অর্থের অভাবে নেইমারকে ফেরাতে পারছে না বার্সেলোনা

22

ম্পোর্টস ডেস্ক : মাস দুয়েক আগেও নেইমারের পিএসজিতে চুক্তি নবায়নের গুঞ্জন শোনা যাচ্ছিল। ফরাসি গণমাধ্যমের খবর অনুযায়ী প্রায় নিশ্চিতই হয়ে যায় যে, আগামী চার বছর প্যারিসেই থেকে যাচ্ছেন ব্রাজিলিয়ান তারকা। তবে এবার উল্টো খবর- নেইমার আবারও বার্সায় ফেরার চেষ্টা করছেন। ন্যু-ক্যাম্প থেকে ইতিবাচক সাড়াও পাচ্ছেন তিনি। তবে স্প্যানিশ গণমাধ্যমের দাবি, বর্তমান আর্থিক দুরবস্থার কারণে বার্সা নেইমারকে এই মৌসুমে কিনতে পারবে কি না, তা নিয়ে রয়েছে সংশয়।
বার্সেলোনার আর্থিক বাজে দশার কারণে নেইমারের বার্সায় ফেরা যে কঠিন হবে, তা তিনি নিজেও জানেন। আর সে কারণে আর্থিকভাবে ছাড়ও দিতে রাজি নেইমার। স্প্যানিশ দৈনিক মার্কার খবর।
বেতন-বোনাসে নেইমার ছাড় দিতে চাইলেও বর্তমান পরিস্থিতিতে তাকে কিনতে দলবদলের ফি দেয়ার সামর্থ্যও নেই বার্সেলোনার।
গত বছর করোনাভাইরাসের কারণে বিপুল আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হয় বার্সেলোনা। ফুটবলের স্থগিতাবস্থা, স্টেডিয়ামে দর্শকদের অনুপস্থিতি- সব মিলিয়ে বিলিয়ন ডলার ছাড়িয়ে যায় তাদের দেনার পরিমাণ। তবে নেইমারকে ফেরানোয় বার্সা বোর্ডের কোনো আপত্তি নেই বলে জানাচ্ছে স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম। ২০২২ সালের আগস্টে নেইমার যখন পিএসজির চুক্তি থেকে মুক্ত হবেন, তখন তাকে বিনা মূল্যে ফেরাতে চায় বার্সা।
এরইমধ্যে জুলাইয়ে বার্সার সঙ্গে চুক্তি শেষ হওয়ার পর মেসির বার্সা ত্যাগের গুঞ্জন চর্চা চলছে। তবে হোয়ান লাপোর্তা সভাপতি হিসেবে যোগ দেয়ার পর মেসির ন্যু-ক্যাম্পে থেকে যাওয়ার সম্ভাবনা বেড়েছে। প্রিয় বন্ধুর সঙ্গে গাটছড়া বাধতে নেইমারও উদগ্রীব হয়ে আছেন।
স্প্যানিশ দৈনিক মার্কা লিখেছে, পিএসজির সঙ্গে চুক্তি নবায়নের ক্ষেত্রে স্তিমিত হয়েছেন নেইমার। কারণ, ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড ভাবছেন, মেসি বার্সেলোনাতেই থেকে যাবেন। ২৯ বছর বয়সী ব্রাজিলিয়ান যে মেসির সঙ্গে আবার খেলতে চান, সেটি তো আর গোপন কিছু নয়। গত ডিসেম্বরে নেইমার নিজেই জানিয়েছেন, মেসির সঙ্গে আরেকবার খেলতে চান এবং সেটা আগামী মৌসুম থেকেই!
প্রিয় বন্ধুর সঙ্গে ড্রেসিং রুম ভাগাভাগি করতে চাওয়া নেইমারের পিএসজি ত্যাগের গুঞ্জন নতুন করে চাউর হয় গত শনিবার ফরাসি লিগে লিলের বিপক্ষে পিএসজির ১-০ গোলে হারের পর।
নিজেদের মাঠে সেই ম্যাচে হেরে লিগের শিরোপাদৌড়ে পিএসজি পিছিয়ে গেছে, ৩১ ম্যাচ শেষে শীর্ষে থাকা লিলের চেয়ে ৩ পয়েন্ট পিছিয়ে আছে পয়েন্ট তালিকার দুই নম্বরে। এর মধ্যে সেই ম্যাচের শেষ দিকে এসে দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখেছেন নেইমার। ফরাসি লিগে সর্বশেষ ১৪ ম্যাচে তার তৃতীয় লাল কার্ড এটি।

SHARE