রামেক হাসপাতালে ১০ জনের মৃত্যু

12

স্টাফ রির্পোটার : গত ২৪ ঘণ্টায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের করোনা আইসোলেশন ইউনিটে আরও ১০ জন মারা গেছেন। এদের মধ্যে পাঁচজন করোনায়, চারজন করোনার উপসর্গ নিয়ে এবং একজন নেগেটিভ হয়ে মারা গেছেন।

চিকিৎসাধীন অবস্থায় রোববার (২২ আগস্ট) সকাল ৯টা থেকে সোমবার (২৩ আগস্ট) সকাল ৯টার মধ্যে তারা মারা যান। রামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা সংক্রমণে পাবনার দুজন, নাটোরের একজন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের একজন এবং নওগাঁর একজন প্রাণ হারিয়েছেন। এ ছাড়া করোনা সংক্রমণের উপসর্গ নিয়ে রাজশাহী, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, চুয়াডাঙ্গা এবং পাবনার একজন মারা গেছেন। করোনা নেগেটিভ হয়েও অন্যান্য শারীরিক জটিলতায় মারা গেছেন রাজশাহীর একজন। স্বাস্থ্যবিধি মেনে মরদেহ দাফনের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

তিনি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ছয়জন মারা গেছেন হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যাকেন্দ্রে (আইসিইউ)। এ ছাড়া ১৭ নম্বর ওয়ার্ডে তিনজন এবং ১৪ ও ১৫ নম্বর ওয়ার্ডে একজন করে মারা গেছেন।

পরিচালক আরও জানান, রোববার সকাল ৯টা পর্যন্ত ৫১৩ শয্যার রামেক করোনা আইসোলেশন ইউনিটে রোগী ভর্তি ছিলেন ২২৩ জন। এক দিন আগেও এই সংখ্যা ছিল ২৪০।

বর্তমানে রাজশাহীর ৯৪ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের ৫৪ জন, নাটোরের ৩৩ জন, নওগাঁর ২১ জন, পাবনার ২৩ জন, কুষ্টিয়ার আটজন, জয়পুরহাটের তিনজন, মেহেরপুরের একজন এবং বগুড়ার একজন হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।

হাসপাতালে করোনা নিয়ে ভর্তি রয়েছেন ১১৬ জন। করোনা উপসর্গ নিয়ে ভর্তি রয়েছেন ৮৮ জন। করোনা ধরা পড়েনি ভর্তি ৩৪ জনের। এ ছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় ভর্তি হয়েছেন ২৮ জন। এই এক দিনে হাসপাতাল ছেড়েছেন ১৯ জন।

এর আগে রোববার (২২ আগস্ট) রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতাল ল্যাবে ১৭১ জনের নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। এর মধ্যে করোনা ধরা পড়েছে ৪৭ জনের নমুনায়। একই দিনে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ ল্যাবে নমুনা পরীক্ষা হয়েছে আরও ৫৫৬ জনের। এর মধ্যে করোনা শনাক্ত হয়েছে ৭৭ জনের।

প্রসঙ্গত, গত ১ আগস্ট থেকে ২২ আগস্ট পর্যন্ত রামেক হাসপাতালের করোনা ইউনিটে মারা গেছেন ২৯৪ জন। এর মধ্যে করোনায় ১২৬ জন, করোনা সংক্রমণের উপসর্গ নিয়ে ১৩৮ জন এবং করোনা নেগেটিভ সত্ত্বেও অন্যান্য শারীরিক জটিলতায় ৩০ জনের মৃত্যু হয়।

এর আগে গত বছরের এপ্রিল থেকে এই বছরের জুলাই পর্যন্ত রামেক হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৯ হাজার ৩৯ জন রোগী। এর মধ্যে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়ে গেছেন ২ হাজার ৫১১ জন।

এই ১৫ মাসে মারা গেছেন ১ হাজার ৬০৯ জন। এর মধ্যে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৫২৬ জনের। অন্যদের মৃত্যু হয়েছে উপসর্গ নয়তো অন্যান্য শারীরিক জটিলতায়।

SHARE