নাটোরে খুঁটিতে বেঁধে ভ্যান চালককে পাশবিক নির্যাতন, ইউপি সদস্য গ্রেফতার

5

নাটোর প্রতিনিধি : নাটোরের সিংড়ায় ইউপি সদস্যের স্ত্রীর সাথে পরকীয়া সন্দেহে মিজু আহমেদ (৩৫) নামে এক ভ্যান চালক কে খুঁটিতে বেঁধে পাশবিক নির্যাতনের অভিযোগে উঠেছে ফরজ আলী নামে এক ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে। সোমবার রাতে সিংড়া উপজেলার তাজপুর ইউনিয়নের ক্ষরসতি বাজারে এঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ খবর পেয়ে রাতে ফজর আলী সরকারকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃত ব্যক্তি ওই গ্রামের আবুল কালামের পুত্র ও তাজপুর ইউনিয়ন পরিষদের ২ নং ওয়ার্ড সদস্য।
পুলিশ ও এলাকবাসী জানায়, সোমবার রাত ৮ টার দিকে উপজেলার তাজপুর ইউনিয়নের ক্ষরসতি বাজারে ইউপি সদস্য ফজর আলীর ২য় স্ত্রী রেখার দোকানে আসে তাঁরই মামাতো ভাই ভ্যান চালক মিজু। এসময় রেখার স্বামী ইউপি সদস্য ফজর আলী দোকানে প্রবেশ করেই মিজুকে বেদম প্রহার করতে থাকে। এক পর্যায়ে তাঁকে ঘরের খুঁটির সাথে বেঁধে ফেলে লোহার রড দিয়ে মারপিট ও জখম করে। পরে তাঁর চিৎকারে অন্যরা এগিয়ে আসে। পরে পুলিশ খবর পেয়ে গুরতর আহত অবস্থায় মিজুকে উদ্ধার করে সিংড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।
স্থানীয় সংরক্ষিত আসনের ইউপি সদস্য মনোয়ারা বেগম জানান, আমার বোন রেখা কে ইউপি সদস্য ফজর আলীর সাথে ১৭/১৮ বছর আগে বিয়ে দেয়া হয়। বিয়ের পর থেকে তাঁকে বিভিন্ন ভাবে নির্যাতন করা হয়। তাঁর কোনো খরচ দেয় না। মিজু আমার মামাতো ভাই। তাঁকেও অন্যায় ভাবে মারা হয়েছে।
তাজপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মিনহাজ উদ্দিন জানান, এ খবর পাওয়া মাত্র আমি ঘটনাস্থলে যাই। ভ্যান চালককে পাশবিক নির্যাতন করা হয়েছে। ছোট বিষয় হলে আমরা স্থানীয় ভাবে মীমাংসা করতে পারতাম। কিন্তু তাঁকে অন্যায় ভাবে প্রহর করা হয়েছে।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই কিশোর কুমার পাল জানান, এ বিষয়ে রাতেই মিজুর মা মর্জিনা বেগম বাদী হয়ে ৪ জনকে আসামি করে সিংড়া থানায় অভিযোগ করে দায়ের করেছে। ঘটনার সাথে জড়িত থাকায় সোমবার রাতেই একজনকে গ্রেফতার করে মঙ্গলবার দুপুরে নাটোর জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। অপর আসামিরা পলাতক রয়েছে।

SHARE