লোডশেডিংয়ে অতিষ্ঠ রাজশাহীবাসী জনজীবনে ভোগান্তি চরমে

12

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহীতে বিদ্যুৎতের লোডশেডিংয়ে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে নগরবাসী। বিদ্যুতের অভাবে চরম ভোগান্তির মধ্যে পড়েছে জনজীবন। দিন-রাতে ৫ থেকে ৬ বার বিদ্যুৎ চলে যাওয়ায় ব্যাঘাত ঘটছে দৈনন্দিন কাজে। পাশাপাশি তীব্র গরমের জনজীবনে নাভিশ্বাস উঠেছে।

উত্তরাঞ্চলে বিদ্যুৎ সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান নর্দান ইলেকট্রিসিটি সাপ্লাই কোম্পানি লিমিটেডের (নেসকো) তথ্যমতে, রাজশাহীতে বিদ্যুতের চাহিদার অনুপাতে ঘাটতি রয়েছে প্রায় ৩৬ শতাংশ। এ কারণে লোড ম্যানেজমেন্ট করা হচ্ছে। রাজশাহী নগরীর আবাসিক ও বাণিজ্যিক মিলিয়ে নেসকোর গ্রাহক সংখ্যা ২ লাখ ২৩ হাজার। নগরীতে সড়ক বিভাগ বিভিন্ন স্থানে সড়ক সম্প্রসারণের কাজ করছে। ফলে বৈদ্যুতিক খুঁটি তুলে সরাতে হচ্ছে। এ কারণে বিদ্যুৎ বন্ধ রাখতে হচ্ছে। এ ছাড়া নগরবাসী অপরিকল্পিতভাবে এসি, রাইস কুকার ব্যবহার করছেন। ফলে বাড়তি চাপ পড়ছে ট্রান্সফরমারের ওপর। এতে লাইন ফল্ট করছে। তখন বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বয়ংক্রিয়ভাবে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। এসব ট্রান্সফরমারের সক্ষমতা বাড়ানোর চেষ্টা করা হচ্ছে বলেও দাবি কর্তৃপক্ষের।

কিন্তু দেখা গেছে, নগরীতে দিনে-রাত সব সময় বিদ্যুতের বিভ্রাট হচ্ছে। একবার বিদ্যুৎ গেলে এক ঘণ্টার আগে আসছে না। দিনে তো বটেই, রাতেও কয়েকবার বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। এসব বিদ্যুৎ বিভ্রাট ঘটছে কোনরকম পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই। এছাড়াও কোন কোন স্থানে এলাকার উন্নয়ন কাজের জন্য আগের দিন মাইকিং করেও দীর্ঘ সময় বিদ্যুৎ বন্ধ রাখা হচ্ছে। যার কারণে প্রতিটি এলাকায় একাধিকবার লোডশেডিং এর কারণে ক্ষোভ বাড়ছে সাধারণ মানুষের মাঝে।

SHARE