হিংসায় উন্মত্ত পশ্চিমবঙ্গ, তৃতীয় পর্যায়ের ভোটে খুন দুই, প্রার্থীরা আক্রান্ত

15

অনলাইন ডেস্ক : পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচনের তৃতীয় দফা হিংসার সব রেকর্ডকে ভেঙে দিল। মঙ্গলবার ভোট ছিল দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার ১৬ টি, হাওড়ার ৭ টি ও হুগলির ৮ টি বিধানসভায়। এই ৩১ টি বিধানসভা আসনের ভোটে খুন হয়েছেন দুজন। অন্তত ১২ টি জায়গায় প্রার্থীরা আক্রান্ত হয়েছেন। এদিনের ভোটে ৭০৩ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী থাকলেও নির্বাচনকে কার্যত প্রহসনে পরিণত হতে দেখা যায়। হুগলির গোঘাটে বিজেপি কর্মী দীপক আদকের মা মাধবী আদক খুন হন। অভিযোগ তৃণমূল কংগ্রেসের দিকে। এই গোঘাটের বদরগঞ্জে খুন হন তৃণমূলের বুথ প্রেসিডেন্ট সুনীল রায়। আরামবাগ শহর থেকে ২০ কিলোমিটার দূরে আরানদিতে আক্রান্ত হন তৃণমূল প্রার্থী সুজাতা মন্ডল খাঁ।
তাকে বাঁশ নিয়ে তাড়া করে বিজেপি কর্মীরা। খানাকুলে প্রহৃত হন তৃণমূল প্রার্থী নাবিউল করিম। উলুবেড়িয়া উত্তরে আক্রান্ত হন তৃণমূল প্রার্থী ডা. নির্মল মাজি। তার দেহরক্ষী ২২ টা স্টিচ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি। শুধু তৃণমূল নয়, আক্রান্ত হয়েছেন বিজেপি প্রার্থীরাও। উলুবেড়িয়া দক্ষিনে বিজেপি প্রার্থী, অভিনেত্রী পাপিয়া অধিকারীকে চড় থাপ্পড় মারা হয়। ফলতায় বিজেপি প্রার্থী বিধান পাড়ুই আক্রান্ত হন। চুঁচুড়ায় বিজেপি প্রার্থী লকেট চট্টোপাধ্যায়ের দেহরক্ষী আক্রান্ত হন। ভাঙ্গরে তৃণমূল প্রার্থী বুথে বোমাবাজির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতে পথে বসে পড়েন। এদিন সুষ্ঠু নির্বাচন করতে কমিশনের ব্যর্থতা প্রকাশ্যে চলে আসে। আরো পাঁচ দফায় হিংসা আরো বাড়বে বলে নির্বাচন বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন।

SHARE