রাজশাহীতে স্বস্তির বৃষ্টি, ফল ও ফসলের উপকার

20

স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহীতে স্বস্তির বৃষ্টি হয়েছে। দীর্ঘ খরার পর বুধবার (২১ এপ্রিল) বিকেলে ছয়টা ২০ মিনিটে থেকে রাজশাহীর কিছু কিছু এলাকায় এই বৃষ্টিপাত হয়েছে। তবে এই বৃষ্টিতে ফসলের কোনো ক্ষতি হয়নি বলে কৃষিবিদরা জানান।

জানা গেছে, বিকেল চারটা থেকে আকাশে মেঘের ঘনঘটা ছিলো। বিকেল ছয়টার পর থেকে গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি ঝরতে থাকে। এছাড়া বৃষ্টির সময় বাতাস বয়ে গেছে। অন্যদিকে, নগরীর বেশ কিছু এলাকায় ছিলো না বিদ্যুৎ।

রাজশাহী আবহাওয়া অফিসের পর্যবেক্ষক দেবল কুমার জানান, বৃষ্টি হয়েছে ৫ দশমিক ৬ মিলিমিটার। বৃষ্টির সময় বাতাসে আর্দ্রতা ছিলো ৮০ শতাংশ। এছাড়া রাতে বৃষ্টির সম্ভাবনা নেই।

রাজশাহী কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপপরিচালক কে জে এম আব্দুল আউয়াল জানান, যে বৃষ্টি হয়েছে, তাতে ফসলের কোনো ক্ষতি হবে না। এই বৃষ্টিতে আমের গুটি শক্ত হলো। এছাড়া লিচুর জন্যও উপকার হলো। অন্যদিক, জমিতে যে ধান রয়েছে সেগুলোর ক্ষতি হওয়ার কথা নয়। পাট ভুট্টাসহ বিভিন্ন ফসলের উপকার হয়েছে।

এর আগে গত ১২ এপ্রিল রাজশাহীতে ৭ দশমিক ৪ মিলিমিটার এবং ৯ এপ্রিল ২ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছিল।

বুধবার দুপুরের পর থেকেই রাজশাহীর আকাশ মেঘে মেঘে ঢাকা ছিল। সন্ধ্যায় নামে স্বস্তির বৃষ্টি।

বুধবার রাজশাহীতে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৩৮ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ভোরে সর্বনি¤œ তাপমাত্রা ছিল ২৬ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এর আগের দিন সর্বোচ্চ ৪০ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়। এটিই এবারের মৌসুমে দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা।

রাজশাহী আবহাওয়া অফিসের আবহাওয়াবিদ দেবল কুমার মৈত্র বলেন, গরম প্রকৃতির মধ্যে বুধবারের এই বৃষ্টি জনমনে স্বস্তি এনে দিয়েছে। তবে আপাতত আর বৃষ্টির তেমন সম্ভাবনা নেই।

অন্যদিকে কয়েকদিনের টানা তাপদাহের পর অবশেষে স্বস্তির বৃষ্টির দেখা পেল রাজশাহীবাসী। এছাড়া রমজান মাস হওয়ায় রোজাদারদের মধ্যেও কিছুটা প্রশান্তি ফিরেছে। এতে করে স্বস্তির বৃষ্টিতে টানা দাবদাহে থেকে যেন হাফ ছেড়ে বেঁচেছেন পদ্মাপাড়ের মানুষ।

আবহাওয়া অফিসের তথ্য মতে, রাজশাহীর ওপর দিয়ে গত এক সপ্তাহেরও বেশি সময় থেকে মৃদু তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছিল। এরপর মৃদু তাপপ্রবাহ রূপ নেয় মাঝারিতে। সর্বশেষ মাঝারি তাপপ্রবাহ তীব্র তাপপ্রবাহে পরিণত হয়। রাজশাহীর তাপমাত্রার পারদ ওঠে ৪০ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াসে! এমন পরিস্থিতিতে বৃষ্টির জন্য হাহাকার পড়ে গিয়েছিল। অবশেষে বুধবার সন্ধ্যায় কাক্সিক্ষত বৃষ্টির দেখা মিলেছে। স্বস্তির বৃষ্টিতে টানা দাবদাহ থেকে যেন হাফ ছেড়ে বেঁচেছেন পদ্মাপাড়ের মানুষ।

তবে মঙ্গলবারও সূর্যদীপ্ত সকাল নিয়ে দিন শুরু করেছিল রাজশাহীবাসী। সূর্যের প্রখর তাপ রাজশাহীকে ছুঁয়ে যায় দুপুরেই। বিকেল ৩টায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রার রেকর্ড হয় ৩৮ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

SHARE