নগরীতে মজিদ হত্যাকাণ্ডের রহস্য উন্মোচিত

160

স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহী মহানগরীর দাশপুকুরে সংঘটিত গরুর খামারি হত্যাকাণ্ডের রহস্য উন্মোচিত হয়েছে। এই ঘটনায় জড়িত আট আসামিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। উদ্ধার করা হয়েছে লুট করা গরুও। পুলিশ বলছে, গরু লুট করার উদ্দেশ্যেই দুর্বৃত্তরা এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটিয়েছে। গ্রেফতারের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা হত্যায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করছে। পুলিশি অভিযানে গ্রেফতারের পর গতকাল সোমবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে এ ব্যাপারে প্রেস ব্রিফিং করে নগরীর রাজপাড়া থানা পুলিশ। এ সময় সাংবাদিকদের সামনে গ্রেফতারকৃতদের হাজির করে পুলিশ। প্রেস ব্রিফিংয়ে আব্দুল মজিদকে হত্যার উদ্দেশ্যের কথা সাংবাদিকদের জানান নগর পুলিশের বোয়ালিয়া জোনের উপ-কমিশনার (ডিসি) সাজিদ হোসেন। এ সময় বোয়ালিয়া জোনের অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিশনার আব্দুর রশিদ, রাজপাড়া থানার সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার রাকিবুল ইসলাম ,রাজপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহাদাত হোসেন খান ও থানার ওসি তদন্ত মেহেদী হাসানসহ অন্যান্য পুলিশ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, নগরীর বহরমপুর এলাকার মৃত আব্দুল গফুরের ছেলে হামিদুর রহমান বাবু ওরফে খামার বাবু, হড়গ্রাম নতুনপাড়া এলাকার হারুনের ছেলে রবিউল ইসলাম (৩৮), চন্দ্রিমা থানার উজিরপুর এলাকার আব্দুস সামাদ (৫০), আবুল কাশেম (৪১ ) ও মকবুল আলীর স্ত্রী আশুরা বেগম (৪৮)। পরবর্তীতে আসামিদের থানা হেফাজতে জিজ্ঞাসাবাদ করে তাদের দেয়া তথ্যমতে এই মামলার মূল পরিকল্পনাকারী ও হত্যা মিশনে সরাসরি অংশগ্রহণকারী আসামি নগরীর দাশপুকুর এলাকার আয়নাল মীরের ছেলে আরিফুল ইসলাম (২৮), বহরমপুর এলাকার তাহাসেনের ছেলে মো. মিলন (৩০) ও একই এলাকার আব্দুর রহমানের ছেলে মো. জিন্দারকে (৪৮) গ্রেফতার করে। প্রেস ব্রিফিংয়ে দেয়া তথ্যমতে, আটককৃত আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, ঘটনার প্রায় ৪ দিন আগে থেকেই গরু চুরি করার পরিকল্পনা করে তারা। পরিকল্পনা অনুযায়ী ভিকটিম আব্দুল মজিদকে নেশা জাতীয়দ্রব্য সেবন করানো হয় গরু চুরির চেষ্টা করে কিন্তু চেষ্টা ব্যর্থ হয়ে ঘটনার দিন আসামিরা পুনরায় নেশাজাতীয় দ্রব্য সেবন করায়। তাতেও কাজ না হলে আসামি মিলন ও জিন্দার মিলে গলাটিপে শ্বাসরোধ করে হত্যার চেষ্টা করে ব্যর্থ হলে অপর আসামি আরিফুল ইসলাম ভিকটিমের ব্যবহৃত মাফলার দিয়ে গলা পেঁচিয়ে হত্যা নিশ্চিত করে ২টি গাভী গরু ও ২টি বাছুর চুরি করে ভুটভুটিতে করে নিয়ে চলে যায়। আটককৃত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। তাদের কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে। নগরীর রাজপাড়া থানার ওসি তদন্ত মেহেদি হাসান জানান, দাশপুকুর বাইপাসে খাস জমিতে দু’টি গরু এবং দু’টি বাছুর পালন করতেন আব্দুল মজিদ। পাশের একটি চৌকিতে তিনি ও তার স্ত্রী ঝর্না বেগম থাকতেন। বুধবার রাত ১২টার পর যেকোনো সময় দুর্বৃত্তরা তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে গরু ও বাছুরগুলো নিয়ে যায়। তবে ঘটনার ওই রাতে তার স্ত্রী বাড়ির বাইরে ছিলেন। গত বুধবার দিবাগত রাতের কোনো এক সময়ে দাশপুকুর এলাকার আব্দুল মজিদকে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। গত বৃহস্পতিবার সকাল পৌনে ১০টার দিকে ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

SHARE