নগরীতেই তৈরি হচ্ছিল বিদেশি ব্র্যান্ডের প্রসাধনী

13

স্টাফ রির্পোটার : রাজশাহী নগরীতে দীর্ঘদিন ধরেই তৈরি হচ্ছিল বিদেশি ব্র্যান্ডের নকল প্রসাধনী। বাদ যায়নি নামিদামি দেশি ব্র্যান্ডও। নগরীর উপকণ্ঠ পবা থানার দিঘীর পারিলা এলাকার একটি বাসাবাড়িতেই তৈরি হচ্ছিল এসব প্রসাধনী।

মঙ্গলবার (৯ নভেম্বর) রাতে অভিযান চালিয়ে জড়িত দুজনকে গ্রেফতার করেছে রাজশাহী মহানগর পুলিশ। এ ঘটনায় জব্দ করা হয় বিভিন্ন দেশি-বিদেশি ব্র্যান্ডের মোড়কযুক্ত নকল প্রসাধনী, প্রসাধনী তৈরির উপকরণ এবং যন্ত্রাংশ। যার মূল্য প্রায় ১৭ লাখ টাকা।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন জেলার দুর্গাপুর থানার দক্ষিণপাড়ার মৃত গাজীউর রহমানের ছেলে সাইফুল ইসলাম (৪৮) ও দিঘীর পারিলা গ্রামের আব্দুস সফি তালুকদারের ছেলে মেজবাহ উদ্দিন (৪০)। মেজবাহ উদ্দিন সম্পর্কে সাইফুল ইসলামের বোনের স্বামী।

বুধবার (১০ নভেম্বর) দুপুরের দিকে নিজ দফতরে সাংবাদিকদের অভিযান বিষয়ে ব্রিফিং করেন রাজশাহী নগর পুলিশ কমিশনার আবু কালাম সিদ্দিক।

তিনি বলেন, গোপন সংবাদ পেয়ে মঙ্গলবার বেলা আড়াইটার দিকে দিঘীর পারিলা এলাকার ওই বাড়িটিতে অভিযান চালায় পবা থানা পুলিশের একটি দল। এ সময় বিপুল পরিমাণ নকল প্রসাধনী এবং প্রসাধনী তৈরির উপকরণসহ জড়িত দুজনকে গ্রেফতার করে।

পরে গ্রেফতারকৃতরা পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করে, তারা ক্ষতিকর বিভিন্ন রাসায়নিক দ্রব্য ব্যবহার করে নিজ বাড়িতেই নকল ও মানহীন প্রসাধনী প্রস্তুত করে দেশি-বিদেশি ব্র্যান্ডের মোড়কে বাজারজাত করত।

রাজশাহী মহানগরসহ আশপাশের বিভিন্ন বিউটি পার্লার, জেন্টস পার্লার, সেলুন ও কসমেটিক্স বিক্রেতাদের কাছে এসব পণ্য সরবরাহ করে আসছিল তারা। নকল প্রসাধনী ব্যবহারে দীর্ঘ মেয়াদী চর্ম রোগ, এমনকি স্কিন ক্যান্সারের ঝুঁকি রয়েছে বলে জানা যায়। গ্রেফতারদের বিরুদ্ধে আইনত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে বলেও জানান নগর পুলিশ প্রধান।নগরীতেই তৈরি হচ্ছিল বিদেশি ব্র্যান্ডের প্রসাধনী

স্টাফ রির্পোটার : রাজশাহী নগরীতে দীর্ঘদিন ধরেই তৈরি হচ্ছিল বিদেশি ব্র্যান্ডের নকল প্রসাধনী। বাদ যায়নি নামিদামি দেশি ব্র্যান্ডও। নগরীর উপকণ্ঠ পবা থানার দিঘীর পারিলা এলাকার একটি বাসাবাড়িতেই তৈরি হচ্ছিল এসব প্রসাধনী।

মঙ্গলবার (৯ নভেম্বর) রাতে অভিযান চালিয়ে জড়িত দুজনকে গ্রেফতার করেছে রাজশাহী মহানগর পুলিশ। এ ঘটনায় জব্দ করা হয় বিভিন্ন দেশি-বিদেশি ব্র্যান্ডের মোড়কযুক্ত নকল প্রসাধনী, প্রসাধনী তৈরির উপকরণ এবং যন্ত্রাংশ। যার মূল্য প্রায় ১৭ লাখ টাকা।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন জেলার দুর্গাপুর থানার দক্ষিণপাড়ার মৃত গাজীউর রহমানের ছেলে সাইফুল ইসলাম (৪৮) ও দিঘীর পারিলা গ্রামের আব্দুস সফি তালুকদারের ছেলে মেজবাহ উদ্দিন (৪০)। মেজবাহ উদ্দিন সম্পর্কে সাইফুল ইসলামের বোনের স্বামী।

বুধবার (১০ নভেম্বর) দুপুরের দিকে নিজ দফতরে সাংবাদিকদের অভিযান বিষয়ে ব্রিফিং করেন রাজশাহী নগর পুলিশ কমিশনার আবু কালাম সিদ্দিক।

তিনি বলেন, গোপন সংবাদ পেয়ে মঙ্গলবার বেলা আড়াইটার দিকে দিঘীর পারিলা এলাকার ওই বাড়িটিতে অভিযান চালায় পবা থানা পুলিশের একটি দল। এ সময় বিপুল পরিমাণ নকল প্রসাধনী এবং প্রসাধনী তৈরির উপকরণসহ জড়িত দুজনকে গ্রেফতার করে।

পরে গ্রেফতারকৃতরা পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করে, তারা ক্ষতিকর বিভিন্ন রাসায়নিক দ্রব্য ব্যবহার করে নিজ বাড়িতেই নকল ও মানহীন প্রসাধনী প্রস্তুত করে দেশি-বিদেশি ব্র্যান্ডের মোড়কে বাজারজাত করত।

রাজশাহী মহানগরসহ আশপাশের বিভিন্ন বিউটি পার্লার, জেন্টস পার্লার, সেলুন ও কসমেটিক্স বিক্রেতাদের কাছে এসব পণ্য সরবরাহ করে আসছিল তারা। নকল প্রসাধনী ব্যবহারে দীর্ঘ মেয়াদী চর্ম রোগ, এমনকি স্কিন ক্যান্সারের ঝুঁকি রয়েছে বলে জানা যায়। গ্রেফতারদের বিরুদ্ধে আইনত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে বলেও জানান নগর পুলিশ প্রধান।

 

 

 

SHARE