কুষ্টিায়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় বাঘার একই পরিবারের ৬ জন নিহত

77

বাঘা প্রতিনিধি : কুষ্টিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় বাঘার একই পরিবারের ৬ জন নিহত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে কুষ্টিয়া-ঈশ্বরদী মহাসড়কের ভেড়ামারা পাওয়ার হাউজ যাত্রী ছাউনির সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে।
নিহতরা হলেন-সিএনজি চালক সুবির গাইনের ছেলে জালাল উদ্দিন (৪০), মেজবাউল আসুম (৩৫), তার স্ত্রী রুনা বেগম (২৬), ছেলে ইব্রাহীম হোসেন রুজবী (৭ মাস), মাসুমের মা মাহমুদা বেগম (৫৪) ও শাশুড়ি গিনি বেগম (৫২)।
জানা যায়, রাজশাহীর বাঘা উপজেলার সরেরহাট গ্রামের মেজবাউল আলম মাসুমের বোন মাহমুদা আক্তার জেমমিনের আগামী শুক্রবার বিয়ে। এদিকে স্ত্রী রুনা ও ৭ মাসের শিশু ছেলে ইব্রাহীম হোসেন রুজদীকে রেখে কিভাবে বোনের বিয়ে দিবে। পরিবাররের সম্মতিতে মেজবাউল আলম মাসুম তার মা মাহমুদা বেগমকে সঙ্গে নিয়ে প্রতিবেশি চাচাত ভাই জালাল উদ্দিনের সিএনজি নিয়ে ঝিনাইদহে আনতে যায়। তারা দুপুরের খাবার শেষে শাশুড়ি গিনি বেগমকে সঙ্গে নিয়ে নিজ বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা হয়। পথিমধ্যে কুষ্টিয়া-ঈশ্বরদী মহাসড়কের ভেড়মারা পাওয়ার হাউজ যাত্রী ছাউনির সামনে পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে দ্রুতগামী একটি ট্রাক সিএনজিটিকে চাপা দেয়।
এতে ঘটনাস্থলে সিএনজি চালক জালাল উদ্দিন ও রুনা বেগম মারা যায়। এসময় রুনা বেগমের স্বামী মেজবাউল আলম মাসুম, ছেলে ইব্রাহীম হোসেন রুজবী, মা মাহমুদা বেগম, শাশুড়ি গিনি বেগম আহত হয়। পরে আহতদের উদ্ধার করে ভেড়ামারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ইব্রাহীম হোসেন রুজবীকে মৃত ঘোষণা করেন। অপর আহত মাহমুদা বেগম ও গিনি বেগমকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নেয়া হলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদেরকেও মৃত ঘোষণা করেন।
এ বিষয়ে ভেড়ামারা থানার পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) আসাদ জানান, ঘটনাস্থল থেকে মরদেহগুলো উদ্ধার করা হয়েছে। লাশ মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। ময়না তদন্ত শেষে লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

SHARE