বর্তমান সরকার শিক্ষা বান্ধব সরকার : বাদশা

194

স্টাফ রিপোর্টার : সদর আসনের সংসদ সদস্য জননেতা ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, মহানগরীতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শতভাগ উন্নয়ন হয়েছে। বর্তমান সরকার শিক্ষা বান্ধব সরকার। গত ১০ বছরে আমি রাজশাহীর মানুষের জন্য যা যা চেয়েছি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে তাই পেয়েছি। এ জন্য তিনি তাঁর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। গতকাল মঙ্গলবার বেলা ১১টায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ ক্যাম্পাস হাই স্কুলের নতুন ৬ তলা একাডেমিক ভিত্তি প্রস্তর স্থাপনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি এ কথা বলেন।
তিনি বলেন, রাতে বিদ্যুৎ লোডশেডিং-এর কারণে মহানগরী অন্ধকার হয়ে গেলেও ৫৩০ জন মুক্তিযোদ্ধার বাড়িতে আলো চলবে। কারণ আমি তাদের বাড়িতে বাড়িতে সোলার প্যানেল লাগিয়ে দিয়েছি। এ সময় উপস্থিত স্কুল শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে এমপি বাদশা বলেন, তোমরা মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস পড়বে। ৩০ লক্ষ শহিদের ত্যাগের বিনিময়ে আজকের এই বাংলাদেশ। শহিদদের ত্যাগের মূল্যায়ন না করলে তাদের অপমান করা হবে। এছাড়াও আগামী নির্বাচনে জয়ী হলে তিনি সেখানে শহিদ মিনার নির্মাণসহ সার্বিক উন্নয়নে সহযোগিতা করবেন বলে আশ্বাস দেন।
অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্য রাখেন, স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও রাজশাহী মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. নওশাদ আলী। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন, স্কুলের প্রধান শিক্ষক ইউনিস আলী সরদার। অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও অভিভাবকবৃন্দ। এরআগে পবিত্র কোরআন তেলওয়াত ও গীতা পাঠের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সূচনা করা হয় এবং জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করা হয়। এছাড়াও ভিত্তি ফলক উন্মোচনকালে দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। উল্লেখ্য, নির্বাচিত মাধ্যমিক বিদ্যালয় সমুহের উন্নয়ন শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় ৬ তলা একাডেমিক ভবনের প্রাক্কলিত ব্যয় ৪ কোটি ৩৯ লক্ষ টাকা বরাদ্দ হয়েছে। শিক্ষা প্রকৌশলী অধিদপ্তর এটি বাস্তবায়ন করেন। অবিলম্বে টে-ারের মাধ্যমে ভবনটির নির্মাণ কাজ শুরু হবে।
এদিকে দুপুরে এমপি বাদশা লক্ষ্মীপুর ভাটাপাড়া হাজী জমির উদ্দীন শাফিনা মহিলা ডিগ্রী কলেজের নব নির্মিত ৪ তলা একাডেমিক ভবনের উদ্বোধন ও নবীনবরন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য বলেন, উত্তরবঙ্গে এই প্রথম ১০ তলা হার্ট ফাউ-েশন হচ্ছে। তিনি বলেন, এ রোগের চিকিৎসার জন্য অনেক গরীব মানুষ জমি বিক্রি করে ঢাকা বা ই-িয়া গিয়ে সর্বশান্ত হয়েছেন। তাদের আর ঢাকা বা ই-িয়া যাওয়ার প্রয়োজন হবে না। এখানে মান-সম্মত চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হবে। এছাড়াও বাদশা বলেন, রাজশাহীতে আইটি ভিলেজ করা হবে। সেখানে ১৪ হাজার মানুষের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হবে। এতে করে বেকারত্ব অনেকটা কমে আসবে। তিনি রাজশাহীতে সাড়ে ৫’শ মসজিদের উন্নয়ন করেছেন এবং প্রত্যেকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে উন্নয়নের ছোঁয়া লেগেছে বলে জানান তিনি। এছাড়াও রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে উন্নত বিভিন্ন যন্ত্রপাতি ও মেশিনের ব্যবস্থা করে তিনি মান-সম্মত চিকিৎসার ব্যবস্থা করেছেন। মাদ্রাসা, গৌরস্থান, মন্দির ও শশ্মানে ব্যাপক উন্নয়ন করেছেন। তিনি বলেন, আমি যখন ক্ষমতায় আসি তখন আমার স্বপ্ন ছিল। নগরবাসীকে সু-শিক্ষিত করে গড়ে তোলা। শিক্ষা ছাড়া দেশের উন্নয়ন হবে না। এ সময় তিনি কলেজটির সার্বিক সহযোগীতার আশ্বাস দেন। অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্য রাখেন, সাবেক প্রতিমন্ত্রী জিনাতুন নেসা তালুকদার। সঞ্চালনায় ছিলেন, অধ্যক্ষ তাজবুল ইসলাম। অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, রাসিক কাউন্সিলর কামরুজ্জামান কামরু, কলেজটির দাতা সদস্য আব্দুস সামাদ খান, হিতেষী সদস্য সিদ্দিকুর রহমান সহ কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থী, অভিভাবকবৃন্দ ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। এরআগে পবিত্র কোরআন তেলওয়াতের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সূচনা করা হয়। এছাড়াও জাতীয় সঙ্গীত, দেশাত্মবোধক গান ও আদিবাসী নাচ অনুষ্ঠিত হয়।

SHARE