থেমে নেই শিবগঞ্জে মাদক বিক্রি ও সেবন

55

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি : করোনার মধ্যেও থেমে নেই সীমান্তবর্তী জেলা চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলা মাদকের বিস্তার। হাত বাড়ালেই পাওয়া যাচ্ছে মাদক। মাদকের ছড়াছড়িতে যুবসমাজ বিপথগামী হয়ে চুরি ছিনতাইয়ের সাথে জড়িয়ে পড়ছে। তবে মাদকসেবীরা প্রকাশ্যে মাদক সেবন করলেও শিবগঞ্জ থানা পুলিশ কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ না করায় মাদকসেবী ও ব্যবসায়ীর সংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।
জানা গেছে, শিবগঞ্জ উপজেলায় মাদক ব্যবসীয়া শুধু খুচরা বিক্রি করে ক্ষান্ত হচ্ছে নাÑ পাশাপাশি বড় বড় চালান দেশের বিভিন্ন স্থানে নিয়ে যাচ্ছে। মাঝে মধ্যে আইন শৃংখলারক্ষাকারী বাহিনীর হাতে ধরা পড়লেও বেশির ভাগ ক্ষেত্রে তাদের চোখ ফাঁকি দিয়ে অবাধে নিয়ে যাচ্ছে মাদকের চালান। জেলার বিভিন্ন হাট-বাজারগুলোতে সন্ধ্যা নামতেই শুরু হয় মাদক সেবন। হাত বাড়ালেই মিলছে মরণ নেশা হেরোইন, ইয়াবা, গাঁজা আর ফেনসিডিল। এতে উঠতি বয়সের যুবকদের টার্গেট করছে ওই সব ব্যবসায়ীরা এবং অবাধে মাদক বিক্রি চালিয়ে যাচ্ছে। এছাড়া গত অক্টোবর ও চলতি নভেম্বর মাসে এ পর্যন্ত র‌্যাব, পুলিশ ও বিজিবি’র অভিযানে মাদকসেবী, মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে।
শিবগঞ্জে র‌্যাবের অভিযানে ১ কেজি ৫’শ গ্রাম হেরোইন, ৯ হাজার ৯২০ পিস ইয়াবা, ৪৬৫ বোতল ফেনসিডিল, গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে ১০৪৩ বোতল ফেন্সিডিল ও ৬’শ পিস ইয়াবা, বিজিবি’র অভিযানে চকপাড়া সীমান্তে ১৫৩০ পিস ইয়াবা ও ৬৮৫ গ্রাম হেরোইন উদ্ধারসহ ১৪ জনকে আটক করা হয়। এমনকি মাদকসেবীকে আটকসহ বিভিন্ন মেয়াদে সাজা প্রদান করা হয়।
স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা ও জিকে ফাউন্ডেশনের পরিচালক সৈয়দ মনিরুল ইসলাম জানান, কিছু সংখ্যক তরুণ বখাটে সোনামসজিদ- চাঁপাইনবাবগঞ্জ মহাসড়কে রাতে বিভিন্ন সময়ে মটর সাইকেল, অটোরিক্সা, সিএনজি ও ক্ষুদ্রব্যবসায়ীদের সাইকেল আটক করে তাদের সব কিছু ছিনিয়ে নিচ্ছে। তবে সম্প্রতি ঘোড়াপাখিয়া গ্রামে ২০/২৫টি বাড়িতে চুরির ঘটনা ঘটেছে। এমতাবস্থায় এলাকাবাসি চুরি প্রবণতা ঠেকাতে পালাক্রমে গ্রাম পাহারা দিচ্ছে। নয়ালাভাঙ্গা ইউপি চেয়ারম্যান আশরাফুল হক জানান, শিবগঞ্জ উপজেলার রাণীহাটি বাজার, ছত্রাজিতপুর বাজার, উজিরপুর, জলোবাজারে, অবাধে মাদক সেবন ও মাদক বিক্রি অব্যহত থাকায় সাধারণ ব্যবসায়ীরা পড়েছে চরম বিপাকে । কেননা এ সব মাদকসেবীরা দোকানে পণ্য ক্রয় করে টাকা না দিয়ে চলে গেলে, পরবর্তীতে টাকা চাইলেই উল্টো তাদের হামলার শিকার হতে হয়। এমনকি ভুক্তভোগি ব্যবসায়ীরা তাদের ভয়ে প্রশাসনকে অবগত করে না। শিবগঞ্জ পৌরসভার মেয়র কারিবুল হক রাজিন জানান, রসুলপুর মোড়, শিবগঞ্জ বাজার, কোর্টবাজার, কানসাট, মনাকষা, খাসের হাট, সোনামসজিদ, চককীর্ত্তি, মোবারকপুর, ধাইনগর, ধোবড়া বাজারে হাত বাড়ালেই অবাধে মিলছে মাদক। তিনি এসব এলাকার চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী ও সেবনকারীদের আইনের আওতায় আনার দাবী জানান।
শিবগঞ্জ থানার সদ্য যোগদানকৃত ওসি ফরিদ হোসেন জানান, এ এলাকায় ব্যাপক মাদক চোরাচালান হয়ে থাকে। মাদকের নিয়ন্ত্রণ আনাই হবে মূলত প্রথম কাজ।
চাঁপাইনবাবগঞ্জ র‌্যাব-৫ এর ক্যাম্প কমান্ডার এএসপি আজমল হোসেন জানান, র‌্যাব মহাপরিচালকের নির্দেশনায় মাদক বিরোধী অভিযান অব্যাহত থাকবে এবং এ জেলাকে মাদকমুক্ত করা হবে। চলতি মাসে ৫৫ জন মাদকসেবী ও মাদক ব্যবসায়ীদের গ্রেফতার করা হয়।
পুলিশ সুপার এএইচএম আব্দুর রকিব জানান, মাদকের বিরুদ্ধে পুলিশ বাহিনী জিরো টলারেন্সে অবস্থান করায় মাদক ব্যবসায়ী ও মাদকসেবীকে আটক করা হয়েছে। অভিযান অব্যাহত থাকবে।
এ ব্যাপারে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১ শিবগঞ্জ আসনের সাংসদ ডা. মো. সামিল উদ্দীন আহমেদ শিমুল বলেন, মাদকের বিরুদ্ধে বর্তমান সরকারের জিরো টলারেন্স নীতি অব্যাহত থাকায় আইনশৃংখলারক্ষাকারী বাহিনীর হাতে মাদকসেবী ও ব্যবসায়ীরা আটক হচ্ছে।

SHARE