রাজশাহীতে ভারতীয় মেডিকেল শিক্ষার্থীর ‘আত্মহত্যা’

38

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহীর বেসরকারি বারিন্দ মেডিকেল কলেজের হোস্টেলে একজন ভারতীয় শিক্ষার্থী গলায় ফাঁস দিয়ে ‘আত্মহত্যা’ করেছেন। শুক্রবার (২২ জানুয়ারি) দিবাগত রাত সাড়ে ৮টা থেকে সাড়ে ৯টার মধ্যে এই ঘটনা ঘটে।

এই শিক্ষার্থীর নাম ইকবাল জাফর শরীফ (২৪)। ভারতের পশ্চিমবঙ্গে তার বাড়ি। বাবার নাম মোজাম্মেল হোসেন পিন্টু। ইকবাল বারিন্দ মেডিকেল কলেজের এমবিবিএস পঞ্চম বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন।

কলেজের অধ্যক্ষ ডা. বি.কে দাম বলেন, করোনার কারণে ইকবাল নিজের দেশেই ছিলেন। কয়েকদিন আগে বাংলাদেশে এসে ঢাকায় বন্ধুর কাছে ছিলেন। গত বুধবার তিনি রাজশাহী এসে বিদেশী শিক্ষার্থীদের জন্য নির্ধারিত হোস্টেলে ওঠেন। হোস্টেলে আগে প্রতি কক্ষে দুইজন বিদেশী শিক্ষার্থী থাকলেও এখন করোনাভাইরাস পরিস্থিতির কারণে একজন করে রাখা হয়। ইকবাল তার নিজের কক্ষে গলায় ফাঁস দেন।

অধ্যক্ষ জানান, সন্ধ্যার পর শিক্ষার্থীরা অনেকেই বাইরে যান। রাতে তারা ফিরে ইকবালকে সিলিং ফ্যানে ঝুলতে দেখেন। এরপর তারাই মরদেহ নামিয়ে হোস্টেল থেকে প্রায় ১৫০ গজ দূরে অবস্থিত হাসপাতালের জরুরি বিভাগে দ্রুত নিয়ে যান। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ডা. বি. কে দাম আরও জানান, ইকবাল মানসিক সমস্যায় ভুগতেন। দুবার তাকে চিকিৎসকের কাছেও নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। তার আত্মহত্যার বিষয়টি ভারতে তার মামা এবং রাজশাহীতে অবস্থিত ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনারের কার্যালয়ে জানানো হয়েছে। হাইকমিশন মরদেহ ভারতে পাঠানোর ব্যবস্থা করবে।

নগরের চন্দ্রিমা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সিরাজুম মুনীর বলেন, সিলিং ফ্যানের সঙ্গে চাদর পেচিয়ে ইকবাল আত্মহত্যা করেছেন বলে তারা প্রাথমিকভাবে জেনেছেন। বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে। মরদেহ উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজের (রামেক) মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের পর আইনগত প্রক্রিয়া শেষে মরদেহ দেশে পাঠানোর প্রক্রিয়া শুরু হবে।

SHARE