করোনা প্রতিরোধে জনসচেতনতা সৃষ্টি ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা বিষয়ক লিফলেট, স্টিকার, ব্যানার বিতরণ ক্যাম্পেইনের উদ্বোধন

6

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি : ‘শুনুন মানুন বাঁচুন’ নিজে মাস্ক পরি, অন্যকে সচেতন করি, প্রয়োজন ছাড়া বাহিরে নয়-টিকা গ্রহণ অবশ্যই’ রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনের আহবান সম্বলিত করোনা প্রতিরোধে করণীয় বিষয়ক লিফলেট, স্টিকার, ব্যানার বিতরণ ক্যাম্পেইনের উদ্বোধন করা হয়েছে। গতকাল দুপুরে নগরভবনে সিটি হল সভাকক্ষে সিডিসি টাউন ফেডারেশন, সিএইচডিএফ, ক্লাস্টার নেতৃবৃন্দের হাতে করোনা প্রতিরোধে করণীয় বিষয়ক লিফলেট, স্টিকার, ব্যানার বিতরণ করে এ ক্যাম্পেইনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র বলেন, করোনা মোকাবেলায় রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন উল্লেখযোগ্য ভুমিকা পালন করে যাচ্ছে। ওয়ার্ড পর্যায়ে টিকাদানের মাধ্যমে মহানগরীর বৃহত্তর জনগোষ্ঠীকে টিকার আওতায় আনা সম্ভব হয়েছে। বর্তমান পরিস্থতিতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা, সচেতন থাকা ও মাস্ক ব্যবহারের কোন বিকল্প নেই।

মেয়র আরো বলেন, প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়নে কাজ করছে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন। এলক্ষ্যে ক্লাস্টার, সিডিসি টাউন ফেডারেশন, সিএইচডিএফ গঠন করা হয়েছে। রাজশাহীতে নারীদের জীবনমান উন্নয়নে ইউপিপিআরপি প্রকল্প চালু ছিল। এক সময় তা বন্ধ হয়ে যায়। ২য় মেয়াদে মেয়র নির্বাচিত হবার পর পুনরায় এটির কার্যক্রম চালু করি। সিডিসির সদস্যদের সঞ্চিত মূলধনের পরিমাণ ১শ ২০ কোটি টাকা। সমাজের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়নে এটি কাজ করছে। সিডিসির মাধ্যমে নেতৃত্ব বিকশিত হয়। যারা নিজেদের কর্মকান্ডের মাধ্যমে নিজেদের উন্নয়ন করে থাকে। একইসাথে এলাকার আর্থ-সামাজিক উন্নয়নেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে।

তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন ছিল এদেশের কোন নাগরিক যেন গৃহহীন হয়ে গাছের নিচে না থাকে সে লক্ষ্যে তিনি কাজ শুরু করেছিলেন। তার সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নে কাজ করে যাচ্ছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা। মুজিববর্ষে আড়াই লক্ষ গৃহহীন পরিবারকে গৃহনির্মাণ করে দিয়েছেন। প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়ন প্রকল্পের মাধ্যমে সরকার ইতোমধ্যে নানামূখী উদ্যোগ গ্রহণ করেছে।

তিনি বলেন, স্বাধীনতার পর এ অঞ্চলে কয়েকটি রাষ্ট্রায়ত্ব শিল্প গড়ে উঠলেও আজ তা বন্ধের পথে। দেশের অন্য এলাকার মতো এ এলাকায় তেমন শিল্প কারখানা গড়ে উঠেনি। ফলে বেকারত্বের হার বেশি। সরকার ইতোমধ্যে এ এলাকার আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে বিসিক-২ শিল্পনগরী গড়ে তুলেছে। যেটির উন্নয়ন কাজ এগিয়ে চলেছে। আশা করছি অচিরেই সেখানে শিল্প কারখানা নির্মাণ কাজ শুরু হবে। প্রকৃত উদ্যোক্তাদের কাছে প্লট বরাদ্দ দেয়া হবে। চামড়া শিল্পাঞ্চল, অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তোলা হচ্ছে। আয়ের বহুমুখী ক্ষেত্র সৃষ্টির মাধ্যমে এ অঞ্চলের বিপুল জনগোষ্ঠীর কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হবে।

সিডিসি টাউন ফেডারেশনের সভাপতি আয়েশা আখতার মুন্নীর সঞ্চালনায় রাসিকের কমিউনিটি ডেভেলমেন্ট শাখা আয়োজিত সভায় বক্তব্য দেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের প্রান্তিক জনগোষ্ঠী সংগঠনের উপদেষ্টা কবি আরিফুল হক কুমার, প্রান্তিক জনগোষ্ঠী জীবনমান উন্নয়ন প্রকল্পের সদস্য সচিব ও রাসিকের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী নুর ইসলাম তুষার, চীফ কমিউনিটি ডেভেলপমেন্ট অফিসার আজিজুর রহমান, টাউন ফেডারেশনের কোষাধ্যক্ষ শাবানা খাতুন সিএইচডিএফের পক্ষে মিতু হালদার, ক্লাস্টারের পক্ষে নাসরিন।

সভার শুরুতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ সকল শহীদদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। পরে নবনির্বাচিত সিডিসি টাউন ফেডারেশন, সিএইচডিএফ, ক্লাস্টার নেতৃবৃন্দের পরিচিতি পর্ব অনুষ্ঠিত হয়।

SHARE