জয়পুরহাটে লেভেল ক্রসিংয়ে অল্পের জন্য বাঁচলো ৪৮ বাস যাত্রী

309

জয়পুরহাট প্রতিনিধি : জয়পুরহাটের আক্কেলপুর পৌর এলাকার পশ্চিম আমুট্ট (মহিলা কলেজ সংলগ্ন) এলাকায় লেভেল ক্রসিংয়ে তিতুমীর আন্তঃনগর ট্রেন ও বাসের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। তবে ট্রেন আসার আগেই মাত্র ৪০ সেকেন্ডের মধ্যে বাস থেকে যাত্রীরা নেমে যাওয়ায় হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

দুর্ঘটনায় ট্রেনের ইঞ্জিনের সামনে অংশে সামান্য ক্ষতি হয়েছে। শনিবার রাত ৯টার দিকে এ দুর্ঘটনার পর লেভেল ক্রসিংয়ের দায়িত্বে থাকা দাউদুল ইসলাম ও শিপলু হোসেন নামে দুই জন গেইটম্যান পালিয়ে গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও বাসযাত্রীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, নওগাঁর রানীনগর উপজেলার বেলঘড়িয়া গ্রামের প্রয়াত মিছর মণ্ডলের পাঁচ ছেলের পরিবারের সদস্য ৪৮ জন। তারা দিনাজপুরের স্বপ্নপুরীতে পিকনিকে যাওয়ার জন্য একটি বাস ভাড়া করেন। শনিবার সকালে ওই বাসে করে তারা স্বপ্নপুরীতে পিকনিকে যান। সেখান থেকে ফেরার পথে আক্কেলপুর পৌর এলাকার পশ্চিম আমুট্ট (মহিলা কলেজ সংলগ্ন) লেভেল ক্রসিং পার হওয়ার সময় বাসের সামনের চাঁকা একটি গর্তে আটকে যায়। তখন চিলাহাটি থেকে ছেড়ে আসা রাজশাহীগামী তিতুমীর আন্তঃনগর ট্রেন উত্তর দিক থেকে আক্কেলপুর স্টেশনে যাত্রা বিরতির জন্য আসছিল। ট্রেন আসা দেখে বাসে থাকা চালক ও হেলপার এবং ৪৮ যাত্রীরা সবাই মাত্র ৪০ সেকেন্ডের মধ্যে বাস থেকে নেমে যান। এর পরপরই ট্রেনের ধাক্কায় বাসটি দুমড়ে মুচড়ে লেভেল ক্রসিংয়ের কাছ থেকে ত্রিশ গজ দূরে একটি খালে গিয়ে পড়ে।

বাসযাত্রী আমিনুল ইসলাম বলেন, ‘আমি বাসটিতে সবার পেছনের সিটে বসে ছিলাম। ক্রসিংয়ে বাসটি আটকে যাওয়ার পর হঠাৎ ট্রেন আসতে দেখে মাত্র কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে কেউ জানালা দিয়ে কেউ দরজা দিয়ে বাস থেকে নেমে পড়ি। এতে প্রানে বেঁচে যাই সবাই। মুহূর্তে ট্রেনটি বাসটিকে ধাক্কা মারে। তখন লেভেল ক্রসিংয়ের দায়িত্বে কোনো লোক ছিল না।

আক্কেলপুর রেল স্টেশনের সহকারী স্টেশন মাস্টার হাসিবুল হাসান বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘আমুট্ট লেভেল ক্রসিংটি আমাদের আউটের বাইরে। এ কারণে ওই লেভেল ক্রসিংয়ের দায়িত্বে থাকা গেইট ম্যানদের আমরা নিয়ন্ত্রণ করতে পারি না। শুনেছি ঘটনার সময় তারা ছিলেন না। এখন তাদেরকে পাওয়া যাচ্ছে না। এ ঘটনায় ট্রেন ২০ মিনিট বিলম্ব হয়েছে।’

SHARE