দুই বাসের সংঘর্ষে হাত হারালেন রবিউল

29

অনলাইন ডেস্ক : নাটোরে দুটি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে হাত হারিয়েছেন একটি বাসের সুপারভাইজার রবিউল ইসলাম (৩৮)। বর্তমানে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন তিনি।

রবিউল ইসলাম রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলার ঝলমলিয়ার সেনভাগ এলাকার মোহাম্মদ আলীর ছেলে। তিনি দুর্ঘটনাকবলিত সিয়াম ট্রাভেলসে সুপারভাইজারের দায়িত্ব পালন করছিলেন।

বনপাড়া-হাটিকুমরুল মহাসড়কে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা ন্যাশনাল ট্রাভেলসের যাত্রীবাহী বাসের সঙ্গে বনপাড়া থেকে ছেড়ে যাওয়া সিয়াম ট্রাভেলসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।

শনিবার (৭ মে) বেলা ১১টার দিকে নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার মহিষভাঙ্গা এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। এতে ঘটনাস্থলে ছয়জন এবং পরে স্থানীয় হাসপাতালে একজন মারা যান। আহত হন অন্তত ২০ জন। এদেরই একজন রবিউল ইসলাম।

স্থানীয় একটি ক্লিনিকে প্রাথমিক চিকিৎসার পর তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। দুর্ঘটনায় বাম হাত হারিয়েছেন তিনি। আহত রবিউল ইসলাম হাসপাতালের ৩১ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন।

হাসপাতালে তার সঙ্গে আছেন স্ত্রী সাজেদা বেগম ও ছোট ভাই হানিফসহ আরো কয়েকজন স্বজন। খবর পেয়ে তারা হাসপাতালে ছুটে এসেছেন।

স্বজনরা জানান, আরিফ হোসেন (৫) ও আবদুল বারী (৩) নামে দুই ছেলের জনক রবিউল ইসলাম। তার আয়ে চলতো সংসার।

স্বামীর এমন দুর্ঘটনায় মাথায় আকাশ ভেঙে পড়েছে সাজেদা বেগমের। তিনি জানান, শুক্রবার সকালে বাড়ি থেকে বেরিয়েছেন তার স্বামী। রাতে আর ফেরেননি। শনিবার দুপুরে বাড়ি ফেরার কথা ছিল। কিন্তু তার আগেই স্বামীর দুর্ঘটনার খবর পান।

তার প্রশ্ন- এখন কীভাবে তার সংসার চলবে? স্বামীর চিকিৎসা করাবেন কীভাবে? ছেলেদের কীভাবেই বা মানুষ করবেন তিনি?

SHARE