পরনির্ভরতা কমাতে কৃষি প্রণোদনা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে : খাদ্যমন্ত্রী

21

তথ্যবিবরণী : নিজেদের প্রয়োজনীয় পণ্য উৎপাদন বৃদ্ধির মাধ্যমে পরনির্ভরতা কমাতে সরকারি প্রণোদনা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে জানিয়েছেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার। তিনি প্রণোদনা নিয়ে চাষাবাদ বাড়াতে কৃষকদের প্রতি আহবান জানান।

আজ (সোমবার) সকালে পোরশা উপজেলা পরিষদ চত্বরে রবি ২০২১-২২ মৌসুমে কৃষি প্রণোদনা কর্মসূচির আওতায় ৩ হাজার ৫২০ জন ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকের মাঝে বিনামূল্যে গম, ভুট্টা, সরিষা, সূর্যমুখী, খেসারি, চিনাবাদাম, মুগ ও পেঁয়াজ বীজ এবং রাসায়নিক সার বিতরণের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, বাজারে প্রায়শই যে সকল পণ্যের দাম বাড়ে সেগুলো আমাদের দেশে কম উৎপাদিত হয়। পরনির্ভরতার কারণে সেসকল পণ্য আমদানি করতে হয়। আন্তর্জাতিক বাজারে দাম বাড়লে দেশেও দাম বাড়ে উল্লেখ করে তিনি বলেন, বাংলাদেশের মাটি অনেক উর্বর, এখানে যা ফলাতে চান তাই ফলবে।

তিনি বলেন, আমাদের দেশে তেলের দাম কম হওয়ায় পাচার হয়ে যেত। আন্তর্জাতিক বাজারের সাথে সমন্বয় রেখে দেশে ডিজেলের দাম বাড়ানো হয়েছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, এতে কৃষক কিছুটা ক্ষতিগ্রস্ত হবে। কৃষক বান্ধব সরকার কৃষককে প্রণোদনার মাধ্যমে সে ক্ষতি পুষিয়ে নিতে সাহায্য করবে।

মন্ত্রী আরো বলেন, গ্রামীণ অর্থনীতির বাংলাদেশ তিন স্তম্ভের উপর দাঁড়িয়ে আছে। এগুলো হলো কৃষি খাত, গার্মেন্টস খাত এবং প্রবাসীদের রেমিটেন্স। এ সেক্টরগুলো শক্তিশালী হওয়ার কারণে করোনাকালে বিশ্ব অর্থনীতি মন্দায় পতিত হলেও বাংলাদেশের অর্থনীতি ছিলো শক্তিশালী।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ নাজমুল আহমেদ রেজা এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন কৃষিবিদ সঞ্জয় কুমার সরকার, বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহ মঞ্জুর মোর্শেদ চৌধুরী।

অনুষ্ঠানে ১ হাজার ৪০০ জন কৃষককে গম, ২০০ জনকে ভুট্টা, ১ হাজার ৫০০ জনকে সরিষা, ১০০ জনকে সূর্যমুখী, ১৫০ জনকে মশুর, ১০০ জনকে খেসারী, ২০ জনকে চিনাবাদাম, ৩০ জনকে মুগ ও ২০ জন কৃষককে পেয়াজ বীজ প্রদান করা হয়।

SHARE