মার্কেট খোলার দিনে সড়কে বেড়েছে গাড়ি

29

স্টাফ রির্পোটার : করোনাভাইরাসের লাগাম টেনে ধরতে দেশব্যাপী চলছে সরকার আরোপিত কঠোর লকডাউন । এ লকডাউনের মধ্যেই রোববার (২৫ এপ্রিল) সকাল থেকে মহানগরীতে খুলে দেওয়া হয়েছে দোকানপাট-শপিংমল। আরডিএ মার্কেটসহ নগরী জুড়ে ব্যবসায়ীরা দোকান খুলে ব্যবসায় করছেন। এর প্রভাব পড়েছে সড়কে। সকাল থেকে মহানগরীর সড়কগুলোতে যানবাহনের বাড়তি চাপ লক্ষ্য করা গেছে। স্বাস্থ্যবিধি মানার ক্ষেত্রেও মানুষের মধ্যে উদাসীনতা ছিল লক্ষণীয়। নগরীর গুরত্বপূর্ণ সড়কে ছিলো প্রশাসন ও পুলিশের সদস্যরা।

রোববার দুপুরে নগরীর ব্যস্ততম সড়কগুলোতে বরাবরের মতো দেখা গেছে পুলিশের চেকপোস্ট। সেখানে পুলিশকে যানবাহনগুলো থামিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করতে দেখা গেছে। তবে গতদিনগুলোর মতো নয়, গুরুত্বপূর্ণ মোড়ে মোড়ে পুলিশ সদস্যদের বসে থাকতে দেখা গেছে। আর অটো, অটোরিক্সা, মোটরসাইকেলগুলো চলতে দেখা গেছে।
নসির রিক্সায় বিনোদপুর বাজারে আসছেন বাজার করতে। তিনি জানান, কেনা-কাটার একটা ব্যাপার থাকে। বেশ কয়েকদিন বাজার করা হয়নি।

রিক্সা চালক শহিদ জানান, বিনোদপুর, চৌদ্দপাই, কাজলা, ধরমপুর এলাকায় ভাড়া নিয়ে যাওয়া আসা করছি। আমি মাস্ক পরে আছি। যাত্রীকে মাস্ক পরতে বলছে, না হলে পুলিশ ধরলে সমস্যা হবে। তবে সবাইকে মাস্ক পরতে দেখা যাচ্ছে।

সকালে নগরীর মাস্টারপাড়া সবজিপট্টিতে গিয়ে দেখা গেছে, ক্রেতা-বিক্রেতাদের ব্যাপক উপস্থিতিতি। ক্রেতা-বিক্রেতাদের মধ্যে মানা হচ্ছে না সামাজিক দূরত্ব। অনেকটাই পাশা-পাশি দাঁড়িয়ে বাজার করতে দেখা গেছে ক্রেতাদের।

ব্যবসায়ীরা জানান, মাস্ক পরে সবাই আসছেন। তবে কেনাকাটার সময় পাশা-পাশি হয়ে যাচ্ছে। আমরাও চেষ্টা করছি যেনো কোনো ক্রেতা পাশা-পাশি না দাঁড়ায়, সেই বিষয়ে খেয়াল রাখছি।

SHARE