রাজশাহীতে ঢিলেঢালা লকডাউন

22

স্টাফ রিপোর্টার : সরকার ঘোষিত দ্বিতীয় দফার কঠোর লকডাউনের দ্বিতীয় দিন রাজশাহীতে ঢিলেঢালাভাবেই পালিত হচ্ছে। অনেকেই নির্দেশনাকে অমান্য করে বাইরে বের হচ্ছেন। আরডিএ মার্কেটসহ নগরী জুড়ে অনেক ব্যবসায়ীরা দোকান খুলে ব্যবসায়ও করছেন। তবে জেলা প্রশাসকের সাথে বৈঠকের পর আরডিএ মার্কেটের ব্যবসায়ীরা তাদের দোকানপাট বন্ধ করে দেন। নগরীর প্রবেশপথসহ মোড়গুলোতে প্রশাসনের কড়াকড়ি থাকলেও মানুষ তা মানছেন না। শহরমুখি মানুষের সমাগম বাড়তে শুরু করেছে। অন্যান্য দিনের চেয়ে নগরীতে গণপরিবহন চলাচলও ছিলো বেশি।

সকাল থেকেই দোকান খুলে ব্যবসা শুরু করেছেন, রাজশাহী আরডিএ মার্কেটের ব্যবসায়ীরা। সাহেববাজারের কাপড়পট্টি, স্বর্ণপট্টি, বিপনীবিতান ও কোর্ট বাজারের বেশকিছু দোকানসহ নগরী জুড়ে অনেক দোকানপাটই খোলা রাখতে দেখা গেছে। এদের অনেকেই অর্ধ শার্টার টেনে দোকান খোলা রাখছেন। প্রশাসনের কর্মকর্তাদের উপস্থিতি টের পেলেই বন্ধ করে দিচ্ছেন।

বৃহস্পতিবার (২২ এপ্রিল) নগরীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, অন্যান্য দিনের চেয়ে নগরজুড়ে আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর উপস্থিতি কম ছিলো। মোড়গুলোতে পরিবহন চলাচলে নিয়ন্ত্রণ আনা হলেও সাধারণ মানুষ দেদারসে ঘোরাফেরা করছে। আড্ডা জমাতে দেখা গেছে নগরীর বিভিন্ন এলাকায়।

এদিকে, আরডিএ মার্কেট ব্যবসায়ীদের সঙ্গে সভা করেছে জেলা প্রশাসন। সভায় ব্যবসায়ী সমিতির নেতাদের সঙ্গে আলোচনা শেষে মার্কেট বন্ধ রাখার সিদ্ধান্তের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন, জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. আবু আসলাম।
এদিন সকালে আরডিএ মার্কেটের প্রধান ফটকখুলে দেয়া হয়। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে খুলতে থাকে অধিকাংশ দোকান। তবে দোকানগুলোতে মালিক-কর্মচারী ছাড়া তেমন ক্রেতা সমাগম ছিলোনা।

আরডিএ মার্কেট ব্যবসায়ীরা বলছেন, করোনা পরিস্থিতিতে সরকার ঘোষিত সাত দিনের লকডাউনের মধ্যে তারা কোনো দোকানপাট খোলেন নি। কিন্তু রমজান উপলক্ষে তাদের অনেক মালামাল কেনা আছে। যেগুলো ইদের পর লোকসান করে বিক্রি করতে হবে। এরমধ্যে কর্মচারীদের বেতন আছে। দোকানের ভাড়া, বিদ্যুৎ বিলসহ আনুষাঙ্গিক আরো খরচ আছে। ব্যাংক ঋণের সুদ আছে। দোকান বন্ধ থাকলে এগুলো কীভাবে পরিশোধ করবো।

তবে বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টায় জেলা প্রষাসকের সাথে ব্যবসায়ী নেতুবুন্তের বৈঠকের পর আবারো দোকানপাট বন্ধ করে দেয়া হয়। সরকার লকডাউন শিথিল করলে ব্যবসায়ীরা স্বাস্থ্য সুরক্ষা মেনে দোকানপাট খুলবেন। আশা করা হচ্ছে ২৮ এপ্রিলের মধ্যে সরকারের পক্ষ থেকে লকডাউন শিথিলের ঘোষণা আসবে।

এ বিষয়ে জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত ম্যাজিষ্ট্রেট মো.আবু আসলাম জানান, সরকারের দ্বিতীয় দফা কঠোর লকডাউন ২৮ এপ্রিল পর্যন্ত বর্ধিত করা হয়েছে। এর আগে জরুরি প্রয়োজন ব্যতিত কোনো দোকান বা মার্কেট খোলা রাখা যাবে না। এবং তা নিশ্চিতে তারা কাজ করে যাচ্ছেন। আরডিএ মার্কেটের ব্যবসায়ীরা আজকে দোকান খুলেছেন। তাদের নিয়ে সভা করা হয়েছে। সেখানে ব্যবসায়ী নেতাদের দোকান বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে।

SHARE