কর্মক্ষেত্রে স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত

88

স্টাফ রিপোর্টার : কর্মক্ষেত্রে দেশের কারখানাগুলোতে স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা নিশ্চিতের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বর্তমান সরকার। তাই আগের চেয়ে দেশের কলকারখানাগুলোতে কর্মকর্তা কর্মচারিদের স্বাস্থ্যসেবার মান অনেকটা বেড়েছে। দেশের সবচেয়ে বড় দুঘর্টনা ঢাকার তাজরিন গার্মেন্টস ও রানা প্লাজার ধস। এই দুই বড় ঘটনার পরে অনেক শ্রমিকের প্রাণহানি ঘটে। এই ঘটনার পরেই দেশের সকল কলকারখানায় আরো নানামুখি পদক্ষেপের স্বাস্থ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বর্তমান সরকার। তাই এই বিষয়ে বর্তমান সময়ে আলোচনা করে নানামুখী পদক্ষেপ নেওয়া হয়।
গতকাল বুধবার বেলা নয়টায় নগরীর আমচত্বর এলাকায় অবস্থিত হোটেল স্টারে এক কর্মশালায় এ কথা বলে বক্তারা। জাতীয় পেশাগত স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা বিষয়ক গবেষণা ও প্রশিক্ষণ ইন্সটিটিউট এর কার্যক্রমের বিষয় নিয়ে কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন, শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের কারখানার অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক শিবনাথ রায়। বক্তারা জানান, কলকারখানাতে কাজ করতে গিয়ে অনেক শ্রমিক তাদের স্বাস্থ্যগত বিষয়ে নানাভাবে অসুস্থ হয়ে যায়। যেমন অতিরিক্ত শব্দ দূষণে অনেক শ্রমিকের শ্রবণ শক্তি নষ্ট হয়ে যায়। লেদার ফ্যাক্টরিতে কাজ করে শ্রমিকদের হাতে ঘা হয়। হাতের চামড়া নষ্ট হয়ে যায়। কাপড়ের রংসহ সঠিক প্রশিক্ষণে গার্মেন্টসগুলোতে অনেক পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।
এছাড়াও অগ্নিনির্বাপক বিষয়ে সচেতন করে প্রশিক্ষণ দিয়ে কাজ করছে শ্রমিকরা। কারখানাগুলোতে যেমন সমস্যা আছে তেমনি এর সমাধানও আছে। বক্তারা আরো জানান, রাজশাহীতেও কারখানাতে শ্রমিকদের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে চাই। তাই শ্রমিকদের আগে প্রশিক্ষণ দিয়ে কর্মকর্তাদের মাঝে সচেতনতা বাড়িয়ে কাজ শুরুর পরিকল্পনা নেওয়া হবে।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, ওএসএইচ ইনস্টিটিউট এর প্রকল্প পরিচালক মোশাররফ হোসেন। অন্যন্যের মাঝে উপস্থিত ছিলেন, জার্মান ইআইপিএস প্রজেক্ট ম্যানেজার ড. সিলভিয়া পোপ, টেকনিক্যাল ভিজিটর ফিরোজ আলম, কনসালটেন্ট ডিজিইউভি কাই ব্রেটলিং খ্রিশ্চিয়ান ভ্রানেদ্রে, ডেনিশ এস এর প্রতিনিধি সারেন আলরার্টসেন, মিল আল সাবিত, আইএল এর প্রোগ্রাম অ্যাসিস্টেট রাকিবুল হাসান প্রমুখ।

SHARE