শঙ্কাই সত্যি হলো, আবারো পেছাল বাংলাদেশে হতে যাওয়া বিশ্বকাপ

17

স্পোর্টস ডেস্ক : মেয়েদের অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের প্রথম আসরের আয়োজক বাংলাদেশ। সেটা মাঠে গড়ানোর কথা ছিল গত জানুয়ারিতে। করোনা মহামারির কারণে পিছিয়ে ডিসেম্বরে আয়োজনের সিদ্ধান্ত নেয় আইসিসি। ডিসেম্বরেও যে আসরটি মাঠে গড়ানোর সম্ভাবনা নেই সেটা জানা গিয়েছিল আগেই। বৃহস্পতিবার আনুষ্ঠানিকভাবে বিশ্বকাপের আসরটি পিছিয়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত জানায় আইসিসি। দ্বিতীয় দফায় পিছিয়ে যাওয়া মেয়েদের অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ মাঠে গড়াবে ২০২৩ সালের জানুয়ারিতে। স্বাগতিক থাকছে বাংলাদেশই।

২০২১ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর মাত্র দ্বিতীয় আইসিসি ইভেন্ট হিসেবে আয়োজন হওয়ার কথা ছিল মেয়েদের ক্রিকেটের এই নতুন টুর্নামেন্ট। চলমান বছরের একমাত্র আইসিসি ইভেন্ট আয়োজিত হবে ছেলেদের কুড়ি ওভারের বিশ্বকাপ।
মহামারির কারণে বেশির ভাগ দেশে এক বছরেরও বেশি সময় ধরে বন্ধ ঘরোয়া বয়সভিত্তিক ক্রিকেট। এই কারণেই মূলত মেয়েদের অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের প্রথম আসর হওয়া নিয়ে তৈরি হয় অনিশ্চয়তা। পর্যাপ্ত প্রস্তুতির ঘাটতির কারণে ২০২১ সালের আসরটি পিছিয়ে ২০২৩ সালে আয়োজনের সিদ্ধান্ত নিলো আইসিসি। সদস্য দেশগুলোর সম্মতিক্রমে এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি।

প্রস্তুতির কথা মাথায় রেখে বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের খেলাও পিছিয়েছে আইসিসি। ২০২২ সালের নারী ওয়ানডে বিশ্বকাপের বাছাইপর্বটি এখন হবে ২০২১ সালের ডিসেম্বরে। এছাড়া নারী ওয়ানডে ক্রিকেটের নিয়মেও আনা হয়েছে খানিক পরিবর্তন। এখন থেকে আর পাঁচ ওভারের বাধ্যতামূলক পাওয়ার প্লে থাকছে না। আর কোনো ম্যাচ যদি টাই হয়, তাহলে এর ফল মীমাংসা হবে সুপার ওভারের মাধ্যমে।

SHARE