শিবগঞ্জে বৌভাত অনুষ্ঠানে যাওয়ার সময় বজ্রপাতে ১৬ জনের মৃত্যু

19

শিবগঞ্জ প্রতিনিধি : চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে বজ্রপাতে ১৬জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে। আহত হয়েছেন ১২ জন। বুধবার (৪ আগস্ট) দুপুর পৌনে ১২টার দিকে শিবগঞ্জ উপজেলার পাঁকা ইউনিয়নের পদ্মা নদীর দক্ষিণপাঁকা ঘাটে এই ঘটনা ঘটে।
নিহতরা হলেন, দক্ষিণপাঁকা তেররশিয়া গ্রামের মহবুল ইসলামের ছেলে রফিকুল ইসলাম (৬০), চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার মহারাজনগর-ডাইলপাড়ার মৃত সৈয়ব আলীর ছেলে তবজুল আলী(৭০), তাঁর স্ত্রী জামিলা বেগম(৫৮), ছেলে সাদল আলী (৩৫), একই এলাকার জামাল উদ্দিনের মেয়ে লেচন (৫০), সূর্য নারায়ণপুর গ্রামের ধুনু মিয়ার ছেলে সজীব আলী (২২), কালুর ছেলে আলম (৪৫), মোস্তফার ছেলে পাচু (৪০), ফাটাপাড়ার সাদেকুল ইসলামের স্ত্রী টকি বেগম (৩০), চরবাগডাঙ্গা গোঠাপাড়ার সাত্তার আলীর ছেলে সোহবুল (৩০), চর সূর্য নারায়ণপুরের টিপুর স্ত্রী বেলি বেগম (৩২), মহারাজনগর ডাইলপাড়ার রফিকুল ইসলামের ছেলে বাবুল (২৬), সূর্য নারায়ণপুরের বাবু আলীর স্ত্রী মোসা. মৌসুমী বেগম (২৫), বাবু ডাইং এলাকার মহফুলের ছেলে টিপু সুলতান (৪৫), মহারাজনগরের বাদল আলীর ছেলে বাবু (২০) ও সুন্দরপুরের সেরাজুল ইসলামের ছেলে আসিকুল ইসলাম (২০)।
জানা গেছে, তিন দিন (১ আগস্ট) আগে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার নারায়ণপুর ইউনিয়নের সূর্যনারায়ণপুর গ্রামের পাতুর ছেলের সাথে শিবগঞ্জ উপজেলার পাঁকা ইউনিয়নের দক্ষিণ পাঁকা তেররশিয়া গ্রামের হোসেন আলীর মেয়ের বিয়ে হয়। বিয়ের পর মেয়ে পক্ষ বরকে কনের বাড়ি নিয়ে যায়। এরপর ছেলে পক্ষ বিয়ের অনুষ্ঠানিকতা হিসাবে ছেলে ও নববধূকে বুধবার (৪ আগস্ট) আনতে গিয়ে বজ্রপাতের কবলে পড়ে মারা গেলেন বাবা পাতুসহ তাদের আত্মীয়-স্বজন। বাড়িভর্তি আত্মীয়-স্বজন বরের বাড়িতে আগের রাতে অনেক আনন্দ করেছেন। সেই আনন্দ আর সইলো না। বজ্রপাত কেড়ে নিল তাজা ১৬ জনকে এবং আহত হলেন আরো ১২ জন।
এ হৃদয়বিদারক ঘটনা ঘটেছে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার পাঁকা ইউনিয়নের দক্ষিণ পাঁকা তেররশিয়া গ্রামের কনের বাড়িতে বিয়ে পরবর্তী অনুষ্ঠানে যাবার সময়। বরপক্ষের যাত্রীরা চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার নারায়ণপুর ইউনিয়নের ডাইলপাড়া থেকে শ্যালো নৌকাযোগে পাঁকা ইউনিয়নের দক্ষিণ পাঁকা তেররশিয়া গ্রামের হোসেন আলীর বাড়িতে বিয়ে পরবর্তী অনুষ্ঠানে যোগ দিতে যাচ্ছিলেন। বুধবার ১২টায় বজ্রপাতের ঘটনা ঘটে।
গুরুতর আহত বৈদ্যনাথপুর এলাকার শাহজালালের ছেলে মো. তামিম (৪) কে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ২৪ নম্বর ওয়ার্ডে বিকাল সাড়ে ৪টায় ভর্তি করা হয়।
শিবগঞ্জ উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা প্রকৌশলী আরিফুল ইসলাম জানান, বুধবার চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার নারায়ণপুর ইউনিয়নের ডাইলপাড়া থেকে বরপক্ষের ৩০ জন শ্যালো নৌকাযোগে পাঁকা ইউনিয়নের দক্ষিণপাঁকা তেররশিয়া গ্রামের হোসেন আলীর বাড়িতে বৌভাত অনুষ্ঠানে যোগ দিতে তারা যাচ্ছিলেন। দুপুর ১২টার দিকে দক্ষিণ পাঁকা খেয়াঘাটে নামার সময় বৃষ্টি শুরু হলে তারা ঘাটের নিকট টিনের ঘরে আশ্রয় নেয়। এসময় বজ্রপাত হলে টিনের নীচে থাকা ১৬ জন ঘটনাস্থলে মারা যান, এ ঘটনায় ১২ জন আহত হন।
চাঁপাইনাবাবগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রফিক জানান হঠাৎ বৃষ্টি আসায় আমরা সকলেই নদীর পার্শ্বে থাকা একটি কুঁড়ে ঘরে আশ্রয় নিই। এমন সময় দুপুর ১২.৩০ মিনিটে বিকট শব্দ অনুধাবন করি। আমার জ্ঞান আসার পর দেখতে পায় ২৫/৩০ অজ্ঞান হয়ে শুয়ে আছে।
পাঁকা ইউনিয়ন আওায়ামীলীগের সভাপতি ইসমাইল হোসেন জানান, কনের বাড়িতে এখন চলছে কান্নার রোল। তাদের উভয় পরিবারে চলছে শোকের মাতম। এ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যাবার আগে মরদেহগুলো নৌকায় করে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার সুন্দরপুর ইউনিয়নের আলিমনগর ঘাটে নিয়ে যায়। পরবর্তীতে শিবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার সেখানে যান। পরে খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা ৭টি মরদেহ ও ৮জনকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে ২৫০ শয্যার জেলা হাসপাতালে নিয়ে আসে।
ফায়ার সার্ভিসের উপ-পরিচালক সাবের আলী প্রামাণিক জানান, ফায়ার সার্ভিস ১৪টি মরদেহ উদ্ধার করেছে এবং বাকি কয়েকজনের লাশ তাদের আত্মীয়-স্বজন আগেই নিয়ে গেছে।
এই দুর্ঘটনার সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে ঘটনাস্থলে ছুটে যান স্থানীয় সংসদ সদস্য ডা. সামিল উদ্দিন আহমেদ শিমুল, জেলা প্রশাসক মো. মুঞ্জুরুল হাফিজ, পুলিশ সুপার এএইচএম আব্দুর রাকিব, শিবগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সৈয়দ নজরুল ইসলাম, নির্বাহী অফিসার মো. সাকিব আল রাব্বী, অফিসার ইনচার্জ মো. ফরিদ হোসেন ও উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তা মো. আরিফুল ইসলামসহ জেলা-উপজেলা প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিগণ।
নিহতের বাড়িতে গিয়ে জানিয়েছেন সমবেদনা ও শোক প্রকাশ করেছেন এবং নিহতদের ১৬টি পরিবারকে ২৫ হাজার টাকা করে এবং আহতদের ৫ হাজার টাকা করে আর্থিক সহায়তা প্রদান করেছেন।
এব্যাপারে স্থানীয় সংসদ সদস্য ডা. সামিল উদ্দিন আহদেম শিমুল, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সৈয়দ নজরুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাকিব আল রাব্বী, শিবগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ মো. ফরিদ হোসেন, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আরিফুল ইসলাম বজ্রপাতে ১৬জনের নিহতের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, বুধবার দুপুরে পাঁকা ইউনিয়নের পদ্মা নদীর দক্ষিণপাঁকা ঘাটে বজ্রপাতের দূর্ঘটনার কবলিত একালা পরিদর্শন করেছি এবং শিবগঞ্জের নিহত রফিকুল ইসলামের পরিবারকে শিবগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ২৫ হাজার টাকা আর্থিক সহায়তা দেয়া হয়েছে।
তাঁরা আরো বলেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার এই ঘটনায় নিহত ১৬জনের পরিবারকে সদর উপজেলা প্রশাসন পক্ষ থেকে দেয়া হয়েছে।

SHARE