বিয়ে বাড়িতে ইউএনও বন্ধ হলো দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীর বিয়ে

37

নাটোর প্রতিনিধি: দশম শ্রেণিতে পড়ুয়া এক শিক্ষার্থীর বিয়ের খাবারের আয়োজন চলছিলো। বিয়ের আনন্দে মেতেছিলো দুই পরিবার। অধীর আগ্রহ নিয়ে কনে বাড়িতে চলছিলো বরকে বরণ নিয়ে নেয়ার প্রস্তুতি। অপেক্ষার প্রহর গুনছিলেন মাইক্রোতে করে কখন আসবে বর।

এসময় হঠাৎই আসলো মাইক্রো। তবে সেটা বরের নয়; আসলেন নাটোর গুরুদাসপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মোহাম্মদ তমাল হোসেন। খোঁজ খবর নিয়ে বন্ধ করলেন বাল্য বিয়ে। এ সময় কনের বাবার কাছ থেকে মুচলেকা নেওয়া হয়। গত শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) দুপুরে উপজেলার খুবজীপুর ইউনিয়নের বিলশা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মোহাম্মদ তমাল হোসেন জানান, বিলশা উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণিতে পড়ুয়া এক মেয়ের বাল্যবিয়ের আয়োজন চলছিল। বর পাশ্ববর্তী এলাকার বাসিন্দা। বিয়ের দিন বিষয়টি তিনি জানতে পারেন। দেরি না করে সে সময় ওই বিয়ে বাড়িতে পৌঁছায়। মেয়ের বাড়ির লোকজন মিথ্যা তথ্য দিয়ে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করে। তবে পরে সত্য স্বীকার করে। এসময় বিয়ে বন্ধ করে পরিবারের থেকে ১৮ বছরের পূর্বে বিয়ে দিবে না এই মর্মে মুচলেকা নেয়া হয়।

তিনি আরও জানান, বাল্যবিয়ে বন্ধে উপজেলা প্রশাসন বদ্ধ পরিকর। এ বিষয়ে কেউ অভিযোগ দিলেই ব্যবস্থা নেয়া হবে।

SHARE