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল কালাম আজাদ, দিগন্ত প্রসারী পাঠাগারের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মতিন, ৭ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মতিউর রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা তৈয়বুর রহমান, শ্রমিক ফেডারেশনের জেলার সাংগঠনিক সম্পাদক নাজমুল করিম অপু, আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তানের সভাপতি শামীম ইমতিয়াজ, বাপার নেতা জিতু, লোকমোর্চার নেতা গোলাম নবী রনি প্রমুখ। মানববন্ধন সঞ্চালনা করেন মহানগর ওয়ার্কার্স পার্টির সম্পাদকমণ্ডলির সদস্য মনিরুদ্দীন পান্না।

SHARE